২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

প্রথম চলচ্চিত্রেই চুল বিসর্জন দিলেন নায়িকা

  • রুদ্র হক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-08-07 20:55:26 BdST

প্রথম চলচ্চিত্রেই চুল বিসর্জন দিয়েছেন মডেল ও অভিনেত্রী সাদিয়া মাহি। রাশিদ পলাশের পরিচালনায় মুক্তিসম্ভাব্য ‘পদ্মাপুরান’ চলচ্চিত্রে চরিত্রের প্রয়োজনে এমন লুকে বড়পর্দায় অভিষেক হতে যাচ্ছে তার।

মডেলিং দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করা সাদিয়া মাহি’র প্রথম চলচ্চিত্র ‘পদ্মাপুরান’। পদ্মাতীরবর্তী জনগোষ্ঠির জীবন নিয়ে নির্মিত নীরিক্ষাধর্মী চলচ্চিত্রটিতে তিনটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন এ তরুণী। চরিত্রের প্রয়োজনে দীর্ঘকেশী এ তরুণী অবলীলায় হয়েছেন টাক।

মঙ্গলবার প্রকাশিত হয় চলচ্চিত্রটির ফার্স্টলুক পোস্টার। পোস্টারটিতে সাদিয়া মাহিকে দেখা গেছে তেমন রূপেই।পোস্টারেই দারুণ প্রশংসিত হয়েছেন নির্মাতা। আলোচনায় এসেছেন সাদিয়া মাহি।

সে সূত্রেই আলাপে আলাপে গ্লিটজকে তিনি জানালেন তার চুল বিসর্জনের অভিজ্ঞতা।

তিনি বলেন, “আমি যখন যে কাজটা করি খুব ভালোভাবে করি। মডেলিং যখন করতাম তখনও সেটা খুব ভালোভাবে করার চেষ্টা করেছি। ‘পদ্মাপুরান’ চলচ্চিত্রে যখন যুক্ত হই তখন থেকেই খুব সিরিয়াস ছিলাম চরিত্রের প্রতি। প্রায় দেড় বছর ধরে আমি অন্য কোন কাজ করিনি। প্রস্তুতি নিয়েছি। জানতাম চুল ফেলে দিতে হবে। মানসিক প্রস্তুতিটাও ছিলো। কিন্তু কখনো মনে হয়নি চুল ফেলে দেয়ার কারণে খুব একটা ক্ষতি হচ্ছে আমার।”

তবু শুটিংয়ে যখন চুল ফেলা হচ্ছিলো, চোখে জল এলো তার। এমনকি টানা দু’দিন আয়নায় নিজেকেও দেখেননি তিনি। শুটিং চলাকালীন অজ্ঞানও হয়ে পড়ছিলেন বারবার। 

মাহি বললেন, “আমি প্রস্তুত ছিলাম। ‍কিন্তু যখন চুল কাটা হচ্ছিলো আমি খুব অনুভব করছিলাম একজন মেয়ের জীবনে এটা কতোটা গুরুত্বপূর্ণ। আমার চোখ থেকে জল গড়িয়ে পড়ছিলো। টানা দু’দিন মিররের দিকেও তাকাইনি।”

চুল ফেলে দেয়ায় এখনও স্বাভাবিক ক্যারিয়ারে ফিরতে পারেননি সাদিয়া মাহি। চুল বড় হচ্ছে, চলচ্চিত্রও মুক্তির দিন ঘনিয়ে আসছে।

মাহি বললেন, “পোস্টার প্রকাশের পর খুব সাড়া পাচ্ছি, খুব ভালো লাগছে। সবাই খুব পজেটিভ বলছে। সিনেমার জন্য এমনিতেও কাজ কমিয়ে দিয়েছিলাম। তাই খুব একটা খারাপ লাগছে না এই সময়টা। আশা করছি ভালো ফল পাবো।”

চলচ্চিত্রটিতে সাদিয়া মাহিকে যেমন দেখা যাবে শিখণ্ডি চরিত্রে তেমনি চোরাকারবারী হয়ে সীমান্তে চোরাচালানকারী নারী হয়েও ধরা দেবেন তিনি। দেখা যাবে গর্ভবতী নারী চরিত্রেও।

তার সম্পর্কে নির্মাতা রাশিদ পলাশ বললেন, “দারুণ অভিনয় করেছে মেয়েটা। ওকে আমরা গল্পের প্রয়োজনে প্রচুর পরিশ্রম করিয়েছি। সাদিয়া ছাড়া অন্য কেউ হলে এই ফিল্মটা আমরা করতে পারতাম না। শুটিং চলাকালীন প্রচণ্ড শ্রম দিতে হয়েছে তাকে। ঘুমাতে দেয়া হয়নি। রোদে দাঁড় করিয়ে রাখা হতো। শেষে ১৪ দিন টানা শুট করে যখন ওর মাথার চুল ফেলে দেয়া হলো, সে বারবার জ্ঞান হারাচ্ছিলো। সেই দিন তাকে অজ্ঞান অবস্থায় আমরা নদীতে ভেলায় ভাসিয়ে দেই তাকে। আমি তার সাফল্য কামনা করি।”

পদ্মানদীর বিবর্তনের গল্পে নির্মিত ‘পদ্মাপুরান’ চলচ্চিত্রটিতে সাদিয়া মাহি ছাড়াও  গুরুত্বপূর্ণ দুটি চরিত্রে অভিনয় করছেন চম্পা ও শম্পা রেজা। এছাড়াও প্রসূন আজাদ, বিপাশা কবির, কায়েস চৌধুরী, শিমুল খানকেও দেখা ব্যাতিক্রমী চরিত্রে।

নির্মাতা জানান, চলতি বছরের অক্টোবরেই চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে।