নিষেধাজ্ঞা ভেঙে শুটিংয়ে শিল্পী সংঘের সভাপতি সেলিম

  • সাইমুম সাদ, নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-15 00:27:58 BdST

নিষেধাজ্ঞা ভেঙে লকডাউনের মধ্যে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের শুটিং করে সমালোচনার মুখে পড়েছেন অভিনয়শিল্পী সংঘের সভাপতি শহীদুজ্জামান সেলিম।

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় মঙ্গলবার মেহেদী মার্ট নামে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের এক বিপণি বিতানের বিজ্ঞাপনের শুটিং করেছেন তিনি; ফেইসবুকের জন্য নির্মিত বিজ্ঞাপনটি বুধবার প্রকাশের পর প্রশ্নের মুখে পড়েছেন সেলিম।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে ২২ মার্চ থেকে সব ধরনের শুটিং বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে অভিনয়শিল্পী সংঘসহ ১৯ নাট্য সংগঠন; লকডাউনের মধ্যে কেউ শুটিং করলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসেছে নেতাদের তরফ থেকে।

এর মধ্যে শিল্পীদের অন্যতম নেতা সেলিমের শুটিংয়ের খবরে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছে সংগঠনগুলো; শুটিংয়ের বিষয়টি স্বীকার করে নিজেও ‘লজ্জিত’ বলে জানালেন সেলিম।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে সেলিম বলেন, “এটি দুঃখজনক ঘটনা। বিষয়টি নিয়ে এমন পরিস্থিতি হবে জানলে আরো সতর্ক থাকতাম।”

বিজ্ঞাপনের দৃশ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিপণিবিতানে ঘুরে ঘুরে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনার ফাঁকে দর্শকদের বিভিন্ন পণ্যের সঙ্গে পরিচয় করাতে দেখা গেছে তাকে।

ছোটপর্দার নির্মাতা সাখাওয়াত মানিকের পরিচালনায় এতে আরো শুটিং করেছেন নিরব, আমান রেজা, শিরিন শিলাসহ বেশ কয়েকজন অভিনয়শিল্পী।

করোনাভাইরাসের সঙ্কটকালে অভিনয় শিল্পীদের স্বার্থ বিবেচনায় রেখেই বিজ্ঞাপনটি করেছেন বলে জানালেন বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বাসিন্দা সেলিম।

অভিনয়শিল্পী সংঘের এ নেতা জানান, আয়োজন করে তিনি শুটিংয়ে অংশ নেননি। বাসার পাশে ওই বিপণিবিতানে কেনাকাটা করতে গেলে প্রতিষ্ঠানের মালিকের অনুরোধে কাজটি করেছেন। বিনিময়ে কোনো পারিশ্রমিক নেননি; শিল্পীদের কেনাকাটায় সেখানে ৫% ডিসকাউন্টের ব্যবস্থা করান তিনি।

“ভিডিওটি পরিচালনা কে করছে কিংবা এতে আর কে কে অংশ নিয়েছে কিছুই জানতাম না। ক্যামেরার সামনে বাইট দিয়ে বাজার করে বাসায় ফিরে এসেছি।”

তবে বিষয়টি নিয়ে অনেকের প্রশ্নের মুখে পড়েছেন জ্যেষ্ঠ এ অভিনেতা; ফেইসবুকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন টিভি নাটকের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

ছবি: ফেইসবুক থেকে নেওয়া

ছবি: ফেইসবুক থেকে নেওয়া

নিজের নির্মিত বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপনকে সচেতনতামূলক ভিডিও বলে দাবি করছেন এ নির্মাতা সাখাওয়াত মানিক।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, “নির্দেশনায় বলা হয়েছে কোনো নাটকের শুটিং করা যাবে না। কিন্তু এটি কোনো নাটক না; স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনাকাটার উপর সামাজিক সচেতনতামূলক ভিডিও।”

কিন্তু এটি কোনো প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন কি না?-এমন প্রশ্নের জবাবে মানিক বলেন, “হ্যাঁ। এটাও এক ধরনের বিজ্ঞাপন। এখন তো অনেকেই বাসা থেকেই বিভিন্ন করপোরেট প্রতিষ্ঠানের কাজ করছেন।”

রংধনু গ্রুপের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানটির মালিকের অনুরোধেই কাজটি করতে হয়েছে বলে দাবি করলেন তিনি।

শুটিংয়ে যোগ দেওয়ার আগে নিরব, আমান রেজা, শিরিন শিলাসহ বাকিদের অবহিত করা হলেও কেনাকাটা করতে এসে মালিকের অনুরোধ শুটিংয়ে যোগ দিয়েছেন সেলিম।

এর আগে লকডাউনের মধ্যে ছোটপর্দার নির্মাতা আদিবাসী মিজানের পরিচালনায় নির্মিতব্য একটি নাটকের শুটিং বন্ধ করা হয়েছে সংগঠনের তরফ থেকে। 

মগবাজারে একটি মিউজিক ভিডিওর শুটিং করায় ফুটেজ জব্দ করে সংশ্লিষ্টদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিস পাঠানো হয়েছে।

তবে এ বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ের বিষয়ে এখনও দৃশ্যত কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি সংগঠনগুলো।