প্রবীর মিত্রের করোনাভাইরাস জয়

  • গ্লিটজ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-07-07 21:46:46 BdST

bdnews24

চলচ্চিত্রের প্রবীণ অভিনয়শিল্পী প্রবীর মিত্র করোনাভাইরাসমুক্ত হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন।

২২ জুন তার নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ার পর রাজধানীর হেলথ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে চিকিৎসায় করোনাভাইরাসমুক্ত হয়ে তিনি সোমবার বাসায় ফিরেছেন বলে জানান পুত্রবধূ সোনিয়া ইয়াসমিন।

অস্টিওপরোসিসসহ (হাড়ক্ষয়) বার্ধক্যজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে কয়েক বছর ধরেই চার দেওয়ালে বন্দি জীবন কাটছিল ৭৯ বছর বয়সী এ অভিনয়শিল্পীর। 

এর মধ্যেই মনোবল শক্ত রেখে তিনি করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানালেন সোনিয়া।

তিনি এখন সেগুনবাগিচার বাসায় বিশ্রামে রয়েছেন। বড় ছেলে মিঠুন মিত্র ও পুত্রবধূ সোনিয়া ইয়াসমিন দেখভাল করছেন এ অভিনেতার।

কয়েক বছর আগেই অভিনয় থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছেন তিনি। সহশিল্পীদের মধ্যে অনেকের সঙ্গেই আর যোগাযোগ নেই তার। পত্রিকা পড়ে, টিভি দেখে সময় কাটে তার।

স্কুলজীবনে প্রথমবারের মতো রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘ডাকঘর’ নাটকে প্রহরীর চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন প্রবীর মিত্র। পরবর্তীতে পরিচালক এইচ আকবরের হাত ধরে ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়েছে বড়পর্দায় তার অভিষেক হয়।

প্রায় চার দশকের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিতাস একটি নদীর নাম, দুই পয়সার আলতা, বড় ভালো লোক ছিল, বেদের মেয়ে জোসনাসহ অসংখ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

সবশেষ এসডি রুবেলের পরিচালনায় ‘বৃদ্ধাশ্রম’ নামে একটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি; তবে ছবিটি এখনও মুক্তি পায়নি।

ভারে ন্যুব্জ এ অভিনয় শিল্পী আর কখনও ক্যামেরার সামনে দাঁড়াবেন না বলে গত বছরের নভেম্বরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন।

অভিনয়ের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে ১৯৮২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত মোহাম্মদ মহিউদ্দিন পরিচালিত 'বড় ভালো লোক ছিলো' চলচ্চিত্রে অভিনয়ে জন্য পার্শ্ব অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান প্রবীর মিত্র।

এরপর দীর্ঘদিনের আক্ষেপ ঘুচিয়ে ২০১৮ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়েছে তাকে।

১৯৪০ সালে চাঁদপুরে জন্ম নেওয়া প্রবীর মিত্রের শৈশব কেটেছে পুরান ঢাকায়। পড়াশোনা করেন সেন্ট গ্রেগরি হাইস্কুল ও জগন্নাথ কলেজে (বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়)।

তার তিন ছেলে, এক মেয়ে। স্ত্রী অজন্তা মিত্রকে ২০০০ সালে হারানোর পর ২০১২ সালে তার ছোট ছেলে আকাশও পরপারে পাড়ি জমান।

প্রবীর মিত্রের বাবা গোপেন্দ্র নারায়ণ মিত্র ও মা অমিয় বালা মিত্র। তার দুই বোন, সরস্বতী বসু ও রমা সরকার; ভাই সুবীর কুমার মিত্র।