গল্প থেকে ফিকশন অসাধ্য নয়: মারুফ রেহমান

  • গ্লিটজ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-13 13:26:56 BdST

bdnews24

‘কন্টেন্ট’ ও তার মান নিয়ে সারাবিশ্বব্যাপী যখন নীরব অভ্যুত্থান চলছে, তখন বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই।

লেখকের কাছ থেকে গল্প নিয়ে বানানো হচ্ছে ‘ফিকশন’। যার ধারাবাহিকতায় আছে ঈদের আয়োজনও।

এবার ঈদে মারুফ রেহমানের উপন্যাস ‘লাবনী’ অবলম্বনে ফিকশন বানালো বঙ্গ প্রযোজনা সংস্থা।

এতে অভিনয় করেছেন মুমতাহিনা টয়া এবং মনোজ।

টয়ার মতে, “এই গল্প নিয়ে সিনেমাও বানিয়ে ফেলা যেত। তবে ঈদে এই গল্পকে দেখা যাবে টেলিফিল্ম রূপে।”

‘লাবনী’ টেলিফিল্মটির পরিচালনায় ছিলেন গোলাম হায়দার কিসলু।

বঙ্গ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের নতুন উদ্যোগ ‘বিওবি (বেসড অন বুকস- সিজন ওয়ান)’- এ মারুফ রেহমানের এই উপন্যাস বেছে নিয়েছেন জনপ্রিয়তা আর এর ভেতরকার রহস্য উপাদানের জন্য।

আর এই উপন্যাসের ভিডিও ফিকশন তৈরির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিজ্ঞাপন নির্মাতা গোলাম হায়দার কিসলুকে, তার গল্পের আঙ্গিক উপস্থাপনাকে বিবেচনা করে। 

গল্পটিকে ফিকশনে পরিণত করতে সহায়তা করেন বঙ্গ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ‘কনটেন্ট’ কর্মকর্তা মুশফিকুর রহমান মঞ্জু।

তিনি বলেন, “এ ধরনের গল্প নিয়ে বিগত দিনে বাংলা ফিকশনে সেই অর্থে কাজ হয়নি। হুমায়ুন আহমেদ তার মিসির আলী চরিত্রের মধ্য দিয়ে কিছু সাহিত্য তৈরি করে রেখে গেছেন, যার মধ্যে ‘দেবী’ নিয়ে চলচ্চিত্র তৈরি হয়েছে। কিন্তু টেলিভিশন অথবা ওটিটি প্ল্যাটফর্মে তেমন উল্লেখযোগ্য কোনো কাজ হয়নি।”

তিনি যোগ করেন, “আমরা আশা করছি এই ভিডিও ফিকশনটি প্রজন্ম থেকে প্রজন্মকে আকর্ষণ করবে। আসছে ঈদে এই ফিকশন অন্যরকম এক আবহ তৈরি করবে তার গল্প বলার ভিন্নতা দিয়ে।”

লেখক মারুফ রেহমান বলেন, “বাজেট স্বল্পতা এবং প্রোডাকশন সীমাবদ্ধতায় গল্পেও ভিন্নতা আসে না। ‘লাবনী’ একটা অতিপ্রাকৃত প্রেমের উপন্যাস। এই রকম গল্প নিয়ে ওয়েব বা টিভি কনটেন্ট বানানো বেশ চ্যালেঞ্জ-এর কাজ।

“আমি মনে করি, একটা ঠিকঠাক গল্প হাতে থাকলে নির্মাতা এবং অভিনেতা সবাই নিজের সেরাটা দেখাবার সুযোগ পান। এই সব বিবেচনায়, ‘লাবনী’ দর্শকের ভালোবাসা পাবে বলে বিশ্বাস করি।” বললেন তিনি।

ঈদের চতুর্থ দিন একযোগে জিটিভি, একুশে টিভি, চ্যানেল নাইন, দীপ্ত টিভিতে প্রচারের পর বঙ্গবিডির ইউটিউব চ্যানেলে ‘লাবণী’ টেলিফিল্মটি প্রচার হবে।