১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫

এই জেনি, সেই জেনি

  • গ্লিটজ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2015-02-08 20:47:55 BdST

bdnews24

নাটক নয়, নওরিন হাসান খান জেনির অভিষেক হওয়ার কথা ছিল চলচ্চিত্রে!  মতিন রহমানের একটি বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রে নায়িকা হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছিলেন। কিন্তু স্কুলবালিকা জেনি ‘রঙচঙে কাপড় পরে নাচতে হবে’ বলে, ফিরিয়ে দিয়েছিলেন মতিন রহমানকে। তারপর একযুগ পেরিয়েছে। এখন জেনি বলছেন, বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে চান তিনি।

মাসুদ মহিউদ্দিন পরিচালিত ‘নীল নাগরিক’ ধারাবাহিকের সেটে কথা হচ্ছিল অভিনেত্রী নওরিন হাসান খান জেনির সঙ্গে।

চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে বললেন, “তখন আমি অষ্টম কি নবম শ্রেণীতে পড়ি। হঠাৎ একদিন মতিন রহমান তার একটি বাণিজ্যিক সিনেমার অফার নিয়ে আসলেন। আমাকে তিনি সিনেমার গল্প শোনালেন, বললেন অভিনেত্রী হতে গেলে যা যা করতে হবে। কিন্তু আমি তখন মোটেই প্রস্তুত ছিলাম না। চলচ্চিত্রে অভিনয় করা তখন একেবারে অসম্ভব ছিল। আমি নিজেকে চিত্রনায়িকা হিসেবে ভাবতে পারিনি তখন।”

তবে সিদ্ধান্ত পাল্টেছেন জেনি। অভিনেত্রী হিসেবে পরিণত জেনির চোখ এখন বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রের দিকে।

“এখন তো নাচ-গান নির্ভর সিনেমা হচ্ছে না। গল্পনির্ভর সিনেমা নির্মাণের চলও বাড়ছে। আমি এখন চলচ্চিত্রে কাজ করতে চাই। তবে তা অবশ্যই বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রে। ভিন্নধারার চলচ্চিত্রে আমি কাজ করতে চাই না। টিভি নাটকেই তো আমার ভিন্নধর্মী চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ রয়েছে।”

ছবি---তানজিল আহমেদ জনি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

ধারাবাহিকে অভিনয় নিয়ে প্রায়ই নানা অভিযোগ করে থাকেন তারকারা। জেনি বললেন, “ধারাবাহিকের ক্ষেত্রে চিত্রনাট্যে সমস্যা রয়েছে, এটা সত্যি। অনেক ক্ষেত্রে একঘেয়েমি চলে আসলে তখন আমি পরিচালককে বারবার অনুরোধ করি চিত্রনাট্য পরিবর্তনের। কিন্তু তাই বলে ধারাবাহিকের মাঝামাঝি এসে আমি কখনো কাজ ছেড়ে দিইনি। তখন আগ্রহ কমে যায়।”

এক ঘণ্টা, ধারাবাহিক ও টেলিফিল্ম - কোনটাতে অভিনয় করতে ভালো লাগে, এমন প্রশ্নের জবাবে বললেন, “টেলিফিল্ম বা ধারাবাহিক যাই হোক, আমার কাজ অভিনয় করা। ইউনিট, পরিচালক, চিত্রনাট্য সবকিছু ভালো হলে টেলিফিল্ম কিংবা নাটক যাই হোক, আমার কাজ করতে ভালো লাগে। আমার এক কথা, দিন শেষে আমাদের নাটকটি ভালো হতে হবে।

বাংলা নাটকের মান পড়ছে - এমন অভিযোগও প্রায়ই শোনা যায় শিল্পীদের মুখে, এ ব্যাপারে সহমত পোষণ করলেও বিষয়টির অন্য একটি ব্যাখ্যাও দিলেন জেনি, “যা শোনা যাচ্ছে, খুব একটা ভুল নয়। চ্যানেলের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। একই চেহারা ঘুরেফিরে বিভিন্ন চ্যানেলে দেখছে দর্শক। একটি চরিত্রের প্রতি মানুষের আগ্রহ তৈরি হচ্ছে না। তারপর বিজ্ঞাপন বাণিজ্য তো আছেই। যত চ্যানেল বাড়ছে কর্পোরেট বিনিয়োগ কমছে। সেক্ষেত্রে নাটকের বাজেটও কমছে।”

তবে শিল্পীদের পারিশ্রমিক বেড়েছে বলে জানালেন তিনি।

ছবি---তানজিল আহমেদ জনি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

“চ্যানেল সংখ্যা বাড়াতে শিল্পীরা কিন্তু লাভবান হয়েছে। এত চ্যানেল, এত পরিচালক, কিন্তু শিল্পী তো কম। এদিকে আমাদের শিডিউলও মিলছে না। আমরাও বেশি পারিশ্রমিক চাইছি। শিল্পী সংখ্যা যখন বেড়ে যাবে, তখন আমাদের পারিশ্রমিকও কমে যাবে। এটা অর্থনীতির সহজ সূত্র।”

মাসুদ মহিউদ্দিনের ধারাবাহিক ‘নীল নাগরিক’-এ জেনি প্রথমবারের মতো অভিনয় করছেন সাঈদ বাবুর বিপরীতে। তাকে দেখা যাবে বিদেশফেরত এক মেয়ের ভূমিকায়।

এছাড়া সম্প্রতি শেষ করেছেন অম্লান বিশ্বাসের ‘অনন্যা’, মুনতাসির বিপনের ‘কাছাকাছি’ ধারাবাহিকগুলোতে। ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে বেশ কটি এক ঘণ্টার নাটকেও কাজ করেছেন।