কোভিশিল্ড: টিকার দুই ডোজের ব্যবধান বাড়াল ভারত

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-17 13:32:26 BdST

bdnews24
সেরাম ইন্সটিটিউট অব ইনডিয়ায় উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা কোভিশিল্ড বাংলাদেশেও দেওয়া হচ্ছে।

সেরাম ইন্সটিটিউট অব ইনডিয়ায় উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা কোভিশিল্ডের দুই ডোজের মধ্যে ব্যবধান বাড়িয়ে দ্বিগুণ করেছে ভারত।

এতদিন এ টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার ছয় থেকে আট সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হচ্ছিল। নতুন নিয়মে দ্বিতীয় ডোজ নিতে হবে ১২ থেকে ১৬ সপ্তাহের মধ্যে।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের টিকা নিবন্ধন পোর্টাল কোভিড ভ্যাকসিন ইনটেলিজেন্স নেটওয়ার্ক (কোউইন) এ ইতোমধ্যে বিষয়টি যুক্ত করা হয়েছে বলে সোমবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

কোউইনের কর্মকর্তারা বলেছেন, কেউ যদি অনলাইনে আগের নিয়মে কোভিশিল্ডের দ্বিতীয় ডোজের জন্য তারিখ নিয়ে থাকেন, তাকে তা দেওয়া যাবে।

তবে বিভিন্ন রাজ্যে নিবন্ধন পাওয়া অনেককে নতুন নিয়মের কথা বলে টিকাদান কেন্দ্র থেকে ফিরিয়ে দেওয়ার খবর আসছে বলে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে।

ভারত এমন এক সময়ে কোভিশিল্ডের দুই ডোজের ব্যবধান বাড়াল, যখন পর্যাপ্ত ভ্যাকসিনের অভাবে অভাবে তাদের টিকাদান কর্মসূচি দারুণভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত করোনাভাইরাসের টিকা ভারতে উৎপাদন এবং কোভিশিল্ড নামে বিপণন করছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভ্যাকসিন কোম্পানি সেরাম ইন্সটিটিউট অব ইনডিয়া।

তাদের কাছ থেকে কেনা কোভিশিল্ড টিকা দিয়েই এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে গণ টিকাদান চলছে। কিন্তু আগে নিজেদের চাহিদা মেটাতে ভারত সরকার টিকা রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ায় বাংলাদেশকে বিপাকে পড়তে হচ্ছে।

বাংলাদেশে গত ফেব্রুয়ারি মাসে গণ টিকাদানের শুরুতে বলা হয়েছিল কোভিশিল্ডের দুই ডোজ দেওয়া হবে চার সপ্তাহের ব্যবধানে।

কিন্তু পরে সেরাম ইনস্টিটিউট এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ দেয়, এ টিকার দুই ডোজ ৮ থেকে ১২ সপ্তাহের ব্যবধানে নিলে ভালো ফল পাওয়া যায়। বাংলাদেশও তখন দুই ডোজের ব্যববাধন বাড়িয়ে আট সপ্তাহ করা হয়। এখন পর্যন্ত সেই নিয়মেই দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হচ্ছে।