পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ডেঙ্গুতে অগাস্টে মৃত্যু ৩৩, সবচেয়ে বেশি রোগী ভর্তি হাসপাতালে

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-09-01 19:08:22 BdST

bdnews24
ঢাকাসহ সারাদেশেই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫৮ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। ছবি: কাজী সালাহউদ্দিন রাজু

একদিনের ব্যবধানে এইডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত ও মৃত্যু বাড়ার তথ্য দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

গত ২৪ ঘন্টায় এই ভাইরাস জ্বরে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে; এ নিয়ে অগাস্ট মাসে ৩৩ জন মারা গেলেন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে। আর এ বছর মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৫ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম ৬ মাসে এই রোগে কোনো রোগীর মৃত্যু হয়নি। তবে জুলাই থেকে রোগী বাড়ায় গত দুই মাসেই ৪৫ জন মারা গেলেন ডেঙ্গুতে।

অগাস্টের শুরুর দিকে ডেঙ্গুতে শনাক্ত ও মৃত্যু বাড়তে থাকলেও গত কয়েকদিন তা কমে আসছিল। গত তিনদিন কোনো মৃত্যুর তথ্যও দেয়নি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

তবে বুধবার নতুন করে মৃত্যুর তথ্য আসার পাশাপাশি শনাক্ত রোগীও বেড়েছে।

বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৯৫ জন ডেঙ্গু রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে জানিয়েছে অধিদপ্তর। এর একদিন আগে এ সংখ্যা ছিল ২৬৬ জন।

নতুন আক্রান্তদের ২৫০ জনই ঢাকা মহানগরীর, ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছেন আরও ৪৫ জন।

ভারতের এক জেলায় ১০ দিনে ৪৫ শিশুর মৃত্যু, ডেঙ্গু বলে সন্দেহ  

একদিনে আরও ২৬৬ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে  

১০ হাজার ছাড়াল ডেঙ্গু রোগী  

এখন চলছে ডেঙ্গুর ‘ডেনভি-৩’ ধরনের দাপট: বিসিএসআইআর  

ডেঙ্গুর চিকিৎসায় ৬ হাসপাতাল নির্ধারণ

ডেঙ্গু: ঢাকায় সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ গোড়ান-বাসাবো

অগাস্ট মাসে এই মৌসুমের সর্বোচ্চ ৭ হাজার ৬৯৮ জন রোগী ডেঙ্গু নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন। আর চলতি বছর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসেছেন মোট ১০ হাজার ৬৫১ জন ডেঙ্গু রোগী।

অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত আট মাসে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়াদের ৯ হাজার ৪৪৭ জনই সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন। বর্তমানে হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসাধীন আছেন ১ হাজার ১৫৬ জন।

২০১৯ সালে বাংলাদেশে ডেঙ্গু মারাত্মক আকার ধারণ করায় এক লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছিলেন। ওই বছর সবচেয়ে বেশি ১৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

পরের বছর তা অনেকটা কমে আসায় হাসপাতালগুলো ১ হাজার ৪০৫ জন ডেঙ্গু রোগী পেয়েছিল এবং ৯৩ জনের মৃত্যু হয়েছিল।