পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ক্রিকেট বলের ভূত

  • মো. জুনায়েদ ইসলাম, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-08-23 15:02:33 BdST

bdnews24
কোলাজে ব্যবহৃত অলঙ্করণ: মাশরুর রহমান মুহিত, পঞ্চম শ্রেণি, বিএএফ শাহীন কলেজ ঢাকা

নদীর নাম আত্রাই। তার ধারে একটা রাজবাড়ি।

রাজবাড়িটা বেশ পুরনো। এখানে নতুন ভাড়া এসেছে রবিনের পরিবার। রবিন এখন ক্লাস সেভেনে লেখাপড়া করছে। সে বাইরে লাজুক ছেলে হলেও ভেতরে একেবারে চঞ্চল। আজ লাফালাফি করে বাড়ির এটা ভাঙলো, কাল তো অন্যটা।

রবিন চঞ্চল হলেও লেখাপড়ায় বেশ ভালো। সে স্কুলের সেকেন্ড বয়, খেলাধুলার প্রতি তার প্রবল ঝোঁক। সে সবসময় মনে করে তাকে যদি সারাদিন খেলতে দেওয়া হতো তাহলে সে সারাদিন খেলতো। কখনো ক্লান্ত হতো না।

রবিন প্রতিদিন সকালে উঠে প্রাইভেট পড়তে যায় এবং প্রাইভেট শেষ করে এসে খাওয়া-দাওয়া করে মাঠে খেলতে যায়। এখন গ্রীষ্মের ছুটি চলছে, তাই স্কুলও বন্ধ। সে প্রতিদিনের মত আজও মাঠে খেলতে গেল। কিন্তু খেলা শেষ করে তার মনের সাধ মিটলো না।

তাই সে বাসায় ফিরে আবার বারান্দায় ক্রিকেট খেলতে লাগলো। সে দেয়ালে বল ছুড়ে মারছে আর বল ফিরে আসলে ব্যাট দিয়ে বল পেটাচ্ছে। এভাবে সে বল খেলতে লাগল।

কিছুক্ষণ পর রবিনের মা বিরক্ত হয়ে তাকে বকাঝকা করতে লাগল। কিন্তু কে শোনে কার কথা। সে বল খেলেই চলছে। কিন্তু সে জানতে পারল না যে, বাইরে ভূত নিয়ে এক এলাহি কাণ্ড শুরু হয়ে গেছে। সে যখন বল দেয়ালে ছুড়ে মারছিল তখন যে শব্দ তৈরি হচ্ছিল তাতে পাশের বাসার আন্টিরা ভাবছিল হয়তো ভরদুপুরে ভূত শব্দ করছে।

একে তো পুরনো রাজবাড়ি, তার ওপর এই অদ্ভুত শব্দ। দুই এ মিলিয়ে তারা ভূতের শব্দে আতঙ্কিত। তার মা কাপড় কাচতে কাচতে রবিনকে বলছিল যে, তার আন্টিরা ভূতের শব্দে ভয় পাচ্ছে। কথাটা রবিনের বিশ্বাস হচ্ছিল না। সে ভাবল- দুপুরবেলা ভূত, এ কেমন কথা!

রবিন আবারও খেলা শুরু করল। সে বুঝতেও পারলো না যে তার বলের শব্দে অন্যরা ভয়ে মরছে। কিছুক্ষণ পর তার এক আন্টি এসে বুঝতে পারলো যে, আসলে এটা ভূতের শব্দ নয় বরং বলের শব্দ। তখন সবার ভূতের ভয়টা গেল। পাশ থেকে অন্য একজন বলে উঠলো, ‘বাড়ির উপরতলায় যে ভাবি আছেন উনি তো হার্টের রুগি। ভূতের ভয়ে যদি অজ্ঞান হয়ে যেতেন!’ একথা শুনে সবার সেকি হাসি!

কিডস পাতায় বড়দের সঙ্গে শিশু-কিশোররাও লিখতে পারো। নিজের লেখা ছড়া-কবিতা, ছোটগল্প, ভ্রমণকাহিনি, মজার অভিজ্ঞতা, আঁকা ছবি, সম্প্রতি পড়া কোনো বই, বিজ্ঞান, চলচ্চিত্র, খেলাধুলা ও নিজ স্কুল-কলেজের সাংস্কৃতিক খবর যতো ইচ্ছে পাঠাও। ঠিকানা kidz@bdnews24.com। সঙ্গে নিজের নাম-ঠিকানা ও ছবি দিতে ভুলো না!