পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

মাংস খেতে নেই মানা

  • তৃপ্তি গমেজ, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2015-09-23 15:48:29 BdST

bdnews24

নির্দিস্ট পরিমাণে মাংস খাওয়া ক্ষতিকর নয়।

অনেকেই ডায়েট বা শারীরিক নানা সমস্যার কারণে মাংস খেতে চান না। তবে এটা জেনে রাখা ভালো যে মাংস খাওয়া মানেই ডায়েট নষ্ট করা বা শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে যাওয়া নয়।

এই বিষয়ে কথা বলেন বাংলাদেশ গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান ফারাহ মাসুদা।

তিনি বলেন, “সুস্থ সবল মানুষের দৈনিক যে পরিমাণ প্রোটিন ও ক্যালরি প্রয়োজন তা পূরণের জন্য নিয়মত মাংস খাওয়া যেতে পারে তবে তা অবশ্যই হতে হবে পরিমিত।”

মাংসে ভালো পরিমাণে খনিজ লবণ থাকে বিশেষ করে পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, সোডিয়াম। এছাড়াও ক্লোরাইড, বাইকার্বোনেট ও এসিড ফসফেট থাকে। এ সকল লবণ মাংসের চর্বিহীন পেশীতে থাকে। তাপে মাংস যখন সঙ্কুচিত হয় তখন এর থেকে পানি মিশ্রিত নির্যাস বের হয় যার বেশিরভাগে সোডিয়াম থাকে।

প্রতি ১০০ গ্রাম গরুর মাংসে ৬৭ শতাংশ পানি, ১৮০ ক্যালরি, ২১ গ্রাম প্রোটিন, ১৪ গ্রাম চর্বি, ৬ মি.গ্রা ক্যালসিয়াম, ২.৩ মি.গ্রা লৌহ, ০.০৮ মি.গ্রা ভিটামিন বি-১, .০২৬ মি.গ্রা বি-২ ও ৮.২ মি.গ্রা নায়াসিন থাকে।

প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের দৈনিক প্রোটিনের চাহিদা ৫৭ গ্রাম। আর অনায়াশে মাংস থেকে ৩০/৪০ গ্রাম প্রোটিন নিয়মিত গ্রহণ করা যেতে পারে। এর জন্য মাঝারি মাপের দুতিন টুকরা গরুর মাংস প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা যায়। তাই কোরবানির মাংস খেতে খুব একটা দ্বিধাগ্রস্ত না হলেও চলবে।

যাদের নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা রয়েছে তারা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে খাদ্য তালিকা তৈরি করতে পারেন।

ডায়াবেটিস রোগীরা তাদের ডায়াবেটিসের মাত্রাভেদে ভিন্ন ভিন্ন খাদ্য তালিকা মেনে চলেন। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী গরুর বা খাসির মাংস খাওয়া ভালো। তবে কেবল মাত্র প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করতে চাইলে মাঝে মাঝে গরু বা খাসির মাংস খাওয়া যেতে পারে।

সাধারণত হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যাক্তিদের ‘রেড মিট’ খেতে নিষেধ করে থাকেন চিকিৎসকেরা। এক্ষেত্রে কোরবানির আগে একবার নিজ শারীরিক অবস্থা যাচাই করে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী মাংস খেতে পারেন।

ডায়েট ঠিক রাখতে চাইলে ও সুস্থ থাকতে চাইলে কোরবানির ঈদে মাংস খাওয়ার পাশাপাশি বেশি করে সবজি ও সালাদ খেতে হবে। সালাদে লেবু ব্যবহার করুন কারণ তা হজমে সাহায্য করে।

তাছাড়া যাদের উচ্চ রক্তচাপ ও কোলেস্টেরলের সমস্যা আছে তারা মাংস রান্না করার সময় কম তেল ব্যবহার করুন ও প্রয়োজনে মাংস রান্নায় নানা রকম সবজি ব্যবহার করতে পারেন।

অতিরিক্ত প্রোটিন গ্রহণ করলে দেহ মেদবহুল হয়। ফলে উচ্চ রক্তচাপ ও হৃদরোগ দেখা দেয়। তাই একবারে অনেক খাওয়ার থেকে প্রতিদিন অল্প অল্প করে মাংস খেতে পরামর্শ দেন ফারাহ মাসুদা।

পাশাপাশি প্রচুর পানি, শাকসবজি ও ফলমূল খেতেও বলেন তিনি।

মাংস খান অল্প

পেট ভরা রাখতে উদ্ভিজ্জ প্রোটিন

মাংস খান রয়েসয়ে