পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ভালো ঘুমের জন্য করণীয়

  • তানভীর মাহমুদ নিলয়, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2015-12-10 16:05:52 BdST

bdnews24

কিছু নিয়ম মেনে চললে পর্যাপ্ত ও সঠিক ঘুম নিশ্চিত করা সম্ভব।

পর্যাপ্ত ঘুম যেমন দরকার তেমনি প্রয়োজন ভালো ঘুম। কারণ ঘুমানোর মাধ্যমে দেহ ও মন বিশ্রাম নেয়। পাশাপাশি দেহযন্ত্রগুলোও নিজেদের কার্যক্রম সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারে।

স্বাস্থবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে ভালো ঘুম নিশ্চিত করার জন্য কিছু করণীয় উল্লেখ করা হয়।

ঘুমের পরিবেশ তৈরি করুন: ঘুমানোর জন্য চাই সঠিক ঘুমের অনুকূল পরিবেশ। ঘুমানোর কক্ষটি হতে হবে শান্ত, অন্ধকার আর শীতল। বাইরের অপ্রয়োজনীয় শব্দ থেকে রেহাই পেতে, ফ্যান চালু করে দিন, কিংবা আরামদায়ক একটি হেডফোন কানে গুঁজে শুনতে পারেন ধীরলয়ের কোমল কোনো সঙ্গীত।

শোয়ার আগে নিজেকে চমৎকার একটি ঘুমের জন্য প্রস্তুত করুন। যেমন- কুসুম গরম পানিতে স্নান, দাঁত ব্রাশ করা, বিছানা গোছানো, বই পড়া। শোবার বিছানাটি হওয়া উচিত দৃঢ়, কিন্তু বেশি শক্ত নয়।

ঘুমানোর সময় ঠিক রাখুন: প্রতিদিন একই সময় ঘুমানো ও জাগার অভ্যাস তৈরি করুন। এর ফলে দেহঘড়ি নির্দিষ্ট রুটিন তৈরি হয়। তবে ঘুম না এলে জোর করার প্রয়োজন নেই। কোনো একটি কাজে ব্যস্ত হয়ে যান, আপনাআপনিই ঘুম চলে আসবে।

মন শান্ত রাখা: বিক্ষিপ্ত মনের কারণে ঘুমের অভাব হতে পারে। যদি দুশ্চিন্তা করার প্রবণতা থাকে, তাহলে দুশ্চিন্তার বিষয় নিয়ে ভাবার জন্য দিনের কিছুটা সময় আলাদা রাখুন। ইতিবাচক চিন্তা দিয়ে তার মোকাবিলা করুন। এছাড়াও মন শান্ত করার জন্য ধ্যান, শিথিলায়ন, শ্বাসচর্চা বেশ উপকারী।

থাকতে হবে সবল: প্রতিদিন সামান্য শরীরচর্চা; যেমন- হাঁটা কিংবা যোগ ব্যায়াম ভালো ঘুম হওয়ার জন্য উপকারী। তবে ঘুমের ঠিক আগে আগে ব্যায়াম করা ঠিক নয়।

খাবারদাবার ও ক্যাফেইন, অ্যালকোহল, ধূমপানের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখুন: ঘুমের অন্যতম শত্রু হল সিগারেট, অ্যালকোহল ও ক্যাফেইনজাতীয় পানীয়। ঘুমানোর আট থেকে ছয় ঘণ্টা আগে থেকে এসব পরিহার করুন। পেটে ক্ষুধা নিয়ে ঘুমাতে যাওয়া ঠিক নয়। তবে ঘুমাতে যাওয়ার আগে আগে ভরপেট খাওয়াও অনুচিত। বারবার বাথরুমে যাওয়া এড়ানোর জন্য ঘুমানোর আগে পানি কম খাওয়া ভালো।

টেলিভিশন, ট্যাব, স্মার্টফোন ব্যবহার না করা: ঘুমানোর আগে টিভি দেখা, ট্যাব, স্মার্টফোনজাতীয় যন্ত্র ব্যবহার ঘুমানোর পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। এদের পর্দা থেকে বিচ্ছুরিত আলো শুধু মেলাটোনিন’য়ের নিঃসরণকেই বাধা দেয় না পাশাপাশি এসব ডিভাইসের ব্যবহার মনকেও বিক্ষিপ্ত করে।

ছবি: রয়টার্স।