অনিদ্রা থেকে হাঁপানি

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক,, আইএএনএস/বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-02-02 18:21:41 BdST

bdnews24

রাতে ঘুমের সমস্যা হলে, ঘুম না আসলে বা অনিদ্রায় ভুগলে বেশি বয়সে শ্বাসকষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সম্প্রতি নতুন এক গবেষণায় এমনই ফলাফল পাওয়া গেছে।

ধূমপান, স্থূলতা ও বায়ূ দুষণের কারণে পৃথিবীতে প্রায় ত্রিশ কোটি মানুষ শ্বাসকষ্টে ভুগছেন।

এই গবেষণার প্রধান লেখক এবং নরওয়ের নওরোজিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির (এনটিএনইউ) বেন ব্রাম্পটন বলেন, “গবেষণায় দেখা গেছে, যারা দীর্ঘস্থায়ী অনিদ্রায় ভুগছেন তাদের শ্বাসকষ্ট হওয়ার তিনগুন সম্ভাবনা রয়েছে। ঘুম না হওয়ার কারণে শরীরে এমন সব পরিবর্তন হতে পারে যা থেকে দেহের শ্বাস প্রশ্বাস ব্যবস্থায় ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে।”

গবেষকরা আরও জানান, সম্প্রতি দেখা গেছে বিষণ্নতা ও মানসিক চাপের লক্ষণও বেশি বয়সে অ্যাসমা হওয়ার সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে।

ইউরোপিয়ান রেস্পিরাটরি জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণার জন্য গবেষকরা নরওয়ের ২০ থেকে ৬৫ বছর বয়সি ১৭ হাজার ৯৭৩ জন অংশগ্রহণকারীর বিভিন্ন তথ্যের সংখ্যাভিত্তিক পর্যালোচনা করেন।

ফলাফলে দেখা গেছে বিগত মাস পর্যন্ত অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে যারা ‘প্রায়ই’ অনিদ্রায় ভুগেছেন তাদের শতকার ৬৫ ভাগ এবং ‘প্রায় প্রতি রাতে’ যাদের ঘুমের সমস্যা হয়েছে তাদের পরবর্তী ১১ বছরের মধ্যে শতকরা ১০৮ ভাগ শ্বাসকষ্টে ভোগার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।   

পাশাপাশি অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে যারা জানিয়েছে, ‘প্রায়’ বা ‘প্রায় প্রতি রাতে’ ঘুমাতে সক্ষম না হয়েও তাড়াতাড়ি বিছানা ছেড়েছেন তাদের যথাক্রমে শতকরা ৯২ ভাগ ও ৩৬ ভাগ হাঁপানি হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।

আর যারা সপ্তাহে একের অধিকবার ভালো মানের ঘুমান দিতে পারেননি তাদের শতকরা ৯৪ ভাগ হাঁপানি হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।

এনটিএনইউ’র লিন বিয়াটে স্ট্রান্ড পরামর্শ দেন, “যেহেতু অনিদ্রা সারানোর মতো ব্যবস্থা রয়েছে, তাই এই বিষয়ে গুরুত্ব দিলে হাঁপানির প্রতিরোধের জন্য উপকারী হতে পারে।”

ছবি: রয়টার্স।