২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

শরীরচর্চায় পর্যাপ্ত তরল গ্রহণ

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক,, আইএএনএস/বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2018-01-18 14:59:31 BdST

bdnews24

শরীরচর্চার আগে, শরীরচর্চার সময় ও পরে পানি পান করে নিজেকে আর্দ্র রাখা উচিত। অন্যথায় এটা পানি স্বল্পতা, দুর্বলতা ও কর্ম ক্ষমতা কমিয়ে দিতে পারে।

ভারতীয় ক্রিড়াচিকিৎসক আশিষ কন্ট্রাক্টর- যিনি টাটা মুম্বাই ম্যারাথন ২০১৮’র সহকারি ‘হাইড্রেইশন পার্টনার’, এবং ‘বিজয় আল্ভা’স ফিটনেস একাডেমি’র প্রতিষ্ঠাতা বিজয় আলভা ব্যায়ামের সময় শরীর আর্দ্র রাখার বিষয়ে কিছু পরামর্শ দেন।

শরীরচর্চা করার আগে পানি পান: ব্যায়ামের জন্য শরীরে পর্যাপ্ত পানির ভারসাম্যতা রক্ষার প্রয়োজন। পানির বেশি থাকা বা  ঘাটতি দুটাই ক্ষতিকারক। মাঝেমধ্যে ক্রিড়াবিদদের মধ্যে খেলা শুরু হওয়ার আগে অতিরিক্ত পানি গ্রহণের দিকে ঝোঁক দেখা যায়, যা এড়িয়ে চলা উচিত। কেননা এতে শরীর স্ফীত হয়ে যায়। সবচেয়ে ভালো উপায় হল খেলা শুরু হওয়ার দুতিন ঘণ্টা আগে ৫০০ মি.লি. পানি পান করা। আর ১৫ মিনিট আগে ২৫০ মি.লি. পানি পান করা।

শরীরচর্চা করার সময় পানি পান: শরীরচর্চার সময় ঘামের কারণে যে পানি বের হয়ে যায় তা পূরণ করতে শরীরচর্চার সময়ই পর্যাপ্ত তরল পান করা একটা ভালো পরিকল্পনা। তবে মনে রাখতে হবে, ঘামের পরিমাণ আবহাওয়ার উপরে নির্ভর করে। তাছাড়া যদি নিজের ঘামের মাত্রা সম্পর্কে না জেনে থাকেন তাহলে সবচেয়ে ভালো হয় যদি শরীরচর্চার ওই এক ঘণ্টায় আধ থেকে এক লিটার তরল পান করা। এই পরিমাণকে চার ভাগে ভাগ করে নিয়ে প্রতি ১৫ মিনিট পর পর তা পান করতে পারেন।

যা পান করবেন: এক ঘন্টার কম সময়ের শরীরচর্চার জন্য সাধারণ পানি পান করাই সবচেয়ে ভালো। তবে এক ঘন্টার বেশি সময় ধরে শরীরচর্চা করতে প্রায় প্রতি ঘন্টায় ৩০ থেকে ৬০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেইটের প্রয়োজন। আপনার পানীয়র সঙ্গে ছয় থেকে আট শতাংশ কার্বোহাইড্রেইট মিশিয়ে এই চাহিদা পূরণ করতে পারেন। অথবা আলাদাভাবেও গ্রহণ করতে পারেন।

দীর্ঘ সময়ের জন্য ব্যায়াম যেমন- ‘ম্যারাথন’ বা ‘হাফ ম্যারাথন’ করার সময় তরলের ঘাটতি পূরণ করতে সামান্য সোডিয়াম ও পটাশিয়াম থাকা আবশ্যক। এই মিশ্রিত তরল ‘স্পোর্টস ড্রিংক্স’ থেকে পেতে পারেন অথবা নিজেই নিজের স্পোর্টস ড্রিংক্স তৈরি করে নিতে পারেন, যেমন- লেবুর রস, চিনি ও সামান্য লবণ দিয়ে তৈরি করা পানীয়।

শরীরচর্চার পরের পানীয়: দীর্ঘসময় শরীরচর্চা করার পরে অধিকাংশের দেহেই পানি স্বল্পতা দেখা দেয়, তাই পরবর্তী দুই ঘন্টার মধ্যে তরলের ঘাটতি পূরণ করা প্রয়োজন। ঘাম ও মূত্রের কারণে পানি ঘাটতি চলতেই থাকে। তাই প্রতিবার ঘাম হওয়ার পরে ১.২৫ থেকে ১.৫ লিটার তরল পান করা জরুরি।   

পরিমাণ গুরুত্বপূর্ণ: দীর্ঘসময় দৌড়াবে এমন ব্যক্তির জন্য দৌড় শুরু করার দুই ঘণ্টা আগে ১৬০ থেকে ২০০ মি.লি পানি পান করা উচিত। আর দৌড়ানোর সময় প্রতি ১৫ থেকে ২০ মিনিট পরপর সামান্য তরল গ্রহণ করা উচিত। দৌড়ানোর পরে ঘামের কারণে পানির ঘাটতি পূরণ করতে শরীর আর্দ্র রাখা প্রয়োজন।    

শরীর আর্দ্র রাখার অর্থ হল পেশির টান এড়ানো ও শক্তির মাত্রা বাড়ানো যা ভালো কর্ম-দক্ষতার জন্য প্রয়োজন।

ছবি: রয়টার্স।

আরও পড়ুন

ব্যায়াম নিয়ে ভুল ধারণা  

অতিরিক্ত ব্যায়ামের জটিলতা  

পানি পানের নিয়ম  

বেশি পানি পানের কুফল

পানি পানেও ওজন কমে  


ট্যাগ:  লাইফস্টাইল  জেনে রাখুন