পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ত্বকের সমস্যায় পুদিনা

  • লাইফস্টাইলডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-02-13 19:10:25 BdST

bdnews24

ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করা ছাড়াও ত্বকের নানান সমস্যা সমাধানে পুদিনা পাতা ব্যবহার করা যায়।

রূপচর্চা-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে ত্বকের সমস্যায় পুদিনা-পাতার নানান ব্যবহার সম্পর্কে জানানো হল। 

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য কলা ও পুদিনা

দুই টেবিল-চামচ চটকানো কলা ও ১০,১২টি পুদিনা পাতা।

পদ্ধতি: কলা ও পুদিনা পাতা পিষে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। প্যাকটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫ থেকে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। ভালো ফলাফলের জন্য সপ্তাহে দুবার ব্যবহার করুন।

উপকারিতা: কলা ভিটামিন এ, বি, সি এবং ই সমৃদ্ধ। এতে রয়েছে পটাশিয়াম, ল্যাক্টিক, অ্যামাইনো অ্যাসিড এবং জিংক। এই তিন খনিজের সমন্বয়ে ত্বক আর্দ্র ও মসৃণ হয়। ক্ষয়, ব্রণ, ব্রণের দাগ দূর হয়, কোষকলা বৃদ্ধি পায়, অতি বেগুনি রশ্মির বিরুদ্ধে কাজ করে এবং ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বাড়ায়। পুদিনার সমন্বয়ে কলা ত্বক সুন্দর রাখে এবং উজ্জ্বলতা বাড়ে।

ব্রণ দূর করতে লেবু ও পুদিনা

উপকরণ: ১০,১২টি পুদিনা পাতা। এক টেবিল চামচ লেবুর রস।

পদ্ধতি: পুদিনা-পাতা ছেঁচে লেবুর রস মেশান। ব্রণ, ব্রণ আক্রান্ত স্থান, ব্রণের দাগের ওপর লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে তা ধুয়ে নিন। সপ্তাহে একবার এটা ব্যবহার করুন। 

উপকারিতা: পুদিনার স্যালিসাইলিক অ্যাসিড ও লেবুর রসের ব্লিচিং উপাদান ব্রণের দাগ দূর করে। লেবুতে ভিটামিন সি থাকায় তা ত্বক সুন্দর রাখতে সাহায্য করে।

এক্সফলিয়েটের জন্য শসা ও পুদিনা

উপকরণ: এক টেবিল চামচ ওটস। ১০,১২টি পুদিনা পাতা। এক টেবিল-চামচ মধু। দুই টেবিল-চামচ দুধ। আধা ইঞ্চি শসার টুকরা।

পদ্ধতি: পুদিনা পাতার সঙ্গে শসা-কুচি ছেঁচে নিন। সব উপাদান একসঙ্গে মেশান। মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে সাত মিনিট অপেক্ষা করে গোলাকারভাবে হালকা চাপে স্ক্রাব বা ঘষে নিন। এতে মৃত কোষ দূর হবে। দুতিন মিনিট স্ক্রাব করার পরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। সপ্তাহে দুতিনবার এই প্যাক ব্যবহার করুন। 

উপকারিতা: শুষ্ক ও সংবেদনশীল ত্বকের জন্য এই স্ক্রাব সবচেয়ে ভালো। এই স্ক্রাব মুখে লাগিয়ে হালকাভাবে মালিশ করুন। এতে লোমকূপ পরিষ্কার হবে ও মৃৎ কোষ দূর হবে। ফলে ত্বক হবে মসৃণ, উজ্জ্বল এবং স্বাস্থ্যকর হবে।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে মুলতানি মাটি ও পুদিনা

উপকরণ: এক টেবিল-চামচ মুলতানি মাটি। ১০,১২টি পুদিনা-পাতা। আধা টেবিল-চামচ মধু। আধা টেবিল-চামচ টক দই।

পদ্ধতি: পুদিনা-পাতা বেটে তাতে মুলতানি মাটি, মধু ও দই মেশান। ঘন মিশ্রণ হওয়া পর্যন্ত মেশাতে থাকুন। মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার এটা ব্যবহার করুন।

উপকারিতা: তেল নিয়ন্ত্রণের জন্য মুলতানি মাটি সবচেয়ে ভালো। পুদিনা পাতা মেশানোর ফলে এতে খনিজ উপাদান যোগ হয় এবং ত্বকের বাড়তি তেল দূর হয়ে ভেতর থেকে পরিষ্কার হয়। মধু ও দই একসঙ্গে চিচিটেভাব ছাড়াই ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে।

শুষ্ক ত্বকের জন্য পুদিনা ও টক দই

উপকরণ: দুই টেবিল-চামচ টক দই। এক টেবিল-চামচ মূলতানি মাটি। ১০,১২টি পুদিনা পাতা।

পদ্ধতি: পুদিনা পাতা বেটে তাতে দই ও মুলতানি মাটি যোগ করুন। ঘন পেস্ট হওয়া পর্যন্ত মেশান। প্যাকটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার ব্যবহার করুন।

উপকারিতা: দই ত্বক আর্দ্র রাখে এবং খনিজ উপাদান সমৃদ্ধ মুলতানি মাটি ত্বকের গঠন সুন্দর রাখে। ত্বক মসৃণ, আর্দ্র ও কোমল রাখতে এই ফেইস প্যাক কার্যকর।

ছবির মডেল: আশা। আলোকচিত্র: রাইনা মাহমুদ। বিন্যাস ও পরিকল্পনা: আলি আফজাল নিকোলাস। সৌজন্যে: ত্রয়ী ফটোগ্রাফি স্টুডিও।

আরও পড়ুন

ত্বকের যত্নে বেইকিং সোডা  

মিশ্র ত্বকের যত্ন  

ত্বকের যত্নে যে তিনটি ধাপ এড়ানো ঠিক নয়  

ত্বক থাকুক বলিরেখা মুক্ত