১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

বাবার জন্য স্বাস্থ্যকর উপহার

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-06-16 17:44:31 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স।

বিশ্ব বাবা দিবসে উপহার হিসেবে বেছে নিন বাবার সুস্বাস্থ্য।

নিজের শরীর স্বাস্থ্যের কথা চিন্তা না করে প্রতিনিয়ত পরিবারের সুখ-স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য ছুটে চলেছেন প্রতিটি বাবা। তাই বাবা দিবসে তাকে যদি এমন কিছু দেওয়া যায় যা তাকে স্বাস্থ্যকর জীবন পেতে সাহায্য করবে তাহলে তো ভালোই হয়। এমনকিছু উপহারের নিয়ে আজকের আয়োজন।

কর্পূরের বোতল: শরীর সুস্থ্য রাখার জন্য পর্যাপ্ত পানি পান করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর যারা সারাদিন বাইরে কাজে ব্যস্ত থাকেন তাদের চাই ভালোমানের একটি পানির বোতল। তাই কর্মরত বাবার জন্য উপহার হিসেবে বেছে নিতে পারেন কর্পূরের পানির বোতল। কর্পূরযুক্ত পানির পাত্র পানির সকল পুষ্টি উপাদান বের করে আনে। পাশাপাশি কর্পূরে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট পানির সঙ্গে মিশে তা স্বাস্থ্যকর করে তোলে এবং সংক্রমনের বিরুদ্ধে লড়াই করায় সেই পানি আরও কার্যকরী হয়ে উঠে।

ফিটনেস ব্যান্ড: স্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা সম্পর্কে বাবারা খুব একটা সচেতন নন। নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতেও তাদের অনিহা উল্লেখযোগ্য। এক্ষেত্রে বাবার স্বাস্থ্যের দিকে নজর রাখতে কিংবা তাকে সচেতন করতে কাজে আসতে পারে ফিটনেস ট্র্যাকার। বাজারে বিভিন্ন দামের, বিভিন্ন ধরনের, নানাবিধ সুবিধা সংবলিত ফিটনেস ট্র্যাকার পাওয়া যায়। বাজেট ভালো থাকলে স্মার্টওয়াচও বেছে নিতে পারেন। এতে ভালো একটি ঘড়িও উপহার দেওয়া হবে।

শরীরচর্চার সরঞ্জাম: বাবা যদি শরীরচর্চায় আগ্রহী হন তবে তাকে সেই কাজের একটি ভালো সরঞ্জাম উপহার দিতে পারেন। এজন্য আপনার বাবা যেধরনের ব্যায়াম করেন সেই ব্যায়ামে সহায়তা করবে এমন সরঞ্জাম বেছে নিতে হবে। ‘ট্রেডমিল’, ‘ইলিপটিকাল ট্রেইনার’, ‘ফোম রোলার’, যোগ ব্যায়ামের মাদুর ইত্যাদি হতে পারে চমৎকার পছন্দ। ভালোমানের শরীরচর্চার পোশাকও উপহার দিতে পারেন।

সানস্ক্রিন: সারাদিন রোদে ঘুরে বেড়ানো আপনার বাবা হয়ত জানেনই না যে রোদে পোড়া থেকে বাঁচতে সানস্ক্রিন নামক একটি প্রসাধনী আছে। আর জানলেও ত্বক নিয়ে মাথা ঘামানোর সময় তো তার নেই। তবে সন্তান হিসেবে বাবার ত্বকের সুরক্ষার জন্য সামান্য সানস্ক্রিনও বাবার মন জয় করে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট। বাংলাদেশের আবহাওয়ার জন্য এসপিএফ ৫০ বা তারও বেশি মানের সানস্ক্রিন কিনতে হবে। সঙ্গে ‘ইউভিভি’ রশ্মি থেকে সুরক্ষা দেয় এমন গুন থাকলে আরও ভালো। 

ঘুমানোর অনুসঙ্গ: বাবা দিবস হোক আর যাই হোক প্রতিটি বাবারই অধিকার আছে নির্ভেজাল বিশ্রামের। এজন্য ভালোমানের বালিশ, ম্যাট্রেস কিনতে পারেন। বালিশের ক্ষেত্রে ‘মেমরি ফোম পিলো’ আদর্শ, কারণ এর বিশেষ আকার মাথা ও ঘাড়ের স্বাভাবিক বাঁকের বিবেচনায় তৈরি। ফলে ঘুমানোর সময় ঘাড় ও মেরুদন্ডের উপর চাপ কম পড়ে। বাবার পিঠ ব্যথার সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করে ‘মেডিকেটেড ম্যাট্রেস’য়ের কথা ভাবতে পারেন। 

জুতা: সৌখিন না হলে বাবারা জুতার দিকে নজর দেন না বললেই চলে। তবে বয়স বাড়ার সঙ্গে ভালোমানের একজোড়া জুতা আপনার বাবার জন্য অত্যন্ত জরুরি। সকালে হাঁটা কিংবা দৌড়ানো, সারাদিন কাজের প্রয়োজনে, বাসার বাজার করতে ইত্যাদি সময়ে বাবার পায়ে একজোড়া ভালো জুতা বা স্যান্ডেল তাকে যেমন আরাম দেবে, তেমনি দীর্ঘমেয়াদে বিভিন্ন শারীরিক জটিলতা থেকেও বাঁচাবে। আর নিজের জন্য দাম দিয়ে ভালোমানের জুতা কেনার কাজটা আপনার বাবা নিজে কখনই করবেন না, তাই এই দায়িত্ব আপনাকেই নিতে হবে।

বায়ু পরিশোধক গাছ: শুধু বাবা নয় পুরো পরিবারই উপকৃত হবে এই উপহার থেকে। দূষণ আমাদের চারপাশে বিদ্যমান, এমন ঘরের বাতাসও নিরাপদ নয়। তাই ঘরের বারান্দায়, জানালার পাশে যেখানেই সুযোগ আছে সেখানেই বায়ু পরিাশোধন করে এমন গাছ রাখতে পারেন। অ্যালোভেরা, ‘স্নেক প্ল্যান্ট’, ‘চেরিস্যানথেমানস’, বাঁশ, ‘ইংলিশ আইভি’ ইত্যাদি এমন গাছের মধ্যে উল্লেখযোগ্য। আর আপনার উপহার থেকে হয়ত আপনার বাবার মাঝে বাগান করার শখ জেগে উঠতে পারে। অবসর প্রাপ্ত বাবাদের জন্য সময় কাটানোর দারুণ একটি উপায় বাগান করা।

আরও পড়ুন

বিশ্ব বাবা দিবস  


ট্যাগ:  জেনে রাখুন