২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

ডিম বেশি সিদ্ধ হলে যা হয়

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-07-13 17:48:46 BdST

bdnews24

বেশি সিদ্ধ হওয়া ডিম খাওয়া হতে পারে ঝুঁকিপূর্ণ।

ডিম সিদ্ধ করতে গিয়ে ভুলে যাওয়ার ঘটনা প্রায় সবার জীবনে একবার হলেও ঘটেছে। ফলে ডিম বেশি সিদ্ধ হয়ে ফেটে যায়। অনেক শক্তও হয়।

তবে তাতে কি যায় আসে, আমরা সেটা পেটে চালান করে দেই অনায়াসে।

পুষ্টিবিজ্ঞানের তথ্যানুসারে স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে বেশি সিদ্ধ ডিম খাওয়া কেনো উচিত নয় সে বিষয়ে জানানো হল।

কী হয়?

ডিম সিদ্ধ করলে এর সাদা অংশ দিয়ে ‘হাইড্রোজেন সালফাইড’ বিষাক্ত গ্যাস নির্গত হয়। বেশি সেদ্ধ করলে এই গ্যাসের মাত্রা বেড়ে যায়। খেয়াল করলে দেখবেন অতি সিদ্ধ ডিমের কুসুমের গায়ে থাকে সবুজ রংয়ের আবরণ, যা ওই ডিম না খাওয়ারও সংকেত।

কেন হয় এমনটা?

‘হাইড্রোজেন সালফাইড’য়ের উৎপত্তি হয় ডিমের সাদা অংশ থেকে। ডিমের সাদা অংশে থাকা প্রোটিনে সালফার থাকে যা পানির হাইড্রোজেনের সঙ্গে মিশে এই বিষাক্ত গ্যাস তৈরি করে। ডিমের বাইরের অংশ যত গরম হতে থাকে, এই গ্যাস ততই ডিমের ভেতরের দিকে প্রবেশ করতে থাকে এবং একসময় কুসুমে গিয়ে মিশে।

ডিমের কুসুমে থাকে আয়রন। হাইড্রোজেন সালফাইড এই আয়রনের সঙ্গে মিশে সৃষ্টি হয় আয়রন সালফাইড। আর এটাই ডিমের কুসুমের বাইরে সবুজ আবরণ তৈরি করে। অর্থাৎ যত বেশি ডিম সিদ্ধ করা হবে, সবুজ আবরণ ততই পুরু হতে থাকবে।

আর এজন্যই ডিম সিদ্ধ করার পর পরই ঠাণ্ডা পানিতে ডুবিয়ে রাখতে বলা হয় যাতে তা দ্রুত শীতল হয়ে যায়। এর কারণ হল চুলা থেকে নামানোর পরও ডিমে থেকে যাওয়া তাপের কারণে যেন অতিরিক্ত সিদ্ধ না হয়।

বেশি সিদ্ধ হওয়া ডিম খেলে যা হয়

এখন পর্যন্ত সিদ্ধ ডিম খাওয়ার কারণে কারও শারীরিক অবস্থার অবনতির খবর শোনা যায়নি। তবে সাবধান থাকা ভালো। যদিও এই তথ্য চিকিৎসকের পরামর্শের বিকল্প হতে পারে না।

অতিরিক্ত সিদ্ধ করা ডিমের এই গ্যাস বিষাক্ত যা মানুষের শরীরে বিষক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।

তাই ডিম যাতে বেশি সিদ্ধ না হয় সেদিকে নজর রাখাই ভালো।

আরও পড়ুন

ডিম রান্নার স্বাস্থ্যকর পন্থা  

ডিমের ভিন্ন ব্যবহার  

ডিম সমাচার  

ফ্রিজের দরজায় ডিম রাখা ঠিক না  


ট্যাগ:  লাইফস্টাইল  খাদ্য ও পুষ্টি