ভিটামিন ডি’র অভাব বোঝার উপায়

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-03 13:21:37 BdST

bdnews24

যদি লক্ষণগুলো মিলে যায় তবে ভিটামিন ডি’য়ের মাত্রা পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া উচিত হবে।

অন্যান্য সকল পুষ্টি ‍উপাদানের মতো ভিটামিন ডি’ও আমাদের শরীরের জন্য জরুরি। এই ভিটামিনের সবচাইতে বড় উৎস হল সূর্যালোক এবং শরীরের প্রতিটি কোষেই ভিটামিন ডি গ্রহনকারী গ্রন্থি বিদ্যমান। এছাড়াও ভোজ্য উৎস যেমন- মাছ ও দুগ্ধজাত পণ্যেও এই ভিটামিন মেলে।

চিকিৎসাবিজ্ঞানের তথ্যানুসারে ভিটামিন ডি তৈরি হয় কোলেস্টেরল থেকে, যখন ত্বক সূর্যের আলোর সংস্পর্শে আসে। হাড়, দাঁত ও পেশি সুস্থ রাখতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান এই ভিটামিন। তারপরও এর গুরুত্ব অবহেলিত রয়ে যায়। একারণেই বিশ্বব্যাপি প্রায় ১০০ কোটি মানুষ ভুগছে ভিটামিন ডি’য়ের অভাবে। আর এর ‍লক্ষণ বোঝাও সহজ নয়।

তাই স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এবিষয়ক প্রতিবেদন অবলম্বনে জানানো হল কীভাবে বোঝা যাবে ভিটামিন ডি’য়ের অভাবজনীত উপসর্গ।

অবসাদ: ভিটামিন ডি’য়ের অভাবজনীত উপসর্গের মধ্যে সচরাচর যা দেখা যায় তা হল অবসাদ, ক্লান্তি। তাই স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস এবং পর্যাপ্ত ঘুমানোর পরও যদি ক্লান্তি অনুভূত হয় তবে বুঝতে হবে ভিটামিন ডি’য়ের মাত্রা পরীক্ষা করানোর সময় এসেছে। ‘স্কেলেটাল মাসল’য়ের স্বাভাবিক কার্যাবলী অক্ষুণ্ন রাখার জন্য ভিটামিন ডি জরুরি একটি উপাদান।

হাড়জনীত ব্যথা: শরীরে পর্যাপ্ত ক্যালসিয়াম শোষণের জন্য চাই ভিটামিন ডি। আর এভাবেই শরীরের হাড়, পেশি ও দাঁত স্বাস্থ্যবান রাখে ভিটামিন ডি। তাই প্রায়শই পিঠ ব্যথা বা পেশিতে ব্যথা দেখা দিলে হয়ত আপনার ভিটামিন ডি’র অভাব দেখা দিয়েছে। এই পুষ্টি উপাদানের অভাবজনীত ব্যথা দীর্ঘমেয়াদীও হয়ে উঠতে পারে।

ক্ষত সারতে বিলম্ব: শরীরে ভিটামিন ডি’র অভাব থাকলে ক্ষত সারতে স্বাভাবিকের চাইতে বেশি সময় লাগে। প্রদাহ ও সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়তেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে এই ভিটামিন। বিশেষজ্ঞদের মতে, যাদের ভিটামিন ডি’র অভাব আশঙ্কাজনক মাত্রায় পৌঁছে গেছে তাদের প্রদাহের শিকার হওয়ার আশঙ্কা বেশি, যা ক্ষত সেরে উঠতে বাধা দেয়।

চুল পড়া: অকালে চুল হারানোর পেছনে রয়েছে নানান কারণ। যার মধ্যে অন্যতম হল ভিটামিন ডি’র অভাব। চুলের ‘ফলিকল’কে উজ্জীবিত করে ভিটামিন ডি। তাই এর অভাবে চুলের মান নষ্ট হয়, চুল পড়ে যায়। ‘অ্যালোপেসিয়া অ্যারিয়েটা’ যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাজনীত একটি রোগ, এর পেছনেও ভিটামিন ডি’র অভাবের দায় রয়েছে।

বিষণ্নতা: মানসিক অবস্থার নিয়ন্ত্রণেও ভূমিকা আছে ভিটামিন ডি’য়ের। তাই মন খারাপ থেকে প্রফুল্ল ভাব আনতে রোদ পোহাতে পারেন। যারা হতাশাগ্রস্ত তাদেরকেও রোদ পোহানোর পরামর্শ দেওয়া হয়।

ছবি: রয়টার্স।

আরও পড়ুন

ভিটামিনের অভাব বোঝার উপায়  

ভিটামিন সি’য়ের অভাব মেটাতে  

ত্বকের যত্নে ভিটামিন ই  


ট্যাগ:  খাদ্য ও পুষ্টি  লাইফস্টাইল