বিশেষ ধরনের মাইগ্রেইন’য়ের লক্ষণ

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-03 21:44:53 BdST

bdnews24

‘অকিউলার মাইগ্রেইন’য়ের লক্ষণ হতে পারে আলোর ঝলক এবং অন্ধকার ছোপ দেখা।

যার ‘মাইগ্রেইন’ আছে সেই জানে এর যন্ত্রণা কতটা তীব্র। সাধারণত ‘মাইগ্রেইন’য়ের সমস্যার কারণে হওয়া ব্যথা হয় মাথার একপাশে। দপদপানি এই ব্যথা দিনের সব কাজ নষ্ট করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

তবে সব ‘মাইগ্রেইন’য়ের সঙ্গে মাথাব্যথা দেখা দেয় না। অনেকসময় ব্যথা না থাকলেও উপসর্গ দেখা দেয় দৃষ্টিশক্তিতে সমস্যা সৃষ্টির মাধ্যমে।

‘অকিউলার মাইগ্রেইন’ বেশ দুর্লভ শারীরিক সমস্যা। এর কারণে রোগী চোখে আলোর ঝলকানি দেখে, সরলরেখাকে বাঁকা মনে হয়, চোখের সামনে রঙিন ছোপ দেখে। অনেকের কিছু সময়ের জন্য এক চোখ সাময়িক কিংবা পুরোপুরি দৃষ্টিশক্তি হারায়। পড়তে, লিখতে এবং অন্যান্য কাজে সমস্যা হয়। ‘রেটিনাল মাইগ্রেইন’ ভেবে অনেকেই ভুল বোঝেন এই ‘অকিউলার মাইগ্রেইন’কে।

চিকিৎসাবিজ্ঞানের আলোকে স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে জানানো হল বিস্তারিত।

‘মাইগ্রেইন’য়ের সমস্যার আক্রান্ত মানুষ মাথাব্যথা শুরু হওয়ার ২০ থেকে ৩০ মিনিট আগেই পূর্বাভাস পেতে শুরু করেন। হাত কিংবা চেহারা অবশ বোধ করা, মাথা ঘোরানো, স্পর্শ, স্বাদ ও ঘ্রাণ বোধ বিশৃঙ্খল মনে হওয়া, চোখের সামনে অন্ধকার ছোপ দেখা, আঁকাবাঁকা রেখা দেখা ইত্যাদি উপসর্গ দেখা দেয় এসময়।

১০ থেকে ৬০ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে এই সমস্যাগুলো এবং চোখের দৃষ্টি সীমানার প্রায় অর্ধেকটা জুড়ে থাকে সমস্যাগুলো। একেই বলা হয় ‘অপথালমিক মাইগ্রেইনস’।

‘অকিউলার মাইগ্রেইন’ মস্তিষ্কের পেছন থেকে সৃষ্টি হয় শক্তি তরঙ্গ এবং তা ধীরে সামনের দিকে এগোতে থাকে। তীব্র এই শক্তি তরঙ্গ যখন সামনে আসতে থাকে তখন তার শক্তির মাত্রা অনেক বেশি থাকে, যে কারণে চোখের সামনে রঙিন ছোপ দেখা যায়। আবার একই কারণে কিছু সময় পর শক্তির অভাব দেখা দেয়, ফলে অন্ধকার ছোপ দেখা যায়।

কারণ

বংশগতভাবে এই রোগ ছড়িয়ে পড়তে পারে।

ইস্ট্রোজেন হরমোনের মাত্রার সঙ্গে ‘মাইগ্রেইন’য়ের সম্পর্ক রয়েছে। এই হরমোন মস্তিষ্কে রাসায়নিক উপাদানের মাত্রা এবং ব্যথার তীব্রতা নিয়ন্ত্রণ করে। তাই হরমোনের তারতম্যের কারণেও এধরণের ‘মাইগ্রেইন’ দেখা দিতে পারে।

‘রেটিনা’ বা অক্ষিপটের পেছনে থাকা রক্তনালীতে ‘স্প্যাজম’ বা খিঁচুনি হলেও এই সমস্যা দেখা দিতে পারে।

চিকিৎসা

‘অকিউলার মাইগ্রেইন’য়ের বর্ণনা শুনে একে অত্যন্ত ভয়ঙ্কর মনে হলেও তা খুব গুরুতর নয়, চিকিৎসাযোগ্য। উপসর্গ দেখলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ছবি: রয়টার্স।

আরও পড়ুন

জেনে রাখুন মাথাব্যথার ধরন  

মাইগ্রেইন থেকে মুক্তি  

মাইগ্রেইনের ব্যথা দূরে রাখার খাবার  


ট্যাগ:  দেহঘড়ি