প্রতিদিন ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ ব্যবহার করলে যা হয়

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-08 14:30:43 BdST

bdnews24

‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ রাসায়নিক দ্রবণ। এর অতিরিক্ত ব্যবহারের ক্ষতিকর দিকও আছে।

নতুন করোনাভাইরাসের প্রকোপে ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ চাহিদা বেড়েছে। ঘন ঘন সাবান দিয়ে হাত ধোয়া আর সেটা সম্ভব না হলে ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ ব্যবহারই এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে আমাদের সবচাইতে কার্যকর প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা।

করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হলে ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ অবশ্যই নুন্যতম ৬০ শতাংশ অ্যালকোহল থাকতে হবে। স্বাস্থ্যসেবায় সংশ্লিষ্ট সবাই ঘন ঘন এই রাসায়নিক দ্রবণ ব্যবহার করতে বলছেন।

সাবান দিয়ে হাত দিয়ে হাত ধোয়ার বিপরীতে ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ ব্যবহার সহজ। তবে যেহেতু এটি একটি রাসায়নিক দ্রবণ, তাই এর অতিরিক্ত ব্যবহারের ক্ষতিকর দিকও আছে।

স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনের আলোকে জানানো হল এই বিষয়ে বিস্তারিত।

‘মাইক্রোবায়োম’য়ের ক্ষতি: ব্যাক্টেরিয়া ধ্বংস করতে ‘স্যানিটাইজার’ অত্যন্ত কার্যকর একটি উপাদান। তবে শরীরের জন্য উপকারী ব্যাক্টেরিয়াও ধ্বংস করে ফেলে এটি। ফলে শরীরের বিভিন্ন প্রক্রিয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্টেরিয়ার মাত্রায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে। এর সমাধান একটাই, তখনই এই রাসায়নিক দ্রবণ ব্যবহার করতে হবে যখন সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার সুযোগ নেই।

ব্যাক্টেরিয়াকে শক্তিশালী করা: যুক্তরাষ্ট্রের সিডিসি’র মতে, ব্যাক্টেরিয়ানাশক ‘স্যানিটাইজার’য়ের ব্যবহার ব্যাক্টেরিয়াকে ওই দ্রবণের প্রভাব দমিয়ে দেওয়ার মতো শক্তিশালী করে তুলতে পারে। তাই সাবান হাতের কাছে না থাকলেই কেবল ‘স্যানিটাইজার’ হাতে নিতে হবে, অন্যথায় নয়।

ধুলা ও ময়লা তাড়াতে কার্যকর নয়: হাতে দৃশ্যমান ময়লা, ধুলা, কালি ইত্যাদি পরিষ্কার করতে ‘হ্যান্ড স্যানিজার’ কোনো কাজে আসে না। সে পরিস্থিতিতে জীবাণু ধ্বংস করতেও রাসায়নিক দ্রবণটির কার্যক্ষমতা কমে যায়। ময়লার ঝুড়ি, ঘর পরিষ্কার, শিশুর ‘ডায়াপার’ পাল্টানো ইত্যাদির পরও ‘স্যানিটাইজার’ কোনো কাজে আসবে না।

হাত শুষ্ক হয়ে যাওয়া: যারা ঘন ঘন ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ ব্যবহার করছেন তারা নিশ্চয়ই খেয়াল করছেন হাত শুষ্ক হয়ে যাচ্ছে। কারণ হল এতে থাকা অ্যালকোহল। এই সমস্যা থেকে বাঁচার জন্য নিয়মিত ময়েশ্চরাইজার ব্যবহার করতে হবে।

অ্যালকোহল বিষক্রিয়ার ঝুঁকি: ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’য়ের গন্ধ নাকে আসার ক্ষতিকর প্রভাব হেলাফেলার যোগ্য নয়, হতে পারে অ্যালকোহলের বিষক্রিয়া। ব্যবহারের পর হাত শুকানোর আগেই ঠোঁট স্পর্শ করলেও সামান্য ক্ষতি আছে। তবে সবচাইতে ঝুঁকিপূর্ণ ব্যাপার হল ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ গিলে ফেলা।

এই রাসায়নিক দ্রবণ সুবাসিত, উজ্জ্বল রংয়ের এবং কৌটাগুলোও হয় সুন্দর, যা আকর্ষণ করার ঝুঁকি আরও বাড়ায়। তাই শিশুদের নিয়ে খুব সাবধান থাকতে হবে।

রাসায়নিক উপাদান নিয়ে কাজ করলে: বিভিন্ন রাসায়নিক উপাদান নিয়ে যারা কাজ করেন তাদের জন্য ‘হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ উপাদান। এরমধ্যে আছে যারা শক্তিশালী পরিষ্কারক উপাদান, ‘ডি-গ্রিসিং এজেন্ট’, কীটনাশক ইত্যাদি নিয়ে কাজ করেন। কারণ ‘লিকুইড জেল’ আর রাসায়নিক উপাদানের মিশ্রণ শরীরের জন্য অনেক ক্ষতিকর হতে পারে।

ছবি: রয়টার্স।

আরও পড়ুন

স্যানিটাইজারের সস্তা বিকল্প  

করোনাভাইরাস: গ্লাভস ব্যবহারে সতর্কতা  

হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারে আগুন থেকে সাবধান  

হাত জীবাণু মুক্ত রাখার উপায়  


ট্যাগ:  জেনে রাখুন