হয়ত তোয়ালেগুলো ঠিক মতো পরিষ্কার করছেন না

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-22 18:12:57 BdST

bdnews24

তোয়ালে ঠিকমতো পরিষ্কার না করলে সেখানে থেকেও ছড়াতে পারে রোগজীবাণু।

বর্তমান সময়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা খুব জরুরি। নিজে পরিচ্ছন্ন থাকার পাশাপাশি নিত্য ব্যবহার্য জিনিসও পরিষ্কার রাখা আবশ্যক। হাত ও মুখের সংস্পর্শে আসে তোয়ালে। তাই এটা সবসময় পরিষ্কার রাখা উচিত।

জীবনযাপন-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে এই বিষয়ের ওপর প্রকাশিত প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রের বাথরুম তোয়ালে ও রোব প্রস্তুতকারক এবং বিক্রির প্রতিষ্ঠান ‘উইজি’র সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর লিজ আইকোলজের দেওয়া পরামর্শগুলো অবলম্বনে জানানো হল তোয়ালে পরিষ্কার রাখার সঠিক উপায়।   

পরিষ্কার করা: তাওয়ালে ব্যবহারের তিন থেকে পাঁচ দিন পর পর ধোয়া উচিত।

ঠাণ্ডা বা সাধারণ তাপমাত্রার পানি দিয়েই ধুতে হবে। আর তোয়ালের সঙ্গে অন্যকোনো কাপড় ধোয়া ঠিক না। তোয়ালের সঙ্গে তোয়ালে ধুরে সেগুলোর টেকেও বেশিদিন।

আবার রং হিসেবে আলাদা ধুতে হবে। সাদা রংয়ের সাদা এবং রঙিন তোয়ালের সঙ্গে রঙিন তোয়ালে ধুতে হবে।

পরিষ্কারের ক্ষেত্রে ব্লিচ ব্যবহার করা যাবে না। কেননা এতে করে তোয়ালের রং ও তন্তু ক্ষতিগ্রস্ত হয়। 

সাদা তোয়ালে পরিষ্কার অতিরিক্ত ডিটারজেন্ট ব্যবহার করা ঠিক না। অতিরিক্ত ডিটারজেন্ট ব্যবহারে তোয়ালে বিবর্ণ হয়ে যায় এবং সাদার উজ্জ্বলতা হারাতে থাকে।  

শুকানো

তোয়ালে পরিষ্কার করার পরে তা উচ্চ তাপমাত্রায় শুকানো যাবে না। এতে তন্তু ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। কম তাপমাত্রায় তোয়ালে শুকালে তা দীর্ঘদিন ভালো থাকবে।

ড্রায়ারের ধরন অনুযায়ী তোয়ালে কম তাপমাত্রায় শুকান, প্রয়োজন হলে একাধিকবার ড্রায়ার ব্যবহার করুন। তবে তাপমাত্রা যেন কম থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

আর রোদে শুকাতে চাইলে অবশ্যই শুকানোর পরপরই তুলে আনতে হবে। 

ড্রায়ার ব্যবহার করে তোয়ালে শুকানোর পরপরই তা ড্রায়ার থেকে বের করে ফেলুন এবং তা একটু ঝুলিয়ে রাখুন। এতে এর তন্তু ভালো থাকবে। 

জীবাণু দূরে রাখতে

অনেক সময় দেখা যায়, তোয়ালে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হচ্ছে। এর কারণ হল সময় যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এতে ব্যাক্টেরিয়া বাসা বাঁধতে শুরু করে। আর তা ধুয়ে পরিষ্কার করার পরও রয়ে যায়।

এছাড়াও, তোয়ালে বাব্যহারের পরে তা ঠিক মতো না শুকালে অথবা বাতাস চলাচলের ঘাটতি থাকলেও দুর্গন্ধের সৃষ্টি হতে পারে। 

তোয়ালে ব্যবহারে পর ঝুলিয়ে রাখতে হবে। কারণ ব্যবহারের পরে তোয়ালে ভাঁজ করে কেবিনেটে রাখলে তাতে ব্যাক্টেরিয়া বাসা বাঁধে। এছাড়া দুর্গন্ধ দূর করতে এক কাপ সাদা ভিনিগার এবং আধা কাপ বেইকিং সোডা একসঙ্গে মিশিয়ে তা দিয়ে তোয়ালে পরিষ্কার করে নিন।

ভিনিগার জীবাণু ও ব্যাক্টেরিয়া এবং বেইকিং সোডা দুর্গন্ধ করবে।

পরিবর্তন

যতই যত্ন করে ব্যবহার করা হোক না কেনো, তোয়ালে দীর্ঘদিন ভালো থাকে না। নিয়মিত ব্যবহাত করা হলে তোয়ালে দুএক বছর পর পর পরিবর্তন করা উচিত।

তোয়ালেতে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হলে বা এর ফোলাভাব কমে আসলে অথবা পানি শোষণ ক্ষমতা কমে গেলে তা পরিবর্তন করা উচিত। পুরানো বাতিল তোয়ালে টুকরা করে ঘর মোছার কাপড় হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

Image by Alexas_Fotos from Pixabay
 

আরও পড়ুন

তোয়ালের দুর্গন্ধ দূর করার তিন পন্থা  

হাত মুছতে টিস্যুই বেশি কার্যকর  

কাপড় ছাড়াও যা ধোয়া যায় ওয়াশিং মেশিনে  

যেসব গৃহস্থালী পণ্যে মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ থাকে না  


ট্যাগ:  জেনে রাখুন