ত্বক এক্সফলিয়েট করার সঠিক উপায়

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-10-19 19:11:08 BdST

bdnews24

ভুল উপাদান ও ভুলভাবে এক্সফলিয়েট করার কারণে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।

পরিষ্কার ত্বকের জন্য এক্সফলিয়েট করা আবশ্যক। এতে ত্বকের ময়লা ও জীবাণু গভীতর থেকে দূর হয়।

রূপচর্চা-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে ত্বক সঠিকভাবে এক্সফলিয়েট করার উপায় সম্পর্কে জানানো হল। 

ভারতের ‘ডা. নিবেদিতা দাদু’স ডার্মাটোলজিস্ট ক্লিনিকের প্রতিষ্ঠাতা ত্বক বিশেষজ্ঞ ডা. নিবেদিতা দাদু রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলেন,  “এক্সফললেট করতে আঙ্গুল ভিজিয়ে নিন এবং আলতোভাবে ত্বক মালিশ করুন। আঙ্গুল গোলাকারভাবে আলতো চাপ দিয়ে মুখে মালিশ করুন। স্ক্রাব করার সময় খেয়াল রাখুন যেন নাকের চারপাশ ও কপালের চারপাশ ভালো মতো স্ক্রাব করা হয়। কারণ এই অংশগুলোতেই ময়লা বেশি জমে থাকে।”

সারা শরীর এক্সফলিয়েট করার সময়

ভারতের ত্বক ও নান্দনিক চিকিৎসক ডা. অজয় রানা বলেন, “কতবার ত্বক এক্সফলিয়েট করতে হবে তা নির্ভর করে ত্বকের ধরন ও কী দিয়ে এক্সফলিয়েট করা হচ্ছে তার ওপর।

কিছু রাসায়নিক এক্সফলিয়েটর অনেক শক্তিশালী হয়ে থাকে। তবে সাধারণত, শুষ্ক ত্বকের জন্য সপ্তাহে দুএকবার ত্বক এক্সফলিয়েট করা যথেষ্ট।

ত্বক তৈলাক্ত হলে তা মাঝে মধ্যেই এক্সফলিয়েট করা প্রয়োজন। তবে খেয়াল রাখতে হবে তা যেন অতিরিক্ত না হয়। এতে ত্বকে লালচেভাব ও জ্বলুনি হতে পারে। তাই ত্বকের ধরন বুঝে এক্সফলিয়েট করতে ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

সবচেয়ে ভালো এক্সফলিয়েট

চাইলে প্রাকৃতিক বা রাসায়নিক যে কোনো ধরনের এক্সফলিয়েটর ব্যবহার করা যায়। রাসায়নিক এক্সফলিয়েটরে অ্যাসিড বা এনজাইম থাকে যা ত্বকের কোষকে নিজে থেকেই দ্রবীভূত হতে সহায়তা করে।

রাসায়নিক এক্সফলিয়েটর যেমন- স্যালিসাইলিক অ্যাসিড, গ্লাইকোলিক অ্যাসিড, ফলের এনজাইম, সিট্রিক অ্যাসিড বা ম্যালিক অ্যাসিড ব্যবহার করুন।

ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শের ভিত্তিতে এই রাসায়নিক এক্সফলিয়েটরগুলো উচ্চ বা কম ঘনত্বের ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়া প্রাকৃতিক কিছু এক্সফলিয়েটর যেমন- মিহি চিনি, কফির গুঁড়া, বাদামের গুঁড়া, ওটমিল, মিহি সামদ্রিক লবণ ও দারুচিনি ব্যবহার করা যায়।

মিহি দানার এক্সফলিয়েটর ব্যবহার করা উচিত। মুখের ত্বক শরীরের অন্যান্য অংশের ত্বকের চেয়ে আলাদা হয়। তাই এর সঙ্গে মানানসই স্ক্রাব ব্যবহার করতে হয়।

মুখের ত্বকের জন্য সামদ্রিক লবণ, চিনির গুঁড়া বা কফি ভালো বিকল্প নয়।

ডা. রানার পরামর্শ দেন, “মুখের ত্বকের জন্য প্রাকৃতিক এক্সফলিয়েটর হিসেবে বেইকিং সোডা, ওটমিল গুঁড়া, দারুচিনি ইত্যাদি ব্যবহার করা যেতে পারে।”

ছবির মডেল: জোজো। মেইকআপ: আরিফ। ফটোগ্রাফার: তানভির খান।  ছবি সৌজন্যে: ত্রয়ী ফটোগ্রাফিস্টুডিও।

আরও পড়ুন

বাইকারদের চুল ও ত্বকের যত্ন  

ত্বকের দাগ এড়ানোর উপায়  

সাতদিনে উজ্জ্বল ত্বক  


ট্যাগ:  সাজসজ্জা