বিভিন্ন স্থান থেকে ছত্রাক পরিষ্কারের পন্থা

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-12-04 15:46:54 BdST

bdnews24

ছত্রাক বা ছত্রাকের দাগ ওঠানোর জন্য ভিনিগার বেশ কার্যকর।

ঘরে থাকা উপাদান দিয়ে ছত্রাক বা ছাতা পড়ার দাগ ওঠাতে চাইলে ভিনিগার ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

কোনো কিছুর সঙ্গে না মিশিয়ে কাপড়, আসবাব, দেয়ালসহ যেকোনো স্থানের ছাতা বা ছত্রাক পড়ার দাগ ওঠানো সম্ভব।

কড়া দাগের জন্য সরাসরি ভিনিগার ব্যবহার করা যায়। আবার হালকা দাগ ওঠাতে সম পরিমাণ পানি ও ভিনিগার মিশিয়ে ব্যবহার করলেও ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।

ঘরের কার্পেটের নিচে এমন দাগ হওয়া রোধ করতে কার্পেটের নিচেও ভিনিগার স্প্রে করে দিতে পারেন।

আর এসবই প্রচলিত প্রতিষ্ঠিত পদ্ধতি।

ছাতা পড়া বা ছত্রাকের দাগ ওঠাতে এরকম আরও পদ্ধতি রয়েছে যা জানানো হল জীবনযাপন-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে।

কাঠের আসবাব

কাঠের আসবাব পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে জরুরি উপাদান হল অ্যামোনিয়া। এক কাপ অ্যামোনিয়া, আধা কাপ ভিনিগার, এক কাপের এক চতুর্থাংশ বেইকিং সোডা মিশিয়ে নিতে হবে এক গ্যালন পানিতে। এই পানি দিয়ে প্রথমে আসবাব ধুয়ে নিতে হবে। পরে ওই পানিতে ভেজানো কাপড় দিয়ে মুছে নিতে হবে। কাঠের দরজা-জানালাতেও এই মিশ্রণ প্রয়োগ করা যাবে।  

বেঁতের ফার্নিচারের ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন এক গ্যালন পানিতে দুই টেবিল চামচ অ্যামোনিয়ার মিশ্রণ। সরাসরি এই পানি ঢেলে দিতে পারেন, কোনা পরিষ্কার করার জন্য ব্রাশ ব্যবহার করতে হবে। পরে আবার ধুয়ে নিয়ে ভালোভাবে রোদে শুকাতে হবে।

মিশ্রণগুলো ব্যবহার করার সময় খোলা স্থানে থাকতে হবে, হাতে রাবারের গ্লাভস ব্যবহার করতে হবে। অ্যামোনিয়ার মিশ্রণে কোনো অবস্থাতেই ব্লিচ মেশানো যাবে না।

প্লাস্টিকের পর্দা

প্লাস্টিকের পর্দা বিশেষ করে বাথরুমের শাওয়ার পর্দা হিসেবে যেটা ব্যবহার করা হয়, সেটা ময়লা হলে বা ভাঁজের দাগ হয়ে গেলেই ফেলে দেওয়ার প্রয়োজন নেই। দুটি তোয়ালে ব্যবহার করেই তা পরিষ্কার করে নিতে পারেন। পরিষ্কার করার সময় ডিটারজেন্টের সঙ্গে আধা কাপ ভিনিগার মিশিয়ে নিতে হবে এবং তা দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।

ওয়াশিং মেশিনে পরিষ্কার করলেও দুটি তোয়ালে দিয়ে দিতে হবে যাতে কুঁচকে না যায। আর ‘স্পিন সাইকেল’য়ে যাওয়ার আগেই পর্দাগুলো বের করে নিতে হবে এবং ড্রায়ারে শুকানো যাবে না। ঝুলিয়ে রেখে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে।

কাপড়

কাপড় থেকে ছত্রাকের দাগ তোলার ক্ষেত্রে দুই কাপ গরম পানি, আধা কাপ বোরাক্স একত্রে মিশিয়ে তাতে স্পঞ্জ ডুবিয়ে সেটা দিয়ে কাপড়ের ছত্রাক আক্রান্ত অংশ ঘষে মুছে নিতে হবে। কয়েক ঘণ্টা ওই মিশ্রণে কাপড়টিকে ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরে ধুয়ে ফেলতে হবে।

পরনের পোশাকের ক্ষেত্রে দুই কাপ বোরাক্স আর দুই জগ পানি মিশিয়ে তাতে পোশাকটি ভিজিয়ে রাখতে হবে।

শৌচাগার

এখানে ছত্রাকের ছোপ আর গন্ধ অনেক গুরুতর সমস্যা। তাই চাই শক্তিশালী অস্ত্র, ৩% হাইড্রোজেন পেরোক্সাইড। এতে পানি মেশানোর দরকার নেই, সরাসরি শৌচাগারের ছত্রাক আক্রান্ত অংশে ঢেলে দিতে হবে। পরে তা মুছে নিতে হবে। ক্লোরিন ব্লিচ আর পানি একত্রে মিশিয়ে স্প্রে বোতলে মিশিয়ে টাইলসে তা ছিটিয়ে দিয়ে টাইলস থেকে দাগ তুলতে পারেন। মিশ্রণটি ১৫ মিনিট টাইলসে থাকতে হবে।

ঘরের বাইরে

রং করা ছাড়া সিমেন্টের বা পাথরের মেঝে থেকে ছত্রাকের দাগ পরিষ্কারের জন্য হবে দুই গ্যালন পানিতে এক কাপ ক্লোরিন ব্লিচ মেশানো মিশ্রণ। এরপর কাপড় বা ব্রাশে এই মিশ্রণ মাখিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে নিন।

এরপরেও দাগ থেকে গেলে আধা কাপ কাপড় ধোয়ার সোডা দুই গ্যালন কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে সেটা দিয়ে ছাতা পড়ার জায়গা ঘষে নিন।

মনে রাখবেন কাপড় ধোয়ার সোডা হল সোডিয়াম কার্বোনেট। যা মোটেই খাওয়ার সোডা বা বেইকিং সোডা নয়। 

রং দেওয়া অংশ পরিষ্কার

এমন সমতলে ব্যবহার করতে হবে ব্লিচ। এক কাপের এক চতুর্থাংশ পরিমাণ ক্লোরিন ব্লিচ দুই কাপ পানিতে মিশিয়ে তা ব্রাশ দিয়ে ছত্রাক আক্রান্ত অংশে প্রয়োগ করতে হবে। ১৫ মিনিট আক্রান্ত অংশটি দ্রবণে ভিজিয়ে রাখতে হবে এবং ধুয়ে ফেলতে হবে। পরিষ্কার পুরোপুরি না হলে আবারও প্রয়োগ করতে পারেন।

ছবি: রয়টার্স।

আরও পড়ুন

ঘরে যেখানে জীবাণুর মাত্রা ভয়ঙ্কর  

রান্নার পাত্র থেকে দাগ তুলতে  

কাপড় ছাড়াও যা ধোয়া যায় ওয়াশিং মেশিনে  

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় স্বাস্থ্য ঝুঁকি  

রোগ মুক্তির পর যা পরিষ্কার করা উচিত  

দেহ পরিষ্কারে করছেন তো ঠিক মতো?  

ঘরের যে স্থানগুলো পরিষ্কার রাখা জরুরি  


ট্যাগ:  জেনে রাখুন