পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

নানান রকম কাবাবের রেসিপি

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-30 16:02:53 BdST

bdnews24

হাঁড়ি, বটি কিংবা পিৎজা কাবাব তৈরি করুন নিজেই।

অনেকের ঘরেই এখন ফ্রিজ ভর্তি মাংস। শুধু ঝোল আর ভুনা নয় এবার তাই মাংস দিয়ে তৈরি করতে পারেন নানান স্বাদের কাবাব।

বটি কাবাব

কয়লার অভাব! তাহলে রন্ধনশিল্পী ডা. ফারহানা ইফতেখারের রেসিপিতে চুলাতেই তৈরি করুন বিফ বটি কাবাব।

উপকরণ: গরুর মাংস ১ কেজি (হাড় ও চর্বি ছাড়া) এক ইঞ্চি চৌক করে কাটা। কাঁচা-মরিচ বাটা ১ টেবিল-চামচ। আদা ও রসুন বাটা আধা টেবিল-চামচ করে। টক দই ১/৪ কাপ। লেবুর রস ৩ চা-চামচ। খোসা-সহ পেঁপে-বাটা ২ টেবিল-চামচ। গরম মসলার গুঁড়া আধা চা-চামচ। সরিষা-বাটা আধা চা-চামচ। টালা ধনেগুঁড়া ১ টেবিল-চামচ। টালা শুকনা মরিচ ৩,৪টি গুঁড়া করে নেওয়া। ঘি ১ টেবিল-চামচ। সয়াবিন তেল ৪ টেবিল-চামচ। জিরা-গুঁড়া এক চা-চামচ। লবণ পরিমাণ মতো। পেঁয়াজ-কুচি ৫,৬টি। পুদিনা-পাতা ১ মুঠ।

পদ্ধতি: মাংস চৌক করে কেটে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।

তেল, ঘি, পেঁয়াজ, টালা ধনে, টালা শুকনা মরিচ ও পুদিনা-পাতা ছাড়া বাকি সব উপাদান দিয়ে মাংস এক ঘণ্টা মেরিনেইট করে রাখুন ফ্রিজে।

এবার প্যানে তেল গরম করে মাংস দিয়ে রান্না করুন। প্রয়োজনে অল্প পানি দিন।

মাংস সিদ্ধ হয়ে এলে পেঁয়াজ কুচি-সহ টালা মসলা মিশিয়ে ঢেকে চুলার আঁচ কমিয়ে আরও পাঁচ মিনিট রান্না হতে দিন। ভাজা ভাজা করে নামিয়ে নিন।

নামানোর আগে ঘি ও পুদিনা-পাতা কুচি ছড়িয়ে দিয়ে নামান। ইচ্ছে করলে মাংসগুলো শিকে গেঁথে গ্রিল করে নিতে পারেন।

বিহারি কাবাবের রেসিপি

প্যারিস প্রবাসী রন্ধনশিল্পী ডা. ফারহানা ইফতেখারের আরেকটি রেসিপি।

উপকরণ: গরুর মাংস পাতলা করে কাটা ১ কেজি। পেঁপের খোসাসহ পেস্ট ২ টেবিল-চামচ। আদা-বাটা ১ টেবিল-চামচ। রসুন-বাটা ২ টেবিল-চামচ। লবণ স্বাদ মতো। টক দই আধা কাপ। মরিচ-গুঁড়া ১ চা-চামচ। কাঁচামরিচ-কুচি ১ টেবিল-চামচ। জয়ত্রীর গুঁড়া আধা চা-চামচ। ধনেগুঁড়া আধা চা-চামচ। ভাজাজিরা-গুঁড়া ১ চা-চামচ। সরিষার তেল ২ টেবিল-চামচ। পেঁয়াজ-কুচি আধা কাপ। কাবাব মসলা ১ টেবিল-চামচ (বাজারে পাওয়া যায়)। স্টার আনিসি গুঁড়া আধা চা-চামচ। গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ। পার্সেলে পাতা বা ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল-চামচ (সাজানোর জন্য)।

পদ্ধতি: পেঁয়াজ-কুচি তেলে বাদামি করে ভেজে ব্লেন্ড করে নিন।

সব মসলার সঙ্গে টক দই, ব্লেন্ড করা পেঁয়াজ এবং পেঁপের পেস্ট ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এবার এই মসলার মিশ্রণে পাতলা করে কাটা মাংসের টুকরাগুলো দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে রেফ্রিজারেটরে সারা রাত বা আট ঘণ্টা মেরিনেইট করুন।

তারপর কাঠিতে মাংসের টুকরাগুলো গেঁথে গ্রিল করতে হবে বাদামি না হওয়া পর্যন্ত।

২০ মিনিট পর উল্টে দিতে হবে। তারপর নামিয়ে পার্সলে বা ধনেপাতা কুচি ছিটিয়ে রায়তা দিয়ে পরোটা বা নানের সঙ্গে পরিবেশন করুন দারুন মজার বিহারি কাবাব।

হাঁড়ি কাবাব

সামিয়া রহমানের রেসেপিতে এই কাবাব খেয়ে হাড়িমুখেও হাসি ফুটবে।

উপকরণ: গরুর মাংস হাড় ছাড়া ১ কেজি। পেঁয়াজকুচি ৩ কাপ। দই ৪-৫ টেবিল-চামচ। আদাবাটা ২ টেবিল-চামচ। রসুনবাটা ১ টেবিল-চামচ। পেঁয়াজবাটা ১ টেবিল-চামচ। তেঁতুলের কাথ ২ টেবিল-চামচ। মরিচগুঁড়া ২ চা-চামচ। জিরাগুঁড়া ২ চা-চামচ। হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ। জায়ফলগুঁড়া চা-চামচের চারভাগের একভাগ। জয়ত্রিগুঁড়া আধা চা-চামচ। দারুচিনিগুঁড়া আধা চা-চামচ। গোলমরিচ-গুঁড়া ১ চা-চামচ। এলাচি ৪-৫টি। লবঙ্গ ৫-৬টি। শুকনামরিচ ৩-৪টি। লবণ স্বাদমতো বা ২ চা-চামচ। তেল আধা কাপ।

পদ্ধতি: প্রথমে মাংস চিকন চিকন করে কেটে নিন। এরপর ধুয়ে নিয়ে এর সঙ্গে অর্ধেক পরিমাণ আদা ও রসুনবাটা, জিরাগুঁড়া, তেঁতুল, শুকনামরিচ, দই আর লবণ দিয়ে মাখিয়ে রেখে দিন।

পেঁয়াজ ভাজুন বেরেস্তা করে। এবার জায়ফল, জয়ত্রি, দারুচিনি, লবঙ্গ, গোলমরিচ সব একসঙ্গে তেল ছাড়াই চুলায় একটু ভেজে নিন। তারপর পেঁয়াজ বেরেস্তা দিয়ে একটু নেড়ে মিশিয়ে দিন।

প্যানে তেল দিয়ে পেঁয়াজ, রসুন ও আদাবাটা, মরিচগুঁড়া এবং লবণ দিয়ে এক মিনিটের জন্য রান্না করুন। এবার গরুর মাংসে ভালো করে মসলা দিয়ে মাখিয়ে এক কাপ গরম পানি ঢেলে দিন। প্যান ঢেকে দিন।

কিছুক্ষণ পর পর ঢাকনা উঠিয়ে দেখুন মাংস। মসলা যখন তেলের উপর উঠে আসবে তখন আগে করে রাখা বেরেস্তা-মসলার মিশ্রণ দিয়ে ৫ মিনিট দমে রাখুন।

তারপর নামিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার হাড়ি কাবাব। নানরুটি, পরোটা কিংবা পোলাও দিয়ে খেতে খুব মজা লাগবে।

ট্রে কাবাব

দেখতে পিৎজার মতো লাগলেও এটা কাবাব। রেসিপি দিয়েছেন রন্ধনশিল্পী তাসনুভা মাহমুদ নওরিন।

উপকরণ: শুকনা লালমরিচ ৩-৪টি পানিতে ভেজানো। পেঁয়াজ ১টি। রসুন আস্ত ৩-৪ কোঁয়া। পেঁয়াজপাতা ১/৩ কাপ। ধনেপাতা আধা কাপ। মুরগি/ গরু/ খাসির মাংসের কিমা ৩ কাপ। লবণ ১ চা-চামচ বা স্বাদ মতো। লালমরিচ টালা ১ চা-চামচ বা ঝাল অনুয়ায়ী। টমেটো সস – ২ টেবিল-চামচ। টমেটো ফালি করা কয়েকটি। কয়েকটা আস্ত কাঁচামরিচ।

পদ্ধতি: ব্লেন্ডারে পেঁয়াজকুচি, ধনেপাতা, ভেজানো লালমরিচ, পেঁয়াজপাতা, রসুন-কোঁয়া মিশিয়ে নেবেন। তবে একদম পেস্ট করা যাবে না।

এবার মাংসের কিমার সঙ্গে এই মিক্স করা উপাদান, লবণ, লাল-টালা-মরিচ, টমেটো সস দিয়ে মিশিয়ে নিন।

বেইকিং প্যানে হালকা তেল ব্রাশ করে এই মিশ্রণ ঢেলে চেপে পিৎজার আকার করে নিন। তারপর পিৎজার মতো তিন কোণা করে কেটে প্রতিটি টুকরার উপর একটা করে টমেটো ফালি ও একটা আস্ত কাঁচামরিচ বসিয়ে দিয়ে ওভেনে ১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ২৫ থেকে ৩০ মিনিট বা যতক্ষণ লাগে বেইক করুন।

মাঝে কিমা সিদ্ধ হয়ে গেলে উপরে একটু টমেটো সস ব্রাশ করে দিন। এতে দেখতে ও খেতে আরও বেশি ভালো লাগবে।

কিমা সিদ্ধ হয়ে গেলে নামিয়ে কেটে পোলাও, বিরিয়ানি, নানরুটি বা পরোটার সঙ্গে পরিবেশন করুন এই ট্রে কাবাব।

জালি কাবাব

পোলাও, পরোটা কিংবা শুধু সালাদের সঙ্গে খেতে ফেইসবুকের ‘রকমারি রান্না শিখুন’ পেইজের মুহসিনা তাবাসসুমের রেসিপিতে তৈরি করতে পারেন এই কাবাব।

উপকরণ: গরুর মাংস ১ কাপ (ছোট টুকরা করা)। ছোলার ডাল ১ মুঠ। মসুরডাল ১ মুঠের কম। আলু ১টি (ছোট)। কাঁচামরিচ কুচি করা, স্বাদ অনুযায়ী। মিহি পেঁয়াজকুচি আধা কাপ। লবণ পরিমাণ মতো। আদা ও রসুন বাটা ২ টেবিল-চামচ করে। জিরা ও ধনিয়া বাটা ১ চা-চামচ করে। টমেটো সস ১ টেবিল-চামচ। হলুদ সামান্য। গরম মসলা ও এলাচবাটা ১ চা-চামচ করে। ডিম ১টি।

পদ্ধতি:  প্রেশার কুকারে আদা, রসুন, জিরা, ধনিয়া, এলাচ, গরম মশলা অর্ধেক ও হলুদ, লবণ, মাংস, ডাল ও আলু দিয়ে অল্প পরিমাণে পানি দিন। সিদ্ধ হলে পানি কমিয়ে শুকনা করে নিন। পানি পানি যেন না থাকে।

পাটায় অথবা ব্লেন্ডারে মিহি করে ব্লেন্ড করে নিন। এবার এর সঙ্গে কাঁচামরিচ, পেঁয়াজ, লবণ লাগলে লবণ ও বাকি মসলা দিয়ে মেখে নিন।

গোলা কাবাব

মজার স্বাদের ভাজা খাবার তৈরি করুন উম্মাহ মোস্তফার রেসিপিতে।

উপকরণ: মুরগির মাংসের কিমা ১ কাপ। পেঁয়াজ মিহিকুচি ২ টেবিল-চামচ। পুদিনাপাতা-কুচি ১ টেবিল-চামচ। ধনেপাতা-কুচি ২ টেবিল-চামচ। আদা-রসুনবাটা আধা চা-চামচ করে। টক দই ১ টেবিল-চামচ (পানি ঝরানো)। পনির আধা কাপ। কাবাব-মসলা ১ টেবিল-চামচ (চামচে উঁচু করে ভরে নেবেন)। লবণ স্বাদ মতো। ডিম ১টি। বিস্কুটের গুঁড়া পরিমাণ মতো। তেল ভাজার জন্য যতটুকু লাগবে।

পদ্ধতি: তেল, ডিম, বিস্কুটের গুঁড়া বাদে বাকি সব উপাদান ভালো করে মাখিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন। মিশ্রণ থেকে পরিমাণ মতো হাতে নিয়ে গোল আকার দিয়ে এর ভেতর কিছু চিজ বা পনির ভরে আরও ১০ মিনিট রাখুন।

তারপর ফেটানো ডিমে ডুবিয়ে, বিস্কুটের গুঁড়ায় গড়িয়ে ডুবো তেলে ভেজে উপরে চাট মসলা ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।