পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

পারিবারিক সম্পর্ক খারাপ হলেই কি সঙ্গীও খারাপ?

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-05-24 17:13:41 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স।

একজন মানুষ তার বাবা-মায়ের সঙ্গে যেমন আচরণ করে, তা থেকে বোঝা যায় বৈবাহিক জীবনে তার আচরণ কেমন হবে।

সম্পর্কবিষয়ক এই প্রচলিত উপদেশ বাস্তব জীবনে অস্বীকার করার উপায় নেই, তবে ব্যতিক্রমও কম নয়।

বাবা-মায়ের সঙ্গে সন্তানের সম্পর্ক বিভিন্ন কারণে খারাপ হতে পারে। তার মানে এই নয় জীবনসঙ্গী হিসেবে ওই সন্তান খারাপ হবেই হবে।

শিকাগোর ‘ক্লিনিকাল সাইকোলজিস্ট’ এবং ‘ফ্যামিলি ফিট: ফাইন্ড ইওর ব্যালান্স ইন লাইফ’ বইয়ের রচয়িতা ড. জন মায়ার বলেন, “পরিবার অত্যন্ত শক্তিশালী এবং জটিল একটি সংস্থা। আর অনেকসময় এই সংস্থার এক বা একাধিক সদস্য পুরোপুরি ক্ষমতাহীন হয়ে পড়েন বিভিন্ন কারণে।”

ওয়েলঅ্যান্ডগুড ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে তিনি আরও বলেন, “পারিবারিক সম্পর্কের অবস্থা ওই পরিবারের প্রতিটি সদস্যের ওপর কোনো না কোনো ছাপ ফেলবে। এখন আপনার জীবনসঙ্গীর কোনো বিষয়ে তার বাবা-মায়ের সঙ্গে মত-বিরোধ, সম্পর্কের টানাপোড়ন থাকতেই পারে। তবে তা থেকে এটা নিশ্চিত হওয়া যায় না যে মানুষটা খারাপ, সেই সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর প্রক্রিয়া আরও জটিল।”

যুক্তরাষ্ট্রের আরেক ‘ক্লিনিকাল সাইকোলজিস্ট’ ড. রামানি দুর্ভাসুলা বলেন, “অনেক মানুষের পারিবারিক সম্পর্কগুলো বিষাক্ত হয়। জীবনের একটা লম্বা সময় সেই বিষাক্ত সম্পর্কগুলো সামাল দেওয়ার পর এই মানুষগুলো সুখী পরিবারে বড় হওয়া মানুষগুলো চাইতেও বেশি আত্মসচেতন হয়ে ওঠেন। যেটা নিঃসন্দেহে একটি ভালো গুণ।”

“তবে একজন মানুষ যদি তার পরিবারের নেতিবাচক দিকগুলো সামাল দিতে না পারেন, সেই বিষয়গুলো তার জীবনে যে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলছে সেগুলো চিহ্নিত করতে ব্যর্থ হন কিংবা পরিবারের খারাপ দিকগুলো অস্বীকার করেন বা সেগুলোর পক্ষে সাফাই দেওয়া চেষ্টা করে তখনই ওই মানুষটাকে নিয়ে চিন্তিত হওয়ার সময়।” 

তিনি আরও বলেন, “এই বিষয়গুলো সবসময় সরাসরি চোখে পড়ে না। পারিবারিক খারাপ দিকগুলো নিয়ে আপনার সঙ্গী বা সম্ভাব্য সঙ্গী যদি তার পরিবারের সঙ্গে আলাপ না করে, তাদের এড়িয়ে চলে এবং তার কোনো যুক্তিযুক্ত কারণ আপনাকে না দেয় তবে বুঝে নিতে পারেন যে আপনার সঙ্গীর পরিবারের খারাপ দিকগুলো তিনি স্বীকার করেন না।”

কারও পরিবারের অভ্যন্তরীন অবস্থা যদি এতটাই খারাপ হয় যে সেখানে সমাধানে আসার কোনো সুযোগই নেই, একমাত্র এমন পরিস্থিতিতেই একজন মানুষের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়াকে মেনে নেওয়া যায়।

তাই আপনার সঙ্গী কিংবা ভবিষ্যৎ সঙ্গীর পারিবারিক সম্পর্কের বিবেচনায় মানুষটা কেমন সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে পারিবারিক সম্পর্ক কেনো খারাপ, কেনো দূরত্ব তৈরি হয়েছে সেগুলো বিস্তারিত জানতে হবে।

ডা. অ্যাব্রেল আরও বলেন, “যে মানুষটাকে নিয়ে নিজের পরিবার শুরু করবেন সেই মানুষটার পরিবারের ছাপ আপনার নতুন পরিবারেও পড়বে। সব পরিবারেই ভালো খারাপ থাকে। খারাপটা কী, কীভাবে তা সামাল দেয়- আপনার সঙ্গীর ক্ষেত্রে এসবই তার চরিত্রের পরিচয় বহন করবে।”

তাই বাবা-মায়ের সঙ্গে সম্পর্কে ভালো না হলে চট করেই কারও সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা করে ফেলা সম্ভব নয়। জানতে হবে কোনো, ভুল হয়ত বাবা-মায়েরও থাকতে পারে।

 

আরও পড়ুন

বাবা-মায়ের আচরণ শিশুর স্থূলতার কারণ হতে পারে  

বিবাহ বিচ্ছেদের ক্ষতি সন্তানের জন্য যে বয়সে বেশি  

সন্তানের সঙ্গে দ্বিতীয় বিয়ের আলাপ