পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

আংটির সঠিক মাপ জানার উপায়

  • লাইফস্টাইল ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-05-28 16:37:37 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স।

অনলাইন থেকে আংটি কেনার আগে বরং বের করে নিন নিজের আঙ্গুলের মাপ।

প্রযুক্তির কল্যাণে আর ইন্টারনেটের সুবাদে সুই থেকে উড়োজাহাজ- সবই কেনা যায় অনলাইনে। সেই কেনাকাটায় দেশের সীমান্ত পার হয়ে গেলেও কোনো বাধা নেই।

ঘরে বসে যেমন কেনা তেমনি ক্রয় করা পণ্যও ঘরে পৌঁছে যায়। তবে এই পুরো প্রক্রিয়ায় একটা সমস্যা প্রায়শই দেখা যায়, আর তা হল মাপের অমিল।

এমনই একটি পণ্য হল আংটি। শুধু অনলাইনে কেনো অন্যজনকে উপহার দিতে দোকানে গেলেও বিপদ বাঁধে।

‘আঙ্গুল’ নিয়ে দোকানে যাওয়া যদি সম্ভব না হয়, তবে ঘরে বসেই কীভাবে নিখুঁত আংটির মাপ বের করবেন সেটার উপায় জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ব্রুকলিন’য়ের অলঙ্কার বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান ‘নিউ ইয়র্ক সিটি’স ক্যাটবার্ড’।

রিয়েলসিম্পল ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, আংটির মাপটা এমন হবে যাতে আঙ্গুলে পরে থাকতে অস্বস্তি না হয়। তাই খুব বেশি আঁটসাঁট হওয়া যাবে না। আবার বেশি ঢিল হলেও সমস্যা, আঙ্গুল থেকে বেরিয়ে যেতে পারে।

তবে সামান্য চাপ দিয়ে আঙ্গুলের গিরা পার হতে পারে এমন ঢিলাও হতে হবে, নয়ত পরা যাবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের ‘স্ট্যান্ডার্ড’ মাপ অনুযায়ী- প্রাপ্তবয়স্কদের আংটির মাপ হবে ৩ থেকে ১৩.৫। মহিলাদের আংটির গড় মাপ হয় ৩ থেকে ৯। পুরুষের হয় ৮ থেকে ১৪।  এই নম্বরের সঙ্গে আঙুলের বেড় সম্পর্কিত। ৩ সাইজের এই আংটির বেড় ১৪ মিলিমিটার। আর এখান থেকে মাপ উপরে উঠে।

মাপার সময় যা খেয়াল রাখতে হবে

আঙ্গুলের গিরা বিবেচনায় নিতে হবে। আঙ্গুলের মাপ চিকন হলেও গিরা যদি আবার মোটা হয় তবে আংটি পরতে হবে আধা সাইজ বড়।

আঙ্গুলের মাপ নির্ভুল হতে হলে কয়েকবার মাপতে হবে। শীতের দিনে শরীর যখন ঠাণ্ডা থাকে তখন আঙ্গুল চিকন থাকে। আবার গরমের দিনে শরীরের তাপমাত্রা বাড়লে আঙ্গুল ফুলে ওঠে।

মাপ নেওয়ার পদ্ধতি

এক টুকরা সুতা দিয়েই আংটির মাপ নিয়ে নিতে পারবেন নিখুঁতভাবে। যে আঙ্গুলের যে স্থানে আংটি পরবেন সেখানে আলতোভাবে সুতা পেচাতে হবে। যেখানে সুতার একপ্রান্ত আরেক প্রান্তের ওপর এসে পড়বে সেখানে কলম দিয়ে দাগ দিয়ে নিতে হবে।

দুই প্রান্তের দাগের দূরত্বই হয়ে গেল আপনার আঙ্গুলের মাপ। এবার সুতাটিকে স্কেল বরাবর ধরলে পেয়ে যাবেন মি.লি.মিটারে মাপ।

আদর্শ আংটির মাপ শুরু হয় ১৪ মি.লি.মিটার থেকে। প্রতি আধা সাইজ বড় আংটিতে মি.লি.মিটার বাড়ে ০.৪ করে। অর্থাৎ ৩ সাইজের আংটির বেড় ১৪ মি.লি.মিটার, ৩.৫ সাইজের আংটির বেড় ১৪.৪ মিলিমিটার, ৪ সাইজ হল ১৪.৮ মিলিমিটার।

তবে খেয়াল রাখা উচিত সুতা টানলে বড় হয়। তাই আঙ্গুলে মোড়ানোর সময় বেশি টান টান করে রাখলে তা ভুল হওয়া সম্ভাবনা প্রবল।

এছাড়া ব্যবহার করা কোনো পুরানো আংটির মাপ নিয়ে যেতে পারেন। বাজারে রিং সাইজার কিনতে পাওয়া যা ‘অ্যাডজাস্টেবল’ আর তার গায়ে মাপ লেখা থাকে।  সবচাইতে নিখুঁত মাপ পাওয়া যায় ‘রিং সাইজার’ থেকেই।

আরও পড়ুন

দেহের আকার অনুসারে পোশাক  

মাপ বুঝে ফিটনেস  

গ্রীষ্মে চামড়ার জুতার যত্ন