সুস্থ থাকতে অদ্ভুত কৌশল

  • কামরুন নাহার সুমি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2014-10-17 18:10:40 BdST

সুন্দর স্বাস্থ্যের জন্য মানুষের চেষ্টার শেষ নেই। পুষ্টিকর খাবার, ব্যয়াম, পুষ্টিবিদের পরামর্শ ইত্যাদি অনেক কিছুই অনুসরণ করে থাকেন। তবে বেশ কিছু অদ্ভুত অভ্যাস রয়েছে যেগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ভালো হলেও আমাদের অনেকেরই তা অজানা।

স্বাস্থ্য বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে উপকারি এমনই কয়েকটি অভ্যাসের বিষয় উল্লেখ করা হয়।

ভালো ঘুমে সহায়ক কফি

কাজের অতিরিক্ত চাপে মাঝে মাঝে খানিকটা বিশ্রাম নিয়ে নিতে হয়। সেক্ষত্রে, ঘুমের আগে ১ কাপ কফি (২০০ মিলিগ্রাম) পান করে ২০ মিনিট ঘুমিয়ে নিলে মস্তিষ্ক সতেজ হয়ে কাজ করার ক্ষমতা কয়েকগুণ বেড়ে যাবে।

গবেষণায় জানা যায়, ক্যাফেইন মস্তিষ্কের ভিতরে থাকা অ্যাডিনসিন অণু পরিষ্কার করে মস্তিষ্ককে কর্মচঞ্চল করে তুলে। আর মস্তিষ্কে অ্যাডিনসিনের পরিমাণ বেড়ে গেলেই আমরা অবসাদ বা ক্লান্ত অনুভব করি। 

খাওয়ার পর ব্রাশ না করা

খাবার এবং পানীয় পান করার পর দাঁত ব্রাশ করা ঠিক না। বিশেষ করে খাবার বা পানীয় যদি এসিডিক হয়।  যেমন লেবুজাতীয় ফল, টমেটো, সোডা ইত্যাদি এসিডিক খাবারে এসিডিক পদার্থ বেশি থাকে। আর এগুলো দাঁতের এনামেল নরম করে ফেলে। ফলে খাবার খাওয়ার পর ব্রাশ করা হলে এসিড দাঁতের এনামেলে আরও বেশি পরিমাণে ছড়িয়ে যেতে পারে এবং দাঁতের নীচের স্তর ক্ষয় করে ফেলতে পারে। তাই খাবার বা পানীয় পান করার ৩০ থেকে ৬০ মিনিট পর দাঁত ব্রাশ করা উচিত।

বেশি খাওয়ার জন্য কম খাওয়া

অনেক সময় ১০০ ক্যালরি কুকিজ বা নোনতা বিস্কুট খাওয়ার পর আমরা ভাবি তেমন কিছু খাওয়া হয় নি। মজার ব্যাপার হচ্ছে এতে ক্ষুধা লাগার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়। পাশাপাশি অল্প পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট খেলে রক্তে চিনির পরিমাণ কমে যাবে সত্যি তবে আরও কার্বোহাইড্রেট খাওয়ার ইচ্ছা জাগবে। তাই প্রোটিনজাতীয় খাবার যেমন: চীনাবাদামের তৈরি মাখন, পনিরের সঙ্গে খাবার খাওয়া ভালো। এতে বিদ্যমান প্রোটিন এবং চর্বি যেমন তাড়াতাড়ি পেট ভরাবে তেমনি অনেক্ষণ পর্যন্ত খাবার খাওয়ার প্রয়োজন হবে না।

ক্লান্ত হলে এনার্জি ড্রিংক নয়

কফির তুলনায় এনার্জি ড্রিংক্সে ৫ গুণ বেশি ক্যাফেইন থাকে। তবে এর কার্যক্ষমতা খুব স্বল্প সময়ের জন্য স্থায়ী থাকে এবং বিভিন্ন ধরণের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া যেমন— বিরক্তি, ঘাবরে যাওয়া, দ্রুত হৃদস্পন্দন, অবসাদ ইত্যাদি বাড়িয়ে দিতে পারে। প্রতি ক্যান এনার্জি ড্রিংক্স পান করার পর দেহে চিনির মাত্রা ৫০ গ্রাম বেড়ে যায়। তাই যতটা সম্ভব এ ধরনের পানীয় এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।

ডায়েট সোডা পরিহার করা

অতিরিক্ত চিনি, ক্যালরি বা ফ্যাট এড়াতে অনেকেই সাধারণ সোডার বদলে ডায়েট সোডা পান করে থাকেন। তবে স্বাভাবিক সোডার তুলনায় ডায়েট সোডাতে ক্যালোরির পরিমাণ বেশি থাকে এবং খুব দ্রুত ওজন বাড়িয়ে দিতে পারে এটি অনেকেরই জানা নেই। তাই ওজন কমানোর আশায় ডায়েট পানীয় পান না করাই ভালো।

গরম পানীয় পান

সাধারণত অনেক দেশেই গ্রীষ্মের গরম থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য পানীয় হিসেবে আইস-কফি, ঠান্ডা পানীয়, স্মুদি ইত্যাদি পান করতে পছন্দ করেন। তবে গরমে শরীর ঠান্ডা করতে গরম চা বা অন্য পানীয় বেশি কার্যকর। গরম পানীয় পান করলে দেহের তাপমাত্রার পরিবর্তন হয় এবং বেশি পরিমাণে ঘাম হতে থাকে। শরীর থেকে ঘাম বের হয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর স্বাভাবিকভাবে শরীর ঠান্ডা হয়ে যায়।

ক্লান্তির সময় ব্যায়াম

সারাদিনের কর্মব্যস্ততার পর ব্যায়াম করলে শারীরিক এবং মানসিক শক্তি বাড়ে। নিয়মিত ৩০ মিনিট ব্যায়াম করলে হতাশা কমে যায় এবং মন ভালো থাকে। ব্যায়াম করার সময় মস্তিষ্কে অক্সিজেন সরবারহ বেড়ে যায়। ফলে কাজ করার ক্ষমতা বেড়ে যায়।

 

ছবি: রয়টার্স।