পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

রোজিনাকে ‘হয়রানি’: মামলা করার কথা বললেন ডিআরইউ নেতা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-21 20:26:33 BdST

bdnews24
সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে সচিবালয়ে আটকে ‘হেনস্তা’ এবং গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে শুক্রবার সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করেন সংগঠনের সদস্যরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে ‘হয়রানি ও নির্যাতনে’ জড়িতদের বিরুদ্ধে ‘প্রয়োজনে’ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) পক্ষ থেকে মামলা করার কথা বলেছেন সাংবাদিকদের এ সংগঠনের একজন নেতা।

সেই সঙ্গে ‘প্রকৃত রহস্য’ উন্মোচনে ডিআরইউর পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করার পরিকল্পনার কথাও বলেছেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান।

রোজিনা ইসলামকে ‘নির্যাতন’ ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ শুক্রবার ডিআরইউ কার্যালয়ের সামনে এক সমাবেশে তিনি মামলা ও তদন্তের বিষয়গুলো সামনে আনেন।

মসিউর বলেন, "ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সঙ্গে প্রথম আলো এবং রোজিনা ইসলামের পরিবারের আলাপ-আলোচনা চলছে। তারা বাদী হয়ে মামলা করলে ভালো এবং আমরা সর্বাত্মক সহযোগিতা করব। আর তারা মামলা না করলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি বাদী হয়ে এ ঘটনার বিচারের দাবিতে মামলা দায়ের করবে।”

রাষ্ট্রীয় গোপন নথি ‘চুরির চেষ্টার’ অভিযোগে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের এক কর্মকর্তার কক্ষে প্রায় সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রাখা হয়।

পরে রাতে তাকে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করে ব্রিটিশ আমলের অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট ও দণ্ডিবিধির কয়েকটি ধারায় মামলা করে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ।

সেই মামলায় পুলিশ রোজিনাকে রিমান্ডে নিতে চাইলেও আদালত সায় দেনি। বৃহস্পতিবার তার জামিন শুনানি শেষে বিষয়টি রোববার আদেশের জন্য রেখেছেন ঢাকার একজন মহানগর হাকিম।

ডিআরইউর সমাবেশে মসিউর বলেন "জামিন পেলেই আমাদের এ আন্দোলন থেমে যাবে না। আমরা আন্দোলন অব্যাহত রাখব। এই মামলা প্রত্যাহার করতে হবে এবং যারা রোজিনা ইসলামকে হয়রানি ও নির্যাতনের সঙ্গে জড়িত, তাদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার নিশ্চিত করতে হবে।"

সরকারের পক্ষ থেকে ‘নিরপেক্ষ তদন্ত কমিটির’ ব্যবস্থা না হলে ‘সাংবাদিক সমাজের’ পক্ষ থেকে পৃথক কমিটি গঠন করা হবে ঘোষণা দেন ডিআরইউর সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, “ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করে এই ঘটনার প্রকৃত রহস্য জনসম্মুখে প্রকাশ করব।”

সমাবেশে সংগঠনের সদস্যদের উপস্থিতি নিয়ে মসিউর বলেন, “অনেক নেতাই গত তিন দিনে এখানে ছিলেন, আজকে অনেকে নেই। সামনে হয়ত আরও অনেক নেতা আসবেন। আমি আপনাদের কথা দিচ্ছি, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে যেই থাকুক, না-থাকুক, এই সংগঠনের ব্যানারে আন্দোলন চলছে, চলবে। তার জামিন এবং তার বিরুদ্ধে আনা মামলা প্রত্যাহার এবং এই ঘটনার যৌক্তিক সমাপ্তি না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরে যাব না।”