পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

নিয়ম না মানা আইপি টিভির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-30 21:58:01 BdST

bdnews24
তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ফাইল ছবি

‘নিয়মনীতিহীন’ ইন্টারনেট প্রটোকল টেলিভিশন বা আইপি টিভির বিরুদ্ধে অচিরেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার ঢাকায় নিজের সরকারি বাসভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “কিছু আইপি টিভি অনেক সময় গুজব রটানোতে যুক্ত হয়, অসত্য তথ্য পরিবেশন ও ভাঁড়ামোতে লিপ্ত হয়। আবার দেখা যায় অনুমোদন পাবার আগেই কেউ কেউ টেলিভিশন চ্যানেলের মত অফিস খুলে বসেছে।”

এসব বিষয় একটি নিয়মের মধ্যে আনা প্রয়োজন মন্তব্য করে তিনি বলেন, “দেশব্যাপী ব্যাঙের ছাতার মতো আইপি টিভি খুলে যার যেমন ইচ্ছে তেমন করবে- সেটা কখনো আইনসম্মত বা বাঞ্ছনীয় নয়।”

তিনি জানান, রেজিস্ট্রেশনের জন্য আইপি টিভিগুলোর কাছ থেকে দরখাস্ত আহ্বান করার পর পাঁচশরও বেশি দরখাস্ত জমা পড়েছে এবং সেগুলো যাচাই-বাছাইয়ের কাজও গুছিয়ে আনা হয়েছে।

“ভালো মানের আইপি টিভি অনুমোদন পাবে এবং যেগুলোর বিষয়ে নানা অভিযোগ আছে, সেগুলো খতিয়ে দেখে সহসাই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

জয়যাত্রা আইপি টিভির মালিক হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, “তার বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এবং তার আইপি টিভির বিষয়ে অভিযোগগুলো আমরা খতিয়ে দেখব, সত্যতা পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এফবিসিসিআইর পরিচালক হেলেনা জাহাঙ্গীর জয়যাত্রা গ্রুপের কর্ণধার। তিনি এক সময় আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক উপকমিটিতে ছিলেন। কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদেও ছিলেন তিনি।

‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি ‘ভূইফোঁড়’ সংগঠনে হেলেনা জাহাঙ্গীরের সভাপতি হওয়ার খবর চাউর হলে সম্প্রতি তাকে দুই কমিটি থেকেই বাদ দেয় আওয়ামী লীগ।

বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার গুলশানের বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তারের পর মিরপুরে জয়যাত্রা আইপি টিভির অফিসও বন্ধ করে দেওয়া হয়। ওই টিভির ‘কোনো বৈধ কাগজপত্র ছিল না’ বলে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাদির শাহ জানান।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলননে বলেন, নানা ধরনের ‘এজেন্ডা’ বাস্তবায়নে সোশাল মিডিয়ায় ‘অপপ্রচার চালানোর একটি সংঘবদ্ধ চক্র’ গড়ে তুলেছিলেন হেলেনা জাহাঙ্গীর।

আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে হেলেনা জাহাঙ্গীরের সম্পৃক্ততা নিয়ে এক প্রশ্নে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, “ফাঁকফোকর দিয়ে দলের উপকমিটিতে এ ধরনের কারো ঢোকা সমীচীন হয়নি, এদের কমিটিতে রাখার বিষয়ে আরও সতর্ক হওয়া প্রয়োজন ছিল। যারা সুপারিশ করেছেন, তাদেরও আরও জানাশোনার দরকার ছিল।”

হেলেনা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। কুমিল্লায় আব্দুল মতিন খসরুর আসনে উপনির্বাচনেও তিনি প্রার্থী হতেও চেয়েছিলেন। তবে কোনোবারই তিনি দলের মনোনয়ন পাননি।