২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

ভারতে বন্যা: ১৪৭ মৃত্যু, লাখো মানুষ পানিবন্দি

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-08-11 20:49:30 BdST

bdnews24

ভারতে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ভয়াবহ বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৪৭-এ পৌঁছেছে বলে দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ভারী বৃষ্টির পর বন্যা ও ভূমিধস কর্নাটক, কেরালা ও মহারাষ্ট্রের লাখ লাখ মানুষকে ঘরবাড়ি ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে বাধ্য করেছে।

জরুরি বিভাগের কর্মীরা পানিবন্দি লাখ লাখ মানুষকে উদ্ধারে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

রোববার পর্যন্ত কেবল কেরালাতেই বৃষ্টিজনিত দুর্ঘটনা, বন্যা ও ভূমিধসে অন্তত ৫৭ জন নিহত হয়েছে বলে রাজ্য কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে; আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে এক লাখ ৬৫ হাজারেরও বেশি মানুষকে।

“অনেক বাড়িঘর এখনও ১০-১২ ফুট কাদায় ঢেকে আছে, এ পরিস্থিতিতে উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে,” বলেছেন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন।

বজ্রঝড় এবং বৃষ্টির কারণে অনেক এলাকার উদ্ধার তৎপরতা ব্যাহত হতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

গত বছর কেরালা এক শতকের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যার সাক্ষী হয়েছিল; সেবার নিহত হয়েছিল, দুই শতাধিক। ক্ষতিগ্রস্তের পরিমাণ ছাড়িয়ে গিয়েছিল ৫০ লাখ।

কর্নাটকের প্রাচীন শহর হাম্পিতে বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্তর্ভুক্ত কয়েকটি স্থাপনাও বন্যার পানিতে ডুবে আছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

এ দফার বৃষ্টি-বন্যায় রোববার পর্যন্ত ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদুরাপ্পা। আশ্রয় কেন্দ্রে আছেন প্রায় ২ লাখ ২৭ হাজার বাসিন্দা।

দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের এ তিন রাজ্য- কর্নাটক, কেরালা ও মহারাষ্ট্রের পাশাপাশি গুজরাট, আসাম ও বিহারেও বন্যা ভয়াবহ রূপ নিয়েছে।

মহারাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা ৩০ হলেও সেখানকার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে বলে জানিয়েছে অল ইন্ডিয়া রেডিও।

ক্ষতিগ্রস্ত অনেক এলাকার রেল যোগাযোগ চালু করতে সপ্তাহ দুয়েক সময় লাগতে পারে বলেও কর্তৃপক্ষ ধারণা দিয়েছে।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেস এ মৌসুমে বন্যাক্রান্ত ছয়টি রাজ্যে ৪৪৬ জন নিহত হয়েছে জানিয়ে সেখানে দ্রুত ত্রাণ সাহায্য পাঠাতে অনুরোধ জানিয়েছে।