ট্রাম্পের সফরের মধ্যেই সংঘর্ষে উত্তপ্ত দিল্লি, পুলিশসহ নিহত ৪

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-24 20:21:09 BdST

bdnews24

ভারতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে ফের রণক্ষেত্র হয়েছে রাজধানী দিল্লি। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের সফরের মধ্যেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠা উত্তর-পূর্ব দিল্লির বিভিন্ন এলাকায় সংঘর্ষে নিহত হয়েছে এক পুলিশ সদস্যসহ তিনজন সাধারণ নাগরিক। ১০ জায়গায় জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা।

এনডিটিভি জানায়, সোমবার সকালে ট্রাম্পের দিল্লি সফরের কয়েক ঘন্টা আগেই উত্তর-পূর্ব দিল্লির ভজনপুরা, মৌজপুর ও জাফরাবাদে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গত ২৪ ঘটনায় এ নিয়ে দ্বিতীয় বার এসব জায়গায় সংঘর্ষ হয়েছে। সিএএ সমর্থক ও প্রতিবাদীদের মধ্যে সঙ্ঘর্ষ চলাকালে মাঝখানে পড়ে পুলিশের এক হেড কনস্টেবলের মৃত্যু হয়। 

সন্ধ্যার পরই দিল্লিতে মহম্মদ ফুরকান নামের আরেকজন নিহত হন।তিনি উত্তর-পূর্ব দিল্লির বাসিন্দা। রাতের দিকে আরও দুজন সাধারণ নাগরিক মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গুরুতর আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন।

উত্তর-পূর্ব দিল্লির একাধিক জায়গায় নতুন করে বিক্ষোভের আগুন জ্বলে উঠেছে। সোমবারই দু’দিনের সফরে ভারতে গেছেন সস্ত্রীক ডনাল্ড ট্রাম্প। সন্ধ্যায় আগরা থেকে তিনি দিল্লি যান। তার মধ্যেই এমন ঘটনা উত্তেজনা বাড়িয়েছে।

এর আগে রোববারও সিএএ নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে দিল্লির জাফরাবাদ এবং উত্তর প্রদেশে আলিগড়ে। সোমবার দুপুরেও  জাফরাবাদের গোকুলপুরি, ভজনপুরা এলাকায় বিক্ষোভ চলাকালে সিএএ-র সমর্থকরা সেখানে হাজির হয় । তাতেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। রাস্তাতেই দু’পক্ষে সঙ্ঘর্ষ বেধে যায়। একে অপরকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি ইটবৃষ্টি হতে থাকে। বেশ কিছু গাড়িও দোকানে আগুন দেওয়া হয়। একটি পেট্রোল পাম্পেও আগুন ধরানো হয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশের একটি বাহিনী। লাঠিচার্জ করে এবং কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে পুলিশ। তাতে সংঘর্ষ চরম আকার ধারণ করে। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি শুরু হলে মাথায় গুরুতর আঘাত পান রতনলাল নামের এক হেড কনস্টেবল। হাসপাতালে নেওয়ার পর তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। ইটের আঘাতে আরও বেশ কয়েক জন পুলিশ কর্মী আহতও হয়েছেন। হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা চলছে।

অন্যদিকে, রাজধানীর উত্তর-পূর্বের সংঘর্ষ বিক্ষুব্ধ এলাকাগুলোতে ১৪৪ ধারা জারির খবর পাওয়া গেছে। এ ধারায় উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে বড় জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়াও দিল্লি পুলিশের সদর দফতরের বাইরেও ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।

দিল্লির উপরাজ্যপাল অনিল বায়জল বলেন, তিনি “আইনশৃঙ্খলা ফেরানোর জন্য দিল্লি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন”। তার কথায়, “পরিস্থিতির দিকে নিবিড় নজর রাখা হচ্ছে। আমি সবাইকে শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখার আবেদন জানাচ্ছি”।