কোভিড-১৯: ভারতে একদিনে রেকর্ড ১৭৬১ মৃত্যু, লকডাউনে বহু শহর

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-04-20 18:08:50 BdST

bdnews24

সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় দেশের বড় অংশজুড়ে লকডাউন দেওয়া ভারত ফের কোভিড-১৯ এ একদিনে রেকর্ড মৃত্যু দেখেছে।

মঙ্গলবার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক হাজার ৭৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে। মহামারী শুরুর পর থেকে দেশটিতে আর কখনোই একদিনে এতজনের মৃত্যু হয়নি।

এ নিয়ে শনাক্ত রোগী সংখ্যায় বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে  সরকারি হিসাবেই কোভিড-১৯ এ মৃতের সংখ্যা এক লাখ ৮০ হাজার ৫৩০ জনে দাঁড়াল বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

২৪ ঘণ্টায় নতুন ২ লাখ ৫৯ হাজার ১৭০ জন নিয়ে ভারতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও এক কোটি ৫৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে বলে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট থেকে জানা গেছে।

টানা ছয়দিন দুই লাখের বেশি রোগী দেখা দক্ষিণ এশিয়ার এ দেশটির লাখ লাখ মানুষকে এখন হাসপাতালের শয্যা, অক্সিজেন ও ওষুধ যোগাড়ে লড়তে হচ্ছে।   

ভারতীয় কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফেব্রুয়ারিতে সংক্রমণের হার কয়েক মাসের মধ্যে কম দেখে সতর্কতায় ঢিলেঢালা ভাব চলে আসায় বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনবহুল দেশটিকে এখন খেসারত দিতে হচ্ছে। 

পরিস্থিতি মোকাবেলায় রাজধানী দিল্লিতে সোমবার থেকে ৬দিনের লকডাউন দেওয়া হয়েছে। কঠোর এ বিধিনিষেধ সংক্রমণের গতি শ্লথ করবে এবং স্বাস্থ্য কাঠামোর ওপর চাপ কমাবে বলে প্রত্যাশা কর্মকর্তাদের।

দিল্লির পাশাপাশি ভারতের সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য উত্তর প্রদেশের অনেক শহরের বাসিন্দারা টুইটারে পরিবারের সদস্যদের হাসপাতালে ভর্তিতে সহযোগিতা করার আকুতি জানিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন। অনেকে জানাচ্ছেন অক্সিজেন ও রেমডিসিভির ওষুধের ঘাটতির কথা। 

“ভারতজুড়ে ভয়াবহ পরিস্থিতির চিত্র ফুটে উঠছে। হাসপাতালে শয্যা নেই, অক্সিজেন নেই, টিকা নেই,” সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নরেন্দ্র মোদীর সরকারের ব্যর্থতার দিকে ইঙ্গিত করে টুইটারে এমনটাই বলেছেন কংগ্রেস সাংসদ মনীষ তিওয়ারি।

অশোকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গৌতম আই মেননের মতে, ভারতে হাসপাতাল এবং স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনার ওপর এখন যে ভয়াবহ চাপ সৃষ্টি হয়েছে, তার ফলে হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নিতে পারলে হয়তো বেঁচে যেতেন এমন অনেকে হাসপাতালেই পৌঁছাতে পারছেন না।

দেশটির বেশ কয়েকটি বড় শহরে কর্তৃপক্ষের দেওয়া কোভিডে-১৯ এ মৃত্যুর তথ্যের চেয়েও বেশি মৃতদেহ করোনাভাইরাসের প্রটোকল মেনে কবর দেওয়া ও দাহ করা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়েস্ট্যাটিস্টিকস ও এপিডেমিওলজির অধ্যাপক ভ্রমর মুখোপাধ্যায় জানান, ভারতের অনেক অংশে এখনো ‘তথ্য অস্বীকারের’ চর্চা আছে।

“সবকিছু এতটাই ঘোলাটে যে মনে হচ্ছে কেউই আসলে পরিস্থিতি স্পষ্টভাবে বুঝতে পারছে না। এটাই সবচেয়ে অদ্ভুত,” বলেছেন তিনি।

মহামারী মোকাবেলায় সরকার ব্যর্থ- এমন সমালোচনার মুখে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সোমবার এক ঘোষণায় ১ মে থেকে প্রাপ্তবয়স্ক সবাইকে টিকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

এখন পর্যন্ত দেশটির ১০ কোটি ৮৫ লাখ মানুষকে কোভিড-১৯ টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকারি একটি পোর্টাল; টিকাগ্রহীতার এই সংখ্যা ভারতের মোট জনসংখ্যার তুলনায় খুবই নগণ্য।

সংক্রমণের ভয়াবহ ঊর্ধ্বগতির কারণে ভারতে সব ধরনের ভ্রমণ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রটেকশন। যুক্তরাজ্যও দেশটিকে তাদের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ‘লাল তালিকায়’ যুক্ত করেছে।