২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

উন্নতি ভালো লাগছে না, তাই ষড়যন্ত্রে বিএনপি: হাছান

  • নিজস্ব প্রতিবেদক,  বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-08-05 15:20:45 BdST

bdnews24

রাজনৈতিকভাবে আওয়ামী লীগকে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি এখন গুজব ছড়াচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি বলেন, “বাংলাদেশ উন্নত হচ্ছে এটি বিএনপির ভালো লাগছে না। এজন্য দেশে তারা নানা ধরনের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তারা দেশে গুজব ছড়াচ্ছে।

“তারা প্রথমে পদ্মা সেতু নিয়ে গুজব ছড়িয়েছে, ছেলেধরা নিয়ে গুজব ছড়িয়েছে, তারপর হারপিক আর ব্লিচিং পাউডার নিয়ে গুজব ছড়িয়েছে। এরপর এখন প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে গুজব ছড়ানোর চেষ্টা করছে। এরা রাজনৈতিকভাবে পরাজিত হয়ে, হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলে গুজবের আশ্রয় নিয়েছে। আওয়ামী লীগকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে গুজবের আশ্রয় নিয়েছে বিএনপি।

তথ্যমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা হাছান মাহমুদ বলেন, “বুদবুদ যেমন হাওয়ায় মিলিয়ে যায়, তারাও ঠিক হাওয়ায় মিলিয়ে যাচ্ছে। যারা দেশের উন্নয়ন চায় না, সমাজের অস্থিরতা তৈরি করার চেষ্টা করছে, যারা দেশবিরোধী কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে, তাদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ করতে হবে।”

খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য তার আইনজীবীদের আইনি লড়াই জোরদার করার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, “বিএনপি নেতাদের বক্তব্যে দেখলাম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিলে নাকি ডেঙ্গু মশা চলে যাবে। অর্থাৎ তারা এটি প্রমাণ করছে রাজনৈতিকভাবে তারা হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছে।

“তারা এও বলছে- আওয়ামী লীগ নাকি খালেদা জিয়ার মুক্তি চায় না। তিনি একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। আদালতের মাধ্যমে তার মুক্তি পাওয়ার ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের তো কোনো বাধা নেই। আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে তিনি যদি মুক্তি পান সেক্ষেত্রে তো সরকারের পক্ষ থেকেও কোনো বাধা নেই।”

জিয়াউর রহমান জাতিসংঘে পাকিস্তানের পক্ষে ওকালতি করেছিলেন এমন দাবি করে হাছান মাহমুদ বলেন, “দেশ যখন অদম্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে, তখন যে শক্তিটি দেশের অভ্যুদয় চায়নি, সেই শক্তির পরবর্তী প্রজন্মের আশ্রয়স্থল হচ্ছে জিয়াউর রহমান। যারা বাংলাদেশ চায়নি, তাদেরকে পুনর্বাসিত করেছিলেন জিয়াউর রহমান। তিনি পাকিস্তান প্রতিনিধি দলের ডেপুটি লিডার হিসেবে জাতিসংঘে গিয়ে পাকিস্তানের পক্ষে ওকালতি করেছিলেন যে- বাংলাদেশে কোনো মুক্তিযুদ্ধ হচ্ছে না।”

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পরিষদের সভাপতি আব্দুল মান্নান চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা।