পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ছাত্র রাজনীতি নয়, বন্ধ করতে হবে গুণ্ডামি: ভিপি নুর

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-10-10 16:10:43 BdST

bdnews24

ছাত্র রাজনীতি নয়, বরং শিক্ষাঙ্গনে ক্ষমতাসীনদের ‘গুণ্ডামি’ বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের ভিপি নুরুল হক নুর।

ছাত্র রাজনীতির স্বার্থে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নির্বাচন চালুর দাবি জানিয়েছেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃহস্পতিবার এক পদযাত্রা কর্মসূচির আগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে বুয়েট শিক্ষার্থীরা চার দিন ধরে যে ১০ দফা দাবি আদায়ে আন্দোলন করছেন, তার একটি হল ছাত্র সংগঠনের রাজনীতি নিষিদ্ধ করা।

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এর তার বিপক্ষে অবস্থান জানান।  

রাজু ভাস্কর্যের সামনে সমাবেশে ভিপি নুর বলেন, “শিক্ষাঙ্গনে ক্ষমতাসীনদের গুণ্ডামি বন্ধ করে গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র রাজনীতির স্বার্থে ছাত্র সংসদ নির্বাচন চালু করতে হবে।

“ছাত্র রাজনীতি খারাপ নয়, এই দেশের সৃষ্টি হয়েছে ছাত্র আন্দোলনের মধ্য দিয়ে, ছাত্র রাজনীতির মধ্য দিয়ে।”

যে সংগঠনের নেতাকর্মীদের পিটুনিতে আবরারের মৃত্যু, তার জন্য সেই ছাত্রলীগেরই শোক মিছিলকে হাস্যকর বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আবরারের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শোক শোভাযাত্রা করে ছাত্রলীগ। এর কিছুক্ষণ পরই নুরের নেতৃত্বে একদল শিক্ষার্থী পদযাত্রা করে ক্যাম্পাসে।

এক সময়ে ছাত্রলীগে যুক্ত নুর বলেন, “যাদের হাতে রক্তের দাগ, যারা আবরারকে খুন করেছে, তারা নাকি আবার শোক মিছিল করেছে, এটা হাস্যকর। রাজপথ তাদের দখলে- এই ভয় দেখানোর জন্য একটি শোডাউন দিয়েছে ছাত্রলীগ।    

“এই ছাত্রসমাজ পুলিশের বুলেট মোকাবেলা করেছে, আমাদের উদ্দেশ্য পরিষ্কার, আবরারসহ সকল ছাত্র হত্যার বিচার করতে হবে এবং দ্রুত বিচার ট্রাইবুন্যালে সকল ছাত্র হত্যার বিচার করতে হবে।”

আবরার হত্যার প্রতিবাদ থামাতে সরকারের পক্ষ থেকে কথার ফুলঝুড়ি ছাড়ানো হচ্ছে বলে দাবি করে তিনি বলেন, “যে কোনো হত্যাকাণ্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য নানা ধরনের লোক দেখানো ব্যবস্থা নেওয়া হয়। আবরার হত্যাকাণ্ডে ন্যায় বিচারের দাবিতে আমরা যে প্রতিবাদ করছি এর কারণ হল, এই হত্যাকাণ্ডকে যেন অন্য কোনো দিকে ধাবিত করতে না পারে। সেই প্রতিবাদ অব্যাহত রাখতে হবে।”

ডাকসু ভিপি বলেন, “যখনই আমরা সারা বাংলাদেশের ছাত্র সমাজ আবরার হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে যাচ্ছি, আপনারা দেখেছেন গতকাল বুয়েটের ভিসি তার প্রটোকলের জন্য পুলিশ, ছাত্রলীগ-যুবলীগ নিয়ে আবরারের বাড়িতে গিয়েছেন। সেখানে তারা পরিবারকে আঘাত করেছেন, তার ভাইকে আঘাত করেছেন।

“মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে আমরা শুনি, মা হিসেবে তিনি ন্যায়বিচার করবেন আবার দেখি আবরারের পরিবারের ওপর আঘাত। এটা আমাদের স্পষ্টভাবে মেসেজ দিচ্ছে। আজকে ছাত্রদের প্রতিবাদ থামানোর জন্য নানা ধরনের কথার ফুলঝুড়ি ফোটানো হচ্ছে।”

ছাত্রদের আন্দোলনের কারণেই ঢাবি প্রশাসনের টনক নড়েছে জানিয়ে নুর বলেন, “গতকাল আপনারা দেখেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, যে মাস্টার্স শেষ হয়ে গেলে ১৫ দিন পর হলে থাকতে পারবে না। এটি একটি ভালো সিদ্ধান্ত, কিন্তু এই সিদ্ধান্ত এমনিতেই নেওয়া হয় নাই।

“আজকে যখন আবরারের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসগুলোতে ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনগুলোর নির্যাতন-নিপীড়ন, টর্চার সেল বন্ধের দাবিতে ছাত্রসমাজ রাজপথে নেমে এসেছে তখনই প্রশাসনের টনক নড়েছে। সুতরাং যত অন্যায় অনিয়ম অবিচার হবে, এই ছাত্র সমাজকে সোচ্চার থাকতে হবে।”