মুজিববর্ষে নারী ও শিশু নির্যাতন দমনের শপথ নেবে ১৪ দল

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-26 19:22:01 BdST

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে স্বাধীনতার স্মৃতি বিজরিত ‘শিখা চিরন্তন’ থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমনে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার শপথ নেবে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট।

বুধবার ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয় বলে জোটের সমন্বয়ক আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম সাংবাদিকদের জানান।

তিনি বলেন, “নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য মুজিববর্ষের সেই মুহূর্তকে বেছে নিয়েছি। মহান স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রথম দিন ১ মার্চ সব সামাজিক ও স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি, পেশাজীবী মানুষ, নারী-পুরুষ নির্বিচারে বিকেল ৩টায় শিখা চিরন্তনের সামনে আসুন।”

‘শেখ হাসিনার নির্দেশ, নারী ও শিশু নির্যাতনে রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ’ স্লোগান সামনে রেখে এই কর্মসূচি পালিত হবে জানিয়ে নাসিম বলেন, “এই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই ৭ মার্চের ভাষণ দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। এখানে পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছিল।

“এখান থেকে অঙ্গীকার করব, এই স্বাধীন বাংলাদেশে একটাও নারী নির্যাতন আমরা হতে দেব না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তাদের বিচার করা হবে। চরম দণ্ড কার্যকর করা হবে।”

নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, “শিল্প, স্বাস্থ্য, নারীর ক্ষমতায়নসহ সর্বক্ষেত্রে বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তাহলে কেন আমরা একটি পাশবিক শক্তি, দানবীয় শক্তিকে দমন করতে পারব না?

“বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশে আমরা কোনো নারী নির্যাতন, কোনো শিশু নির্যাতন, দুর্বৃত্তায়ন দেখতে চাই না। অপরাধী যেই হোক তাকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে না। নিজের দল হলেও তিনি (শেখ হাসিনা) খাতির করেন না।”

দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে নারী ও শিশু নির্যাতনকারীদের শাস্তি নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্র বলেন, “আমরা চাইবো আরও সংক্ষিপ্ত করে, আরো কম সময়ের মধ্যে দ্রুত বিচার করে এই দানবীয় শক্তিদের চরমভাবে মৃত্যুদণ্ড দিতে হবে। এটা দাবি, এটা প্রস্তাব আমাদের।

“কারণ এদের হাতে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রী রেহাই পাচ্ছে না, শিশু রেহাই পাচ্ছে না, গৃহবধূ, শ্রমিকরা রেহাই পাচ্ছে না; তাহলে কেন আমরা এটা দমন করতে পারব না? এজন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সংসদে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, পশুর চেয়ে অধম হচ্ছে এসব শিশু ও নারী নির্যাতনকারীরা। এদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।”

১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে সন্ধ্যা ৬টায় মানিক মিয়া এভিনিউ থেকে ১৪ দলের আয়োজনে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে ‘স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির অন্ধকারকে দূর করার’ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে বলে জানান মোহাম্মদ নাসিম।

আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা ও ১৪ দলীয় জোটের শরিক দলগুলোর শীর্ষ নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।