করোনাভাইরাস: সর্বদলীয় বৈঠকের আহ্বান বাম জোটের

  • নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-31 19:57:09 BdST

bdnews24
করোনাভাইরাসের মহামারী ঠেকাতে ছুটির সঙ্গে চলাচলে বিধিনিষেধ থাকায় স্তব্ধ হয়ে গেছে জনজীবন। জনশূন্য রাজধানী টিকাটুলি এলাকায় যাত্রী না পেয়ে বিশ্রামে রিকশাচালক। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

নভেল করোনাভাইরাস সঙ্কট মোকাবেলায় সর্বদলীয় বৈঠকের উদ্যোগ নিতে সরকারকে আহ্বান জানিয়েছেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতারা।

মঙ্গলবার জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পর্ষদের নেতারা এক ভিডিও কনফারেন্স যুক্ত হয়ে এই আহ্বান জানান।

এর আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও একই ধরনের আহ্বান জানিয়েছিলেন।

বিশ্বজুড়ে মহামারী রূপ নেওয়া নভেল করোনাভাইরাস বাংলাদেশে অর্ধশত জনকে আক্রান্ত ও পাঁচজনের মৃত্যু ঘটানোর পাশাপাশি এই রোগ মোকাবেলার লড়াইয়ে অচল হয়ে পড়েছে দেশ, এতে জীবিকার সঙ্কটে পড়েছে শ্রমজীবী মানুষ।

বাম জোটের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ভিডিও কনফারেন্সে জোটের নেতারা চিকিৎসা ব্যবস্থায় সঙ্কট, সরকারের উদ্যোগহীনতা, শ্রমজীবী-হতদরিদ্র মানুষের দুর্দশা নিয়ে আলোচনা করেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপে অসন্তোষ জানিয়ে বাম জোটের বিবৃতিতে বলা হয়, “সরকার শুরু থেকেই এ মহামারীকে গুরুত্ব দেয়নি।

“তারা যে গত তিন মাসেও তেমন কোনো প্রস্তুতি যে নেয়নি, তা দেশের একটি মাত্র প্রতিষ্ঠানের মুখপাত্রের পরিসংখ্যান থেকে স্পষ্ট হয়ে গেছে। দেশবাসী সরকারি ওই ভাষ্য একদমই বিশ্বাস করছে না।”

“তথ্য গোপন করা হলে বরং বিপদকে বাড়িয়ে দেওয়া হবে, এতে জনগণ অসতর্ক থাকবে এবং অপঘাতে মৃত্যু ঘটবে,” সরকারকে সতর্ক করে বলেন বাম নেতারা।

তারা সারাদেশে প্রত্যেক জেলায় করোনাভাইরাস পরীক্ষার ল্যাব স্থাপন করে দ্রুত পরীক্ষা করে সঠিক তথ্য জনগণকে জানাতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

চিকিৎসা সেবাকর্মীদের সুরক্ষা সামগ্রী এবং ঝুঁকি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণার জন্যও সরকারের প্রতি দাবি জানান তারা।

করোনাভাইরাস সঙ্কটে এবং এর পরে যেন কারও কর্মচ্যুতি না ঘটে তার জন্যও সরকারের বিশেষ উদ্যোগ জরুরি বলে মনে করে বাম জোট।

ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়েছিলেন বাম জোটের সমন্বয়ক ও বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বজলুর রশীদ ফিরোজ, সিপিবির সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা ক্বাফী রতন, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু, বাসদ (মার্কসবাদী) নেতা মানস নন্দী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির আকবর খান, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির শহিদুল ইসলাম সবুজ, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহ্বায়ক হামিদুল হক।