শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফের দাবি ছাত্রদলের

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-17 19:44:30 BdST

bdnews24

করোনাভাইরাস সঙ্কটে সারাদেশে বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফ এবং অনলাইনে ক্লাস-ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার উদ্যোগ স্থগিতের দাবি জানিয়েছে বিএনপির ছাত্র সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলনের সংগঠনের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, দুই মাস ধরে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। এই সময়ে শিক্ষর্থীদের বেতন দেওয়া তাদের অভিভাকদের জন্য কষ্টকর হয়ে উঠেছে।

“বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রতি সদয় হয়ে সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফ করে দিলে তা হবে মানবতার জন্য এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।”

সেই সঙ্গে মহামারীর এই সময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর নিজস্ব তহবিল থেকে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধেরও দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

খোকন বলেন, “বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নিকট আমাদের দাবি, এই মুহুর্তে অনলাইনে ক্লাস, পরীক্ষা ও ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করতে হবে।”

নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল।

তিনি বলেন, “আপনারা জানেন, অনেক জায়গায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত নেই। মোবাইল নেটওয়ার্ক ঠিক মত থাকে না। অনেকে গ্রামের বাড়িতে চলে গেছে। এই অবস্থায় তাদের প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশুনা চালানো অসম্ভব। আমরা মনে করি, এমতাবস্থায় অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা ব্যবসায়িক মনোভাবেরই বহিঃপ্রকাশ।”

শ্যামল বলেন, অনেক শিক্ষার্থী টিউশনি করে নিজের পড়ালেখার খরচ মেটাতেন। মহামারীর কারণে সেটাও সম্ভব হচ্ছে না।

“ইন্টারনেটের খরচ বহন, ডিভাইস কেনাও অনেক শিক্ষার্থীর পক্ষে অসম্ভব। তাছাড়া অনেক স্থানে নিয়মিত বিদ্যুত সরবারহ না থাকায় অনলাইনে পড়াশুনা কোনোভাবেই সম্ভব নয়।”

চলমান সঙ্কটের মধ্যেও দেশের বিভিন্ন স্থানে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটছে অভিযোগ করে সাধারণ সম্পাদক শ্যামল বলেন, “ছাত্রদল মানবতার সেবায় যেসব কাজকর্ম করছে, তাদের বাধা দেয়া হচ্ছে।

“যেমন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে হাত ধোয়ার জন্য বেসিন বসাতে দেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পাশাপাশি আমরা যখন জনগণের জন্য এই মানবিক কাজগুলো করছি তখন আমাদের দলের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, তাদের গ্রেপ্তার এবং হামলা ধারাবাহিকভাবে চালিয়ে যাচ্ছে সরকার।”

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ছাত্রদলের পক্ষ থেকে সারাদেশে মাস্ক, স্যানিটাইজার বিতরণ, সুবিধবঞ্চিত মানুষের বাড়ি বাড়ি ত্রাণ পৌঁছিয়ে দেওয়া, নগদ সহায়তা দেওয়া, রাস্তা-ঘাট পরিষ্কার করা, জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো, কর্মহীন ক্ষুদ্র চাষী ও শ্রমিকদের সহায়তা, ইফতার-সেহেরী বিতরণের মত কাজে যুক্ত আছেন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। এসব কাজের তথ্য নিয়মিত ফেইসবুক পেইজে দেওয়া হচ্ছে।

অন্যদের মধ্যে ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান শরীফ, সাংগঠনিক সাইফ মাহমুদ জুয়েল ও ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।