১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

যুক্তরাষ্ট্রে ফোবানার দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি সম্মেলনের ঘোষণা

  • নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-08-23 14:32:31 BdST

উত্তর আমেরিকায় বসবাসরত বাংলাদেশিদের সংগঠন ‘ফেডারেশন অব বাংলাদেশি অর্গানাইজেশনস ইন নর্থ আমেরিকার’ (ফোবানা) দুটি পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে পাল্টাপাল্টি সম্মেলন আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে।

উভয় পক্ষ ঐক্যের কথা বললেও শেষ পর্যন্ত ঐক্যবদ্ধ হতে পারলো না উত্তর আমেরিকায় প্রবাসীদের মহামিলনমেলা হিসেবে পরিচিত ‘ফোবানা কনভেনশন’। এর ফলে আসছে ৩০ আগস্ট থেকে তিন দিনব্যাপী এ কনভেনশনের দুটি আসর বসবে নিউ ইয়র্কে সাড়ে ২৩ মাইলের ব্যবধানে দুটি মিলনায়তনে।

উভয় কনভেনশনের আয়োজক কমিটি আলাদা সংবাদ সম্মেলন থেকে পুণরায় ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে বলে, ৩২ বছর আগে ১৯৮৭ সালে ওয়াশিংটন ডিসি থেকে যে প্রত্যয়ে ফোবানার যাত্রা শুরু হয়েছে, তা পূরণে ঐক্যের বিকল্প নেই।

১৮ হাজারের বেশি আসনবিশিষ্ট লং আইল্যান্ডে নাসাউ কলসিয়ামে ফোবানা কনভেনশনের আয়োজক কমিটির সংবাদ সম্মেলন থেকে এক পক্ষের আয়োজক কমিটির সভাপতি দেলওয়ার হোসেন জানান, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার ২২ অঙ্গরাজ্যের ৭৬ সংগঠনের প্রতিনিধিসহ প্রায় ১০ হাজার প্রবাসীর অংশগ্রহণে তিন দিনব্যাপী ৩৩তম ফোবানা সম্মেলনের সবধরনের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। নিউ ইয়র্কের কাছে লং আইল্যান্ডে বিশ্বখ্যাত নাসাউ কলসিয়ামের বিশাল অডিটরিয়ামে এ সম্মেলন শুরু হবে ৩০ অগাস্ট।

‘আওয়ার চিল্ড্রেন আওয়ার প্রাইড’ স্লোগানে উজ্জীবিত এ সম্মেলনে থাকবে নতুন প্রজন্মের ৪ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীর অংশগ্রহণে ইয়ুথ ফোরাম। রয়েছে ‘মিস ফোবানা’ প্রতিযোগিতা। থাকবে মেধাবি ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে সনদ বিতরণের পর্ব। বাংলাদেশ, যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর, দুবাই, কোরিয়া, আর্জেন্টিনা, কাতার, মালয়েশিয়া, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এবং স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ী নেতাদের অংশগ্রহণে থাকবে বাংলাদেশে বিনিয়োগের সামগ্রিক পরিস্থিতি এবং বাংলাদেশি পণ্যের আন্তর্জাতিকীকরণের সেমিনার।

প্রবাসের চিকিৎসক ও প্রকৌশলীদের সমন্বয়েও অনুষ্ঠান হবে। থাকবে বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অ্যালামনাইদের পুনর্মিলনী। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারিদের নিয়েও থাকবে একটি পর্ব। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে শুক্রবার সন্ধ্যা ৮টায়। ১৫০ জন শিল্পী অংশ নেবেন সে অনুষ্ঠানে।

বুধবার সন্ধ্যায় ফোবানার আয়োজক হোটেলে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলন থেকে আরও জানানো হয়, হোটেল ম্যারিয়টের চারশ কক্ষই রিজার্ভ হবার পর আশপাশের দুটি হোটেলে অতিথিরা সিট নিচ্ছেন। শনি ও রোববারের টিকিটের মূল্য মাথাপিছু ৩০ ডলার করে। সেখানে বাংলাদেশি পণ্যের ৬০টি স্টল ছাড়াও খাবারের জন্য থাকবে আরো ৫টি স্টল।

এ পক্ষের আহ্বায়ক নার্গিস আহমেদ জানান, শনি ও রোববার দুদিনের জন্যই অডিটরিয়ামের ভাড়াসহ লাগবে ৩ লাখ ডলার। এর বাইরে রয়েছে আরো অনেক খরচ। বাংলাদেশ, ভারত এবং আমেরিকা-কানাডার শিল্পীরা থাকবেন বিভিন্ন পর্বে।

সদস্য সচিব আবির আলমগীর জানান, ১৯৯৪ সাল থেকে নিউ ইয়র্কের সাংস্কৃতিক সংগঠন হিসেবে ড্রামা সার্কলের যে ঐতিহ্য রয়েছে, তা অটুট রাখতে এবার ফোবানার সবকিছু ঢেলে সাজানো হয়েছে। এজন্য গঠিত বিভিন্ন সাব কমিটির শতশত সদস্য-কর্মকর্তা দিন-রাত কাজ করছেন। এজন্য আমরা প্রবাসীদের সহায়তা চাচ্ছি।

লাগোয়ার্ডিয়া ম্যারিয়ট ফোবানার সংবাদ সম্মেলন

লাগোয়ার্ডিয়া ম্যারিয়ট ফোবানার সংবাদ সম্মেলন

ফোবানার নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মীর চৌধুরী বলেন, “৩৩ বছরের ব্যবধানে ফোবানা কোন উচ্চতায় এসেছে এবার তারই প্রতিফলন ঘটবে তিন দিনের অনুষ্ঠানমালায়। আমাদের এ সম্মেলনে নর্থ আমেরিকার প্রতিনিধিত্ব ঘটবে।”

ফোবানা নামে আরেকটি সম্মেলনের ঘোষণাকারিদের প্রতি ইঙ্গিত দিয়ে মীর চৌধুরী বলেন, “আমাদের দরজা সব সময় খোলা রয়েছে। আসুন ভেদাভেদ ভুলে একসঙ্গে বিশাল এই কর্মযজ্ঞে শরিক হই। তাহলেই ১৯৮৭ সালে যাত্রা করা এ সম্মেলনের ষোলকলা পূরণ হবে।”

নির্বাহী সচিব জাকারিয়া চৌধুরী বলেন, “উত্তর আমেরিকায় বাঙালিদের বিশেষ একটি সুনাম রয়েছে। আমাদের সন্তানরাও ভালো রেজাল্ট দিয়ে সুনাম কুড়াচ্ছে। এখন সময় হচ্ছে মার্কিন ধারায় নিজেদের অবস্থানকে জোরালোভাবে উপস্থাপনের। সে তাগিদেই সবার প্রতি অনুরোধ, আসুন ফোবানা কনভেনশনে। দেখুন ফোবানার প্রকৃত রূপ। কিভাবে প্রতিনিধিত্বমূলক কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে ফোবানা প্রবাসীদের এগিয়ে নিতে কাজ করছে।”

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ফোবানার সাবেক চেয়ারম্যান বেদারুল ইসলাম বাবলা, আয়োজক কমিটির প্রধান উপদেষ্টা মোহাম্মদ আমিনউল্লাহ, প্রধান সমন্বয়কারি জহির মাহমুদ, জন ফাহিম ও আব্দুল হাই জিয়া, টাইটেল স্পন্সর রাহাত মুক্তাদির, ড্রামা সার্কলের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মহসিন ও পলাশ পিপলু।

অপরদিকে একইসময়ে ফোবানা সম্মেলন নামে আরেকটি অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি চলছে নিউ ইয়র্কের লাগোয়ার্ডিয়া বিমানবন্দরের কাছে ম্যারিয়ট হোটেলের বলরুমে।

সেখানে ৮টি সেমিনার-সিম্পোজিয়াম হবে জানা গেছে। কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে আসবেন ৬৭ সংগঠনের প্রতিনিধি। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য এস এ ফায়েজ। বিশেষ অতিথির তালিকায় রয়েছেন বিএনপি নেতা আব্দুল্লাহ আল নোমান, সাদেক হোসেন খোকা, তালুকদার আব্দুল খালেক। অতিথির মধ্যে আরও রয়েছেন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদের মেয়ে শারমিন আহমেদ ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

এ সম্মেলনের আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক শাহনেওয়াজ, সদস্য সচিব ফিরোজ আহমেদ, পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন খান, নির্বাহী সচিব কাজী আজম, সাবেক চেয়ারম্যান আলী ইমাম এবং কাজী নয়ন, সম্মেলন কমিটির প্রধান সমন্বয়কারি মাকসুদ এইচ চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ নিশান রহিম, মূলধারার রাজনীতিক গিয়াস আহমেদ, মোর্শেদ আলম, বিএনপি নেতা মিল্টন ভূইয়া, জাতীয় পার্টির নেতা আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, খন্দকার ফরহাদ, আবু জাফর মাহমুদসহ কর্মকর্তারা ২২ অগাস্ট এক সংবাদ সম্মেলনে প্রস্তুতির বিস্তারিত উপস্থাপন করেন।

তারা জানান, এটি অনুষ্ঠিত হবে ‘বাংলাদেশি আমেরিকান ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি অব নিউ ইয়র্ক’ এর ব্যানারে।

প্রবাস পাতায় আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাস জীবনে আপনার ভ্রমণ,আড্ডা,আনন্দ বেদনার গল্প,ছোট ছোট অনুভূতি,দেশের স্মৃতিচারণ,রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক খবর আমাদের দিতে পারেন। লেখা পাঠানোর ঠিকানা probash@bdnews24.com। সাথে ছবি দিতে ভুলবেন না যেন!