আমিরাতে করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন ট্রায়ালে বাংলাদেশিরা

  • জাহাঙ্গীর কবীর বাপপি, সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-08-13 12:45:22 BdST

bdnews24
মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, আবদুল করিম, মুজিবুর রহমান, সাইদুল ইসলাম রাজন, আহমদ হোসেন ও মোহাম্মদ আরমান হোসেন

সংযুক্ত আরব আমিরাতে করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশ নিচ্ছেন প্রবাসী বাংলাদেশি তরুণরা।

চীনা ওষুধ কোম্পানি ‘জায়ান্ট সাইনোফর্ম’ ও আবুধাবিভিত্তিক গ্রুপ ‘ফরটিটু হেলথ কেয়ারের’ চুক্তির ভিত্তিতে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তদারকিতে এ ট্রায়াল কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আবুধাবি শহরের প্রবেশমুখ ক্যাপিটাল গেট বা ন্যাশনাল এক্সিবিশন সেন্টারে স্থাপন করা হয়েছে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের ফেইস থ্রি ক্লিনিকাল ট্রায়াল ফ্যাসিলিটি। এতে অংশ নিতে আসছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

বুধবার এসেছেন চট্টগ্রামের রাউজানের তরুণ আবদুল করিম, মুজিবুর রহমান ও সাইদুল ইসলাম রাজন। তাদের আগে এসেছিলেন সিলেটের রাহাত আহমদ রাহি, চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির তড়িৎ প্রকৌশলী আহমেদ হোসেন, দুবাইর মিডলসেক্স ইউনিভার্সিটির জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়ার শেষ বর্ষের ছাত্র মোহাম্মদ আরমান হোসেন ও ঢাকার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান।

তাদের সবার হাতে জ্বলজ্বল করছে ‘হ্যাশট্যাগ ফর হিউম্যানিটি’ লেখা লাল রিস্টব্যান্ড। যা সাক্ষ্য বহন করে যে তারা কোভিড-১৯ ফ্রন্টলাইনার যোদ্ধা, করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়ালে অংশ নেওয়া একেকজন স্বেচ্ছাসেবী।

তারা আগামী ৪৯ দিন আমিরাতের মধ্যেই অবস্থান করবেন এবং ভ্যাকসিন নেওয়ার পর শরীরে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে কিনা সেজন্য তাদের সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে। প্রথম ভ্যাকসিন প্রয়োগের তিন সপ্তাহের মধ্যে তাদেরকে দ্বিতীয় দফার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

অংশ নেওয়া বাংলাদেশিরা জানান, এ ট্রায়ালে আরব আমিরাতের ১৫ হাজার বহুজাতিক স্বেচ্ছাসেবীর মধ্যে বাংলাদেশের পতাকাকে তুলে ধরে দেশের ভাবমূর্তি সমুজ্জ্বল করা ছিল তাদের লক্ষ্য। ভ্যাকসিনের এ হিউম্যান ট্রায়ালে দেশকে উপস্থাপন করতে পেরে তারা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাত এরই মধ্যে ৫০ লাখেরও বেশি করোনাভাইরাস টেস্ট সম্পন্ন করেছে। বাংলাদেশসহ ভাইরাসআক্রান্ত দেশগুলোতে ত্রাণ এবং রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দিয়েছে দেশটি।

 

প্রবাস পাতায় আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাস জীবনে আপনার ভ্রমণ,আড্ডা,আনন্দ বেদনার গল্প,ছোট ছোট অনুভূতি,দেশের স্মৃতিচারণ,রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক খবর আমাদের দিতে পারেন। লেখা পাঠানোর ঠিকানা probash@bdnews24.com। সাথে ছবি দিতে ভুলবেন না যেন!