পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

জ্বালানি সহযোগিতা বাড়াতে কাজ করছে বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র: তৌফিক-ই-ইলাহী

  • নিউইয়র্ক প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-31 11:28:29 BdST

bdnews24
ওয়াশিংটন ডিসিতে যুক্তরাষ্ট্রের জ্বালানি সম্পদ ব্যুরোর ভারপ্রাপ্ত সহকারী সচিব রাষ্ট্রদূত ভার্জিনিয়া ই পালমারের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।

বেসরকারি খাতকে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কের মূল চালিকাশক্তি হিসেবে অভিহিত করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।

গত ২৯ জুলাই ওয়াশিংটন ডিসিতে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল আয়োজিত ‘এনার্জি গোলটেবিল’ বৈঠকে বক্তব্য রাখেন তিনি।

চলতি বছরের এপ্রিল মাসে আনুষ্ঠানিক যাত্রার পর এটি ছিল এই কাউন্সিলের প্রথম সভা। বৈঠকের বিস্তারিত তথ্য জানিয়েছেন দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী তার বক্তব্যে বাংলাদেশের জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা স্বীকার করেন এবং এক্ষেত্রে তাদের আরও বেশি অবদান রাখার আহ্বান জানান।

তিনি বাংলাদেশে তেল এবং গ্যাস অনুসন্ধানে, বিশেষ করেত অফশোর ক্ষেত্রে বিনিয়োগে তাদের উৎসাহিত করেন।

উপদেষ্টা নিরবচ্ছিন্ন এবং সাশ্রয়ী মূল্যের নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎসের গবেষণা ও উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি খাতের সঙ্গে অংশীদার হওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের আগ্রহ ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ তার প্রতিবেশী ভারত, নেপাল এবং ভুটানের সঙ্গে আঞ্চলিক বিদ্যুৎ বিতরণে নিবিড়ভাবে কাজ করছে এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠানগুলো সেখানে বিনিয়োগের সুযোগ অনুসন্ধান করতে পারে।

স্বাগত বক্তব্যে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট নিশা বিসওয়াল দুই দেশের জ্বালানি অংশীদারিত্বকে এগিয়ে নিতে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে জ্বালানি সহযোগিতা সম্প্রসারণের জন্য বিজনেস কাউন্সিলের আসন্ন ‘এনার্জি টাস্কফোর্স’ একটি জ্ঞানভিত্তি তৈরি করতে সক্ষম হবে বলে উপদেষ্টাকে অবহিত করেন।

গোলটেবিল বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম শহীদুল ইসলাম এবং শেভরন, চেনিয়ার, এক্সিলারেট এনার্জি, এক্সন মোবিল, জিই পাওয়ার, সানএডিসনসহ যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, যুক্তরাষ্ট্র চেম্বার, যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল ও বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জ্বালানি উপদেষ্টা যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের জ্বালানি সম্পদ ব্যুরোর ভারপ্রাপ্ত সহকারী সচিব, রাষ্ট্রদূত ভার্জিনিয়া ই পালমারের সঙ্গে জ্বালানি সহযোগিতা বিষয়ে আলোচনা করেন।

বৈঠকে রাষ্ট্রদূত পালমার নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদনে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করার বিষয়ে তার সরকারের অঅগ্রহের কথা জানান।

জলবায়ু পরিবর্তনকে বাইডেন প্রশাসনের জ্বালানি নীতির একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত পালমার বাংলাদেশে কয়লাভিত্তিক দশটি পাওয়ার প্ল্যান্ট বাতিল করার পদক্ষেপের প্রশংসা করেন।

জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বাংলাদেশের মতো দেশে সাশ্রয়ী মূল্যে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে দুই দেশের যৌথ গবেষণা ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি সঞ্চয় ব্যবস্থা এবং পারমাণবিক বিদ্যুৎ মডিউলার রিঅ্যাকটর প্রকল্প গ্রহণের উপর জোর দেন।

তিনি বলেন, “বিভিন্ন জ্বালানি উৎসের সুষম ব্যবহার বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সব নাগরিকের কাছে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

একইদিন সকালে তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী ওয়াশিংটনভিত্তিক শীর্ষস্থানীয় থিঙ্কট্যাঙ্ক ‘আটলান্টিক কাউন্সিল’ আয়োজিত বাংলাদেশের জ্বালানি নীতি ও দৃষ্টিভঙ্গি বিষয়ে একটি অধিবেশনে অংশ নেন।

প্রবাস পাতায় আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাস জীবনে আপনার ভ্রমণ,আড্ডা,আনন্দ বেদনার গল্প,ছোট ছোট অনুভূতি,দেশের স্মৃতিচারণ,রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক খবর আমাদের দিতে পারেন। লেখা পাঠানোর ঠিকানা probash@bdnews24.com। সাথে ছবি দিতে ভুলবেন না যেন!