পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

প্রধানমন্ত্রী যা করতে বলবেন, তাই আমাদের জন্য ‘আইন’: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

  • নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-11-04 01:02:16 BdST

bdnews24

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে নির্দেশনা দেবেন, বিনা প্রশ্নে তাই মানতে কর্মকর্তাদের বলেছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে বাংলাদেশ দূতাবাসে এক মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন বলে প্রতিমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী মুরাদ বলেন, “আমাদের কণ্ঠ যেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কথা ও চিন্তার বহিঃপ্রকাশ হয়। বঙ্গবন্ধু ও তার সুযোগ্য উত্তরসূরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গৃহীত কোনো সিদ্ধান্ত বা নির্দেশ বিষয়ে আমাদের মনে যেন কোনো প্রশ্ন না থাকে। কারণ, উনি আমাদের চেয়ে সব বিষয়ে বেশি জানেন এবং বেশি ভেবেই সিদ্ধান্ত দেন, নির্দেশনা দেন। 

“জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান যা যা বলেছেন, তাই আমাদের জন্য আইন এবং প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা যা যা করতে বলবেন, তাই আমাদের জন্য আইন ও অবশ্য পালনীয়।”

দূতাবাসের কর্মকর্তাদের দুর্নীতির বিষয়ে সবসময় সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “বিশেষ করে মানি লন্ডারিং বিষয়ে। কোনোভাবেই মানি লন্ডারিং বা টাকা পাচার হতে দেওয়া যাবে না।”

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সাম্প্রদায়িক হামলার বিষয়ে মুরাদ বলেন, “৭১ এর পরাজিত শক্তির বংশধরেরা এখনও সক্রিয়, তাদের ষড়যন্ত্র এখনও চলমান। এই ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিকতায় এই হামলা ও অগ্নিসংযোগ পরিচালিত হয়েছে।”

বঙ্গবন্ধু প্রণীত সংবিধানে ফিরে যাওয়ার উপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, “প্রয়োজনে সাম্প্রদায়িক বিষবাষ্পকে সমূলে উৎপাটন করার জন্য আমরা ‘৭২ এ সংবিধানে ফিরে যাব।

“সংবিধানের ৫ম সংশোধনী জারি করে জেনারেল জিয়া রাষ্ট্রীয় মূলনীতি থেকে ‘ধর্মনিরপেক্ষতা ও বাঙালি জাতীয়তাবাদ’ বাতিল করেছিলেন, ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দল গঠনের উপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছিলেন, সংবিধানের শুরুতে ‘বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম’ যোগ করেন এবং জেনারেল জিয়ার পদাঙ্ক অনুসরণ করে আরেক উর্দিধারী জেনারেল এরশাদ ৮ম সংশোধনীর মাধ্যম ইসলামকে ‘রাষ্ট্রধর্ম’ ঘোষণা করেছিলেন।”

প্রবাস পাতায় আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাস জীবনে আপনার ভ্রমণ,আড্ডা,আনন্দ বেদনার গল্প,ছোট ছোট অনুভূতি,দেশের স্মৃতিচারণ,রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক খবর আমাদের দিতে পারেন। লেখা পাঠানোর ঠিকানা probash@bdnews24.com। সাথে ছবি দিতে ভুলবেন না যেন!