করোনাভাইরাস: টোলারবাগের ইমামের মৃত্যুর গুজব

  • শেহাজ সিন্ধু, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-04-06 22:30:43 BdST

bdnews24

রাজধানীর মিরপুরের টোলারবাগের একটি মসজিদের ইমাম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলে যে ‘খবর’ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়েছে তা গুজব।

উত্তর ও দক্ষিণ টোলারবাগে যে তিনটি মসজিদ আছে, তার তিনজন ইমামই সুস্থ আছেন বলে মসজিদ সংশ্লিষ্টরা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন।  

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে উত্তর টোলারবাগের দুই বৃদ্ধের মৃত্যুর পর গত ২২ মার্চ রাত থেকে উত্তর টোলারবাগ এলাকা আংশিক ‘লকড ডাউন’ অবস্থায় রয়েছে।

সোমবার বিকালে ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়া এক পোস্টে বলা হয়, “মীরপুর, টোলারবাগ মসজিদের ইমাম সাহেব কিছুক্ষণ আগে মারা গেছেন। করোনা আক্রান্ত হয়ে তিনি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।”

উত্তর টোলারবাগের দারুল ইহসান জামে মসজিদের ইমাম মোজাফফর আহমেদ নিজেই টেলিফোনে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেছেন, তিনি সুস্থ আছেন। মৃত্যুর ওই গুজব তিনি নিজেও শুনেছেন।

“কে, কেন, কীভাবে গুজব ছড়ালো আমার কোনো ধারণা নাই। মাগরিবের নামাজের পর প্রথম ওই কথা শুনলাম। দুয়েকজন আমার পরিবারের কাছে ফোন দিয়েও খোঁজ নিয়েছে।”

দক্ষিণ টোলারবাগে দুটি মসজিদ- একটি দক্ষিণ টোলারবাগ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, অন্যটি খানকায়ে মসুরিয়া জামে মসজিদ।

খানকায়ে মসুরিয়া জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি আবদুল কাদের চৌধুরী জানান, গত ১৫ দিন ধরে তাদের মসজিদে জমায়েতে নামাজ বন্ধ। তবে মুয়াজ্জিন আর খাদেমদের নিয়ে ইমাম মুফতি জিয়াউল হক সেখানেই নামাজ পড়েন, সোমবার মাগরিবের ওয়াক্তেও পড়েছেন।

আর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম মুফতি মাসুম বিল্লাহও সুস্থ আছেন বলে ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি রাইসুল হুদা জানান।

করোনাভাইরাসে উত্তর টোলারবাগের যে দুই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে, তারা পাশাপাশি ভবনে থাকতেন। তাদের একজন ছিলেন দারুল ইহসান জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সেক্রেটারি। ওই মসজিদেই তারা নামাজ পড়তেন।

২২ মার্চ রাতে ওই এলাকা লকডাউন করে দেওয়ার পর দারুল ইহসান জামে মসজিদ ও খানকায়ে মসুরিয়া জামে মসজিদও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

ওই দুই বৃদ্ধের সংস্পর্শে আসা আরও ছয়জনের মধ্যে ভাইরাস সংক্রমণের তথ্য পাওয়ার পর ওই এলাকাকে একটি ‘ক্লাস্টার’ হিসেবে বিবেচনা করছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

মূলত এসব কারণেই গুজব ডালপালা ছড়িয়েছে বলে মন্তব্য করে উত্তর টোলারবাগ বাড়ি মালিক সমিতির সভাপতি শুভাশিস বিশ্বাস বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এটা কোনোভাবেই কাম্য হতে পারে না।”