২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

লাওসকে আবার হারিয়েই পরের ধাপে উঠতে চায় বাংলাদেশ

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-06-10 17:39:23 BdST

bdnews24

কাতার বিশ্বকাপের এশিয়ার বাছাইপর্বের দ্বিতীয় পর্বে উঠতে ড্রই যথেষ্ট বাংলাদেশের জন্য। তবে নিজেদের মাঠে ফিরতি পর্বেও জয় চান জেমি ডে।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় মুখোমুখি হবে দুই দল। প্রথম পর্বে লাওসের মাঠে রবিউল হাসানের একমাত্র গোলে জিতেছিল বাংলাদেশ।

বাংলাদেশকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয় পর্বে উঠতে হলে কমপক্ষে ২-১ গোলে জিততে হবে লাওসকে। প্রতিপক্ষ আক্রমণাত্মক খেলবে ধরে নিয়ে আগের দিনের সংবাদ সম্মেলনে নিজের লক্ষ্য জানান বাংলাদেশ কোচ।

“আমরা জানি, ওরা আমাদের আক্রমণ করবে। কেননা, ওদের গোল দরকার। কিন্তু আমি মনে করি, আমাদের নিজের খেলা নিয়ে ভাবতে হবে। প্রথম লেগ জিতে আত্মতুষ্টিতে ভুগলে চলবে না। ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করেছে। আমরা জয়ের জন্য নামব; ড্রয়ের জন্য খেলব না।”

প্রতিপক্ষের মাঠে দলের প্রথমার্ধের খেলা নিয়ে অতৃপ্তির কথা দেশে ফিরে বলেছিলেন ডে। শিষ্যদের নার্ভাস না হওয়ার বার্তা দিয়ে এই ইংলিশ কোচ জানালেন, শুরু থেকে প্রতিপক্ষকে চাপ দেওয়ার পরিকল্পনার কথাও।

“নিশ্চিত করতে হবে আমরা ওদের মাঠে প্রথমার্ধে যেভাবে নার্ভাস হয়ে গিয়েছিলাম, সেটা যেন এখানে না হই। আমরা উপলক্ষ্যটা উপভোগ করতে চাই এবং ভালো পারফর্ম করে জিততে চাই।”

“আমরা এগিয়ে থাকার এবং নিজেদের মাঠে, চেনা দর্শকের সামনে খেলার সুবিধাটা কাজে লাগাতে চাই। আমি মনে করি, প্রথমার্ধেই ওদেরকে চাপ দিতে হবে এবং দ্রুত গোল করতে হবে।”

দুই দলের সর্বশেষ তিন দেখায় বাংলাদেশের জয় দুটি, ড্র একটি। তবে পরিসংখ্যান নিয়ে ভাবছেন না লাওস কোচ ভি সুন্দ্রামুর্তি। প্রথম পর্বের ভুল শুধরে দল জয়ের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টাই করবে বলে জানালেন তিনি।

“ওই হারের পর আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি। ভুলগুলো খুঁজে বের করেছি। শুধরেও নিয়েছি এবং আমরা চাই এখানে জিতে বাছাই পেরুতে।”

“প্রথম পর্বের ম্যাচে আমাদের প্রথমার্ধেই গোল পাওয়া উচিত ছিল। কিন্তু ফুটবল খুব মজার খেলা। কখনও কখনও আপনি প্রাপ্যটা পাবেন না।”

বাংলাদেশের কোনো নির্দিষ্ট খেলোয়াড়কে নিয়ে আলাদা কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানান সুন্দ্রামুর্তি।

“বাংলাদেশ উন্নতি করছে। তাদের দলে ভালো গতিসম্পন্ন খেলোয়াড় আছে। লম্বা থ্রোয়িং করার মতো খেলোয়াড়ও আছে। আমাদের পরিকল্পনা নির্দিষ্ট কোনো খেলোয়াড়কে নিয়ে নয়, প্রতিপক্ষ দলের সবাইকে নিয়ে।”

বাছাইয়ের প্রথম পর্ব পেরুনো ছয় দল এবং র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা ৩৪ দল নিয়ে হবে দ্বিতীয় পর্ব। সেখানে আট গ্রুপে খেলা হবে। দ্বিতীয় পর্ব নিয়ে এখনই ভাবছেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূইয়া।

“ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবছি না। শুধু আগামীকালের ম্যাচ নিয়ে ভাবছি আমি। দলের সবাই জানে এটা গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ এবং আমরা যদি প্রথম পর্ব পেরুতে না পারি, তাহলে দুই-তিন বছর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে পারব না। সবাই অনুপ্রাণিত আছে; নতুন করে তাদের অনুপ্রেরণা দেওয়ার প্রয়োজন নেই।”


ট্যাগ:  ফুটবল  বাংলাদেশ