ভারসাম্যপূর্ণ শেখ রাসেল, তারুণ্যে আস্থা মোহামেডানের

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-11-19 21:21:52 BdST

গত প্রিমিয়ার লিগে তৃতীয় হওয়া শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র এবারও ভারসাম্যপূর্ণ দল গড়েছে। নিচের দিকে থাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ঘুরে দাঁড়িয়ে ঐতিহ্য ফেরাতে আস্থা রাখছে তরুণদের ওপর।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে (বাফুফে) মঙ্গলবার দলবদলের কার্যক্রম সেরে নেয় মোট চার দল-বসুন্ধরা কিংস, পুলিশ এফসি, শেখ রাসেল ও মোহামেডান।

শেখ রাসেলকে এবার বড় ধাক্কা দিয়েছে বসুন্ধরা। নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার ইয়াসিন খান, বিশ্বনাথ ঘোষ ও ফরোয়ার্ড বিপলু আহমেদকে দলে টেনেছে লিগ চ্যাম্পিয়নরা।

গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা ছাড়া বর্তমান জাতীয় দলে খেলা কোনো ফুটবলার নেই শেখ রাসেলে। তবে বিদেশিদের এনে ভারসাম্য ধরে রাখার চেষ্টা করেছে দলটি। নাইজেরিয়ার রাফায়েল ওডোইন ও অ্যালিসন উডোকা এবং উজবেকিস্তানের আজিজভ আলিশেরকে রেখে দিয়েছে তারা। দলে টেনেছে গত মৌসুমে চেন্নাইন এফসিতে খেলা অস্ট্রেলিয়ার মিডফিল্ডার ক্রিস্টোফার হের্ড ও তিমুর লেস্তের ফরোয়ার্ড পেদ্রো হেনরিক কোর্তেস অলিভিয়েরাকে। কোচ সাইফুল বারী টিটুও জানালেন ‘ব্যালেন্সড দল’ গড়ার কথা।

“ইয়াসিন, বিশ্বনাথ ও বিপলু-এই তিন জনের বিকল্প নিয়েই আমাদের বেশি কাজ করতে হয়েছে। আমি মনে করি গতবারের চেয়ে এবারের দলটি ব্যালেন্সড হয়েছে। গতবারের চেয়ে ভাল করতে পারলেই আমাদের লক্ষ্য পূরণ হবে।”

শেখ রাসেল দল: আশরাফুল ইসলাম রানা, সবুজ দাস, সারোয়ার জাহান, ফয়সাল ইসলাম, নুর মোহাম্মদ, ইয়ামিন আহমেদ, মোহাম্মদ খালেকুরজ্জামান, রাশেদুল আলম মনি, আসাদুজ্জামান বাবলু, হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস, মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, সোহেল রানা, উত্তম কুমার বণিক, হাবিবুর রহমান নোলক, তকলিস আহমেদ, শেখ গালিব নেওয়াজ, খন্দকার আশরাফুল ইসলাম, দিদারুল ইসলাম, মোহাম্মদ ইলিয়াস, নাইমুদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, রিফাত হোসেন, আহসানুর রহমান, চিন্ময় দাস, রাফায়েল ওডোইন, এলিসন উডোকা, ক্রিস্টোফার হের্ড, পেদ্রো হেনরিক কোর্তেস অলিভিয়েরা ও আজিজভ আলিশের।

মোহামেডানে নতুনই ২০ জন

ক্যাসিনো কাণ্ডে কোণঠাসা হয়ে পড়া মোহামেডান শঙ্কা কাটিয়ে দলবদল সেরে নিয়েছে। ঐতিহ্য ফেরাতে তরুণ ফুটবলারদের দিকেই ঝুঁকেছে দলটি। ৩০ জনের দলে তাই নতুন খেলোয়াড়ই ২০ জন! অস্ট্রেলিয়ান কোচ শন লিনের উপর আস্থা রেখেছে মোহামেডান। গত বছর খেলা মালির ফরোয়ার্ড সুলেমানে দিয়াবাতে এবং জাপানের মিডফিল্ডার উরিউ নাগাতাকে রেখে দিয়েছে তারা। স্থানীদের মধ্যে আটজনকে রেখে দিয়েছে দলটি।

তরুণ দল নিয়ে ঐতিহ্য ফেরানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন ক্লাবের স্থায়ী সদস্য মোস্তাকুর রহমান।

“আমরা মোহামেডানের ক্রান্তিলগ্নে এক হয়েছি ক্লাবের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে। মোহামেডানকে শেষ হতে দেয়া যাবে না। আমরা সবাই মোহামেডানকে এগিয়ে নেব এবং হারানো অবস্থান ফিরিয়ে আনব।”

দলের ম্যানেজার ও সাবেক ফরোয়ার্ড ইমতিয়াজ আহমেদ নকীবও বর্তমান দল নিয়ে আশাবাদী।

“আমরা খুব অল্প সময়ে এই দলটি গঠন করেছি। আশা করছি এই দল নিয়েই সেরা তিনের জন্য লড়ব।”

মোহামেডান দল: হীমেল, ওসমানে বার্থে, স্ট্যানফি আমাডি, অনিক হোসেন, হাবিবুর রহমান সোহাগ, শ্যামল ব্যাপারী, আমিনুর রহমান সজীব, সুলেমানে দিয়াবাতে, ইউসুফ সিফাত, শাহেদ হোসেন, আহসান হাবিব বিপু, অনিক ঘোষ, মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান, ওবি মোনেকে, মোহাম্মদ মিথু, ওসাই মং মারমা, উরিউ নাগাতা, রাকিব খান ইভান, ফারাদ মনা, জসিম উদ্দিন, আবিদ হোসেন, মাসুদ রানা, হুমায়ন কবির, সোহানুর রহমান, রুমন হোসেইন, কামরুল ইসলাম, আমির হাকিম বাপ্পী, মোহাম্মদ সুজন, ইমন খান ও সাদেকুজ্জামান ফাহিম।


ট্যাগ:  বাফুফে  ঘরোয়া ফুটবল  মোহামেডান  শেখ রাসেল