‘আমি মারাদোনা, আমি গোল করি, ভুলও করি’

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-11-26 11:09:02 BdST

bdnews24

দিয়েগো মারাদোনা মানেই প্রবল কৌতূহল, দুর্নিবার আকর্ষণ। মারাদোনা মানেই খবর। ফুটবল পায়ে যেমন তিনি প্রতিপক্ষকে ভেঙেচুড়ে এগিয়ে গেছেন, তেমনি মাঠের বাইরে ভাবনার প্রকাশেও তার লাগাম থাকত সামান্যই। আচরণে আর কণ্ঠে নিজেকে মেলে ধরেছেন নিজের মতো করেই।

নানা সময়েই তার মন্তব্য আলোচনার খোরাক জুগিয়েছে প্রবল। মারাদোনার অসংখ্য স্মরণীয় উক্তির কিছু তুলে ধরা হলো এখানে।

দারিদ্রে বেড়ে ওঠা নিয়ে :

“ দারিদ্র খুব খারাপ, খুব কঠিন। এর সব রূপ দেখা হয়ে গেছে আমার। ইচ্ছে করে অনেক কিছু পেতে, কিন্তু সেসব কেবল স্বপ্নেই সম্ভব! খুব ভালো হতো, যদি দুনিয়ায় সাম্য থাকত…যাদের অনেক আছে, তাদের একটু কম থাকত আর যাদের কম আছে, তাদের আরেকটু বেশি থাকত।”

১৯৮৬ বিশ্বকাপের ‘হ্যান্ড অব গন্ড’ গোল নিয়ে :

“ গোলটি হয়েছে খানিকটা দিয়োগোর হেড থেকে এবং খানিকটা ঈশ্বরের হাত দিয়ে।”

১০ নম্বর জার্সি নিয়ে :

“ যা কিছুই হোক না কেন, দায়িত্ব যারই থাকুক না কেন, ১০ নম্বর জার্সি সবসময় কেবল আমারই থাকবে।”

‘পৃথিবী যতদিন, মারাদোনা ততদিন’

মারাদোনার মৃত্যুতে কাঁদছে ফুটবলও

‘ঘৃণা ভুলে জাদুকর মারাদোনাকে মনে রাখো’  

'যদি মরে যাই…'

১৯৯৪ বিশ্বকাপে ডোপ পরীক্ষা ধরা পড়া নিয়ে :

“ তারা আমার পা জোড়া কেটে ফেলেছে। আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেবে না আমাকে। আমি ড্রাগ নেইনি। জানি না, কী হয়েছে। আমি দিব্বি করে বলছি, ড্রাগ ব্যবহার করিনি, কিন্তু তাদের কাছে এসবের মূল্য নেই।”

নিজের বিশ্বাস নিয়ে :

“ আমি সৌভাগ্যবান, তবে সেটি কেবল ঈশ্বরের ইচ্ছে বলেই। ইশ্বরই আমাকে ভালো খেলান। জন্মগতভাবেই তিনি আমাকে এই ক্ষমতা দিয়েছেন। এজন্যই আমি প্রতিবার মাঠে প্রবেশের সময় ক্রস চিহ্ন আঁকি। এটা না করা মানে তার প্রতি অকৃতজ্ঞতা।”

নিজের মেয়েদের নিয়ে :

“ আমার মেয়েদের ছেলেবন্ধুরা যদি ওদেরকে দুই-তিনবার কাঁদায়, ওদের দুর্ঘটনায় পড়তে হবে।”

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে নিয়ে :

“ খেয়াল করেছেন, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো কতটা চটকদার? সে গোল করে, আপনার কাছে শ্যাম্পুও বিক্রি করে।”

মারাদোনার মৃত্যুতে ১০ নম্বর জার্সি বন্ধের আহ্বান  

জানা-অজানা মারাদোনা

মারাদোনা: প্রতিভা, মোহ, মাদক, দ্রোহ আর রোমাঞ্চ

নিজের ভুলগুলো নিয়ে :

“ বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর ও স্বাস্থ্যকর খেলা ফুটবল। আমার ভুলের মূল্য ফুটবলের দেওয়া উচিত নয়। এটা তো বলের ভুল নয়!”

গোল করা নিয়ে :

“ পেনাল্টি বক্সে পৌঁছানোর পর গোলে শট না নেওয়া মানে নিজের বোনের সঙ্গে নাচতে যাওয়া।”

ফুটবল ম্যানেজমেন্ট নিয়ে :

“ ফুটবল খেলা নিয়ে আমার দুর্ভাবনা নেই, তবে খেলার চারপাশের লোকদের নিয়ে আছে। কিছু কর্তা আছে, যারা ক্লাবের জন্য কাজ করার চেয়ে একটি ছবি তোলার জন্য বেশি পরিশ্রম করে।”

ড্রাগ নেওয়া নিয়ে :

“ শুরুর দিকে ড্রাগ আমাকে উন্মাদনায় ভাসাত। একটা চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ের মতো যেন। মনে হতো, ‘ আজকে চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছি, ভবিষ্যৎ ভেবে কী হবে!”

পেলে ও প্যাশন নিয়ে :

“ পেয়ে যদি বিটোফেন হন, আমি তাহলে একাই ফুটবলের রন উড, কিথ রিচার্ডস ও বোনো। কারণ আমি ছিলাম ফুটবলের আবেগজুড়ে।”

মারাদোনার চিরবিদায়

মারাদোনার জাদুকরী ৫ গোল  

‘একদিন স্বর্গে একসঙ্গে ফুটবল খেলব’, মারাদোনার মৃত্যুতে পেলে  

২০০৪ সালে এক সপ্তাহের আইসিইউ জীবন নিয়ে :

“ একটি সুতোয় ঝুলে ছিলাম যেন। একটি টানেলে (মৃত্যু) প্রবেশ করতে শুরু করেছিলাম । কিন্তু বোকা জুনিয়র্সের সমর্থকরা আমাকে টেনে বের করে আনে। তাদের পেছনে ছিল রিভার প্লেট, রেসিং, সান লরেন্সো, হুরাকান, ইন্দিপেন্দিয়েন্তের সমর্থকেরা।”

নিজের জীবন নিয়ে :

“ আমি মারাদোনা, আমি ভুল করি, গোলও করি। কিন্তু আমি সব নিতে পারি। সবার সঙ্গে লড়াই করার মতো যথেষ্ট চওড়া কাঁধ আমার আছে।”


ট্যাগ:  মারাদোনা  আর্জেন্টিনা