পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

১০ জনের সিটিকে হারিয়ে দিল ব্রাইটন

  • স্পোর্টস ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-19 02:02:15 BdST

প্রথমার্ধে দুই মিনিটের ভেতরে গোল, দ্বিতীয়ার্ধে তিন মিনিটে। প্রায় পুরোটা সময় একজন কম নিয়ে খেলেও ম্যাচ তখন ম্যানচেস্টার সিটির নিয়ন্ত্রণে। এরপর জেগে উঠল ব্রাইটন এন্ড হোভ অ্যালবিয়ন। দলটির সামনে আর দাঁড়াতেই পারল না এরই মধ্যে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতে নেওয়া পেপ গুয়ার্দিওলার দল।

ঘরের মাঠে ৮ হাজার দর্শকের সামনে বুধবার ৩-২ গোলে জিতেছে ব্রাইটন। এক সময়ে ২-০ গোলে পিছিয়ে ছিল তারা। সবশেষ ৩ ম্যাচে এটি সিটির দ্বিতীয় হার।

প্রতিপক্ষের মাঠে শুরুটা দারুণ করে সিটি। এগিয়ে যায় মাত্র দ্বিতীয় মিনিটে। রিয়াদ মাহরেজের চমৎকার ক্রসে দূরের পোস্টে ইলকাই গিনদোয়ানের হেড জড়ায় জালে। গুয়ার্দিওলার কোচিংয়ে এ নিয়ে দশমবার প্রিমিয়ার লিগে দুই মিনিটের ভেতর জালের দেখা পেল সিটি।

নবম মিনিটে বড় একটা ধাক্কা খায় সিটি। সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন জোয়াও কানসেলো। মাঝমাঠ থেকে আসা একটি বলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ব্রাইটন ফরোয়ার্ডকে ফাউল করেন এই পর্তুগিজ ডিফেন্ডার। 

সিটি ১০ জনের দলে পরিণত হওয়ার পর জমে ওঠে ম্যাচ। প্রথমার্ধের বাকি সময়ে দুই দলই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ করে যায়। কিন্তু গোলের খুব ভালো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি কেউই।

দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে দুর্দান্ত এক গোলে ব্যবধান বাড়ান ফিল ফোডেন। মাঝমাঠে নিজেদের অর্ধ থেকে বল নিয়ে দারুণ গতিতে এগিয়ে যান ইংলিশ মিডফিল্ডার। পায়ের কারিকুরিতে প্রতিপক্ষের কাউকেই দেননি বলের নাগাল পেতে। ডি-বক্সে গিয়ে চমৎকার আড়াআড়ি শটে খুঁজে নেন জাল।

চমৎকার ফিনিশিংয়ে দুই মিনিট পরেই ব্যবধান কমান লেয়ান্দ্রো ত্রোসার। মাঝমাঠে বল পেয়ে ডিফেন্ডারদের এগিয়ে ডি-বক্সে পৌঁছে যান এই বেলজিয়ান মিডফিল্ডার। সেখানে গোলরক্ষক ছাড়াও সিটির পাঁচ জন তার শট ব্লক করার চেষ্টায় ছিল। ঠাণ্ডা মাথায় সবাইকে এগিয়ে কাছের পোস্ট দিয়ে জাল খুঁজে নেন তিনি।

এই গোলের পর উজ্জীবিত হয়ে উঠে ব্রাইটন। সারাক্ষণ উৎসাহ দিয়ে যাওয়া দর্শকদের হতাশ করেনি দলটি।

একের পর এক আক্রমণে কাঁপিয়ে দেয় সিটিকে। ৭২তম মিনিটে পাসকেল গ্রসের চমৎকার ক্রসে দুর্দান্ত হেড সমতা আনেন অ্যাডাম ওয়েবস্টার। চলতি আসরে এটাই এই ইংলিশ ডিফেন্ডারের প্রথম গোল।

সাত মিনিট পর জয়সূচক গোলটি করে ব্রাইটন। ড্যান বার্নের প্রথম শট কোনোমতে ফিরিয়ে দেন সিটি গোলরক্ষক এদেরসন। ফিরতি বলে জাল খুঁজে নেন স্বাগতিক ডিফেন্ডার।    

যোগ করা সময়ে গাব্রিয়েল জেসুসের সামনে এসেছিল সমতা ফেরানোর সুযোগ। কিন্তু পারেননি ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার। এগিয়ে এসে তার চেষ্টা ব্যর্থ করে দেন ব্রাইটন গোলরক্ষক।

৩৭ ম্যাচে ২৬ জয় ও ৫ ড্রয়ে ৮৩ পয়েন্ট সিটির। দিনের অন্য ম্যাচে, ফুলহ্যামের বিপক্ষে ১-১ ড্র করা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ৭১ পয়েন্ট নিয়ে আছে দুই নম্বরে।

সিটিকে হারিয়ে ৪১ পয়েন্ট নিয়ে ১৫ নম্বরে উঠে এসেছে ব্রাইটন।