পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

মুক্তিযোদ্ধা সংসদে ধরাশায়ী আবাহনী

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-18 21:08:43 BdST

bdnews24
গোলের পর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রের ফুটবলারদের উল্লাস।

আবাহনী নেমেছিল টানা ছয় লিগ ম্যাচ অপরাজিত থাকার আত্মবিশ্বাস নিয়ে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রের সঙ্গী ছিল টানা আট ম্যাচের জয় খরা। দুই দলের লড়াইয়ে আবাহনীকে উড়িয়ে খরা কাটাল মুক্তিযোদ্ধা সংসদ।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে রোববার প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচটি ৪-২ গোলে জিতেছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ। প্রথম লেগের দেখায় ৪-১ ব্যবধানে জিতেছিল আবাহনী।

গত ফেব্রুয়ারিতে সবশেষ বসুন্ধরা কিংসের কাছে হেরেছিল আবাহনী। এবারের হারে লিগ টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে থাকা অনিশ্চিত হয়ে গেল তাদের। ১৮ ম্যাচে ৩৬ পয়েন্ট মারিও লেমোসের দলের। দুই ম্যাচ কম খেলা শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে।

আগের জয়টি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ পেয়েছিল গত ফেব্রুয়ারিতে পুলিশ এফসির বিপক্ষে। ১৭ ম্যাচে ৩ জয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে ১১তম স্থানে আছে তারা।

দশম মিনিটে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জাপানি মিডফিল্ডার ইউসুকে কাতোর শট অল্পের জন্য ক্রসবারের উপর দিয়ে যায়। আট মিনিট পর দলটি ঠিকই তুলে নেয় গোল। বাঁ দিক দিয়ে একক প্রচেষ্টায় আক্রমণে ওঠা বাল্লো ফামুসার শট শহীদুল আলম সোহেল ফেরালেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি। তিন ডিফেন্ডারের ফাঁক গলে বেরিয়ে টোকায় লক্ষ্যভেদ করেন ইব্রাহিম আবু ডিকো।

সানডে চিজোবা, কেরভেন্স ফিলস বেলফোর্টে সাজানো আবাহনীর আক্রমণভাগের খেলায় ছিল না চেনা ধার। ৩২তম মিনিটে চিজোবার শট পোস্টের বাইরে যায়। দুই মিনিট পর এই নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড ডজ দিয়ে এক ডিফেন্ডারকে পেছনে ফেলে শট নিলেও ঝাঁপিয়ে পড়ে ফেরান মোহাম্মদ রাজীব।

৪৪তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে নেয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ। ডান দিক থেকে ডিকোর লম্বা ক্রসে কোত দি ভোয়ার ফরোয়ার্ড ফামুসার দারুণ হেডে পরাস্ত সোহেল। সামনে থাকা ডিফেন্ডার মাসিহ সাইঘানি গড়তে পারেননি কোনো প্রতিরোধ।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে চিজোবার পেনাল্টি গোলে ঘুরে দাঁড়ায় আবাহনী। ডি-বক্সে রাফায়েল আগুস্তোকে পেছন থেকে উজ্জ্বল হোসেন ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

দ্বিতীয়ার্ধে আধিপত্য ছিল মুক্তিযোদ্ধার। ৬৩তম মিনিটে স্পট কিক থেকে ব্যবধান বাড়ান ফামুসা। বক্সে ডিকোকে পেছনে থেকে মোহাম্মদ হৃদয় ফাউল করলে পেনাল্টি পায় তারা।

পাঁচ মিনিট পর রায়হানের লম্বা থ্রোয়ে সাইঘানির হেড ক্রসবারে লেগে প্রতিহত হয়। ৭৬তম মিনিটে রুবেল মিয়ার ক্রসে গোলমুখ থেকে বেলফোর্টের হেড বাইরে যায়।

৮৪তম মিনিটে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে দেখে শুনে জায়গা করে নিয়ে নিখুঁত শটে লক্ষ্যভেদ করেন বদলি নামা সারোয়ার জামান নিপু। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জয় নিশ্চিত হয়ে যায় অনেকটাই।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে রায়হানের ‘ট্রেডমার্ক’ লম্বা থ্রো ইনে ফয়সাল আহমেদ শীতলের হেডে হারের ব্যবধান কমায় আবাহনী।

দিনের অন্য ম্যাচে চিনেডু ম্যাথিউয়ের জোড়া গোলে বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে জিতে চট্টগ্রাম আবাহনী। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ২২ ম্যাচ পর প্রথম হারের স্বাদ পেলেও লিগ শিরোপা পথেই আছে কিংস। ১৮ ম্যাচে ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে তারা শীর্ষে।

১৮ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে থাকা চট্টগ্রাম আবাহনীর লিগ টেবিলে সেরা চারে থাকা উজ্জ্বল হলো আরও। তাদের চেয়ে ১ পয়েন্ট বেশি নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে মোহামেডান।