পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে মিলানকে হারাল লিভারপুল

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-09-16 03:02:02 BdST

নিজেদের ভুলে শুরুতে পিছিয়ে পড়া এসি মিলান বিরতির আগে তিন মিনিটের মধ্যে দুই গোল করে জমিয়ে তুলল লড়াই। কিন্তু আট বছর পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ফেরা ইতালিয়ান দলটি ব্যবধান ধরে রাখতে পারল না। দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে জয় তুলে নিল লিভারপুল।

অ্যানফিল্ডে বুধবার রাতে ‘বি’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ৩-২ গোলে জিতেছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ার পর রেবিচ ও ব্রাহিম দিয়াসের গোলে এগিয়ে যায় মিলান। প্রথমার্ধে পেনাল্টি মিস করা মোহামেদ সালাহ টানেন সমতা। পরে স্বাগতিকদের জয়সূচক গোলটি করেন জর্ডান হেন্ডারসন।

পুরো ম্যাচে বল দখলে এগিয়ে থেকে আক্রমণে আধিপত্য করা লিভারপুল গোলের জন্য শট নেয় মোট ২৩টি, যার ৮টি লক্ষ্যে। মিলানের ৭ শটের ৪টি লক্ষ্যে ছিল।

চোটের কারণে তারকা ফরোয়ার্ড জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচকে পায়নি মিলান। শুরু থেকে তাদের চেপে ধরে লিভারপুল। নবম মিনিটে সৌভাগ্যসূচক গোলে এগিয়ে যায় তারা। সালাহর সঙ্গে বল দেওয়া-নেওয়া করে ডি-বক্সে ঢুকে ট্রেন্ট অ্যালেকজ্যান্ডার-আর্নল্ডের নেওয়া শট প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার ফিকায়ো তোমোরির পায়ে লেগে জালে জড়ায়।

একটু পরই দ্বিগুণ হতে পারত ব্যবধান। কিন্তু স্পট কিকে গোল করতে ব্যর্থ হন সালাহ, তার শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক মাইক মিয়াঁ। ফিরতি বলে দিয়োগো জটার প্রচেষ্টাও ফেরান তিনি। অ্যান্ড্রু রবার্টসনের শট ডি-বক্সে মিলানের ইসমায়েলের হাতে লাগলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি।

৩০তম মিনিটে আবারও মিলানের ত্রাতা মিয়াঁ। এবার সালাহর শটে ক্রসবারের ওপর দিয়ে বল পাঠান এই ফরাসি গোলরক্ষক।

প্রথম ৪০ মিনিটে গোলের উদ্দেশে মাত্র একটি শট নিতে পারা মিলান বিরতির আগে দ্রুত দুই গোল করে।

৪২তম মিনিটে গোছালো এক আক্রমণ থেকে সমতা টানেন রেবিচ। ডি-বক্সের সামনে থেকে সতীর্থের পাসে ডান পায়ের শটে আলিসনকে ফাঁকি দেন তিনি। পরের গোলটি করেন দিয়াস। তার শট গোললাইনে ডাইভ দিয়ে অ্যালেকজ্যান্ডার-আর্নল্ড ঠেকালেও বিপদমুক্ত হয়নি। ফাঁকা জালে বল পাঠান রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ধারে মিলানে খেলা দিয়াস।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই লিভারপুলের জালে আবার বল পাঠায় মিলান, তবে এবার অফসাইডের পতাকা তোলেন লাইন্সম্যান। পরক্ষণেই সমতা ফেরান সালাহ। দিভোগ ওরিগির লব থেকে ভলিতে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এই তারকা ফরোয়ার্ড।

৬৯তম মিনিটে আবার এগিয়ে যায় লিভারপুল। কর্নার হেডে ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেনি মিলানের ডিফেন্ডার। বক্সের মাথা থেকে বুলেট গতির শটে ঠিকানা খুঁজে নেন অধিনায়ক হেন্ডারসন। বাকি সময়ে আর পরিষ্কার সুযোগ তৈরি করতে পারেনি কেউ।

গ্রুপের আরেক ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করেছে আতলেতিকো মাদ্রিদ ও পোর্তো।