পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

‘পাগলাটে ম্যাচটি নিয়ে অনেক দিন কথা হবে’

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-25 17:38:53 BdST

আর যাই হোক, ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে গুঁড়িয়ে দেওয়ার কথা অন্তত ভাবেননি ইয়ুর্গেন ক্লপ। কিন্তু কেইতা-জটা-সালাহরা সেটাই করেছেন। ম্যাচ শেষের প্রতিক্রিয়ায় লিভারপুল কোচ বললেন, এমন জয় ‘অপ্রত্যাশিত’ তার কাছে। পাগলাটে এই ম্যাচ নিয়ে মানুষ অনেক দিন কথা বলবে বলেও মনে করেন ক্লপ।

প্রতিপক্ষের মাঠে রোববার প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচটি ৫-০ গোলে জেতে লিভারপুল। পঞ্চম মিনিটে নাবি কেইতা দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন দিয়োগো জটা। পরে হ্যাটট্রিক উপহার দেন মোহামেদ সালাহ।

কেইতার ওই গোলের পর ম্যাচ থেকে একটু একটু করে ছিটকে যেতে থাকে ইউনাইটেড। রোনালদো-পগবাদের ঘুরে দাঁড়ানোর তেমন কোনো সুযোগই দেয়নি লিভারপুল। এমন ম্যাচ নিকট ভবিষ্যতে দেখা যাবে না বলে স্কাই স্পোর্টসে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মন্তব্য করেন ক্লপ।

“এটা আসলেই ভালো একটা দিন-বড় একটা দিন। ক্লাবের ইতিহাসে এই জয় ছোট একটা অধ্যায়। লোকে এটা নিয়ে ভবিষ্যতে কথা বলবে; কেননা, এমন ম্যাচ ভবিষ্যতে যদি কখনও হয়ও, অনেক দিনের মধ্যে যে হবে না তা নিশ্চিত।”

“ম্যাচটি নিয়ে আমি কী বলতে পারি? এটা কি আমি প্রত্যাশা করেছিলাম? না। এটা পাগলাটে ফল। এটা বিশেষ কিছু, কিন্তু আমরা এ জয় দিশেহারা হয়ে উদযাপন করব না। কেননা, প্রতিপক্ষের প্রতি শ্রদ্ধা আছে আমাদের।”

চেনা মাঠে, চেনা দর্শকের সামনে ইউনাইটেড ম্যাচ জুড়ে ছিল কোণঠাসা। দলটির আক্রমণভাগের প্রাণভোমরা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো ছিলেন কোঠরে বন্দী। এদিনসন কাভানি, পল পগবারাও পারেননি ছাপ রাখতে। প্রতিপক্ষের এমন দুর্দশায় সহমর্মী ক্লপও।

“কিছু কিছু মুহূর্তে আমরা ভাগ্যবান ছিলাম; ইউনাইটেডও তাদের সেরা অবস্থায় ছিল না।”

হ্যাটট্রিক করে দারুণ উচ্ছ্বাসিত সালাহ। তবে লিগ শিরোপা জয়ের পথটা যে ভীষণ কঠিন, ভালোমতোই জানা আছে তার। তাই বাস্তবের শক্ত জমিনে পা রাখছেন মিশরের এই ফরোয়ার্ড।

“আমার মতে, এখানে (ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে) ৫-০ গোলে জেতা দুর্দান্ত ব্যাপার। ম্যাচের আগেই আমরা জানতাম, যদি আমরা নিজেদের খেলা খেলতে না পারি, তাহলে ম্যাচটা আমাদের জন্য কঠিন হবে।”

“প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জিততে কী লাগে, সেটা আমরা জানি। দুই বছর আগে আমরা সেটা করেছিলাম…প্রাক মৌসুম থেকেই লিগ জয়ের ভাবনা আমাদের মাথায় আছে। আশা করি, আমরা লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব।”