পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

‘রোনালদোর ৮০০ গোলের রেকর্ড ভাঙতে দুই জীবন লাগবে’

  • স্পোর্টস ডেস্ক,  বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-12-03 17:38:02 BdST

অর্জনে ভরপুর ক্যারিয়ারে ব্যক্তিগত ও দলগতভাবে পেয়েছেন অসংখ্য সাফল্য। ক্লাব ও আন্তর্জাতিক ফুটবল মিলিয়ে ৮০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করে তাতে আরেকটি পালক যুক্ত করেছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। অসাধারণ এই কীর্তির পর পর্তুগিজ তারকাকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন সাবেক ফুটবলাররা।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বৃহস্পতিবার রাতে প্রিমিয়ার লিগে আর্সেনালের বিপক্ষে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ৩-২ গোলের জয়ের ম্যাচে এই কীর্তি গড়েন রোনালদো। দ্বিতীয়ার্ধে দলকে এগিয়ে নেওয়ার পথে ৮০০ গোলের ঠিকানায় পৌঁছেন তিনি। ২-২ সমতায় থাকা অবস্থায় আরেকটি গোল করে দারুণ জয় এনে দেন দলকে।

প্রিমিয়ার লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা অ্যালান শিয়েরার (২৬০ গোল) কুর্নিশ জানিয়েছেন রোনালদোর অর্জনকে। অ্যামাজন প্রাইম ভিডিওতে তিনি বলেন, প্রত্যাশার চাপকে সঙ্গী করে দিনের পর দিন ৩৬ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড যেভাবে নিজেকে ছাপিয়ে যাচ্ছেন তা প্রশংসার দাবিদার।

"আপনাকে তার খেলা উপভোগ করে ‘ওয়াও’ বলতে হবে এবং তাকে সাধুবাদ জানাতে হবে।”

"চূড়ায় পৌঁছানো খুব কঠিন, কিন্তু সেখানে নিজের জায়গা ধরে রাখাও কঠিন। প্রতিদিন সকালে উঠে আবার প্রস্তুত হতে হবে নিজের কাজটা করার জন্য এবং সারা বিশ্ব প্রতি সপ্তাহেই (ওই তারকার) পারফর্ম করতে দেখার জন্য তাকিয়ে থাকে। সে যা করেছে তা অসাধারণ।"

প্রিমিয়ার লিগের ষষ্ঠ সর্বোচ্চ গোলস্কোরার (১৭৫ গোল) ও সাবেক আর্সেনাল ফরোয়ার্ড থিয়েরি অঁরির মতে, রোনালদোর ৮০০ গোল ছাড়িয়ে যেতে তার ‘দুই জীবন’ লাগত।

ফুটবলের ইতিহাসে ক্যারিয়ার গোলের হিসেবে সব সেরাদের বেশ আগেই পেছনে ফেলেছেন রোনালদো। পেলের হিসেবে তার ৭৬৭ গোল পর্তুগাল অধিনায়ক ছাপিয়ে যান গত মার্চে। এরপর পেছনে ফেলেন ব্রাজিলের আরেক বিশ্বকাপ জয়ী তারকা রোমারিওর ৭৭২ গোলকে।

এই বছর আরও কয়েকটি রেকর্ড নিজের করে নেওয়ার পথে সবচেয়ে আলোচিত আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডও গড়েন রোনালদো। আর এবার পা রাখলেন নতুন চূড়ায়।

রোনালদো স্পোর্তিং লিসবন, ইউনাইটেড, রিয়াল মাদ্রিদ ও ইউভেন্তুসের হয়ে ৬৮৬ ক্লাব গোল করেছেন এবং জাতীয় দল পর্তুগালের জার্সিতে করেছেন ১১৫ গোল।

পুরুষদের ফুটবলে সবচেয়ে বেশি গোল কার, তা নিয়ে অবশ্য বিতর্কটা রয়ে গেছে। ব্রাজিল কিংবদন্তি পেলে ও রোমারিও উভয়ই বিভিন্ন সময়ে দাবি করেছেন, তাদের গোলসংখ্যা এক হাজারের বেশি। তবে প্রীতি ম্যাচের গোল বাদ দিলে তাদের গোলসংখ্যাটা ৭০০-এর ঘরে চলে আসে।

আনঅফিসিয়াল পরিসংখ্যানবিদদের সংগঠন ‘আরএসএসএসএফ’-এর হিসাব অনুযায়ী, সাবেক অস্ট্রিয়া ও তৎকালীন চেকোস্লোভাকিয়ার স্ট্রাইকার ইয়োসেফ বিকান কমপক্ষে ৮০৫ গোল নিয়ে আছেন তালিকায় সবার ওপরে। তাদের হিসাব অনুযায়ী তালিকায় রোনালদোর পেছনে আছেন পেলে (৭৬৯ গোল)। সমান ৭৬১ গোল নিয়ে নিয়ে পরের স্থানে যথাক্রমে আছেন রোমারিও ও ফেরেঙ্ক পুসকাস।

তবে পরিসংখ্যানবিদের হিসেবে ক্যারিয়ার গোলের হিসেবে অফিসিয়ালি আগে থেকেই শীর্ষে রোনালদো।

বর্তমান খেলোয়াড়দের মধ্যে গোলের হিসেবে সাবেক রিয়াল তারকার সবচেয়ে কাছাকাছি আছেন সাতবারের বর্ষসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি। পিএসজি ফরোয়ার্ডের গোল ৭৫৬টি।

রোনালদোর ৮০১

 

স্পোর্তিং লিসবন

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

১৩০

রিয়াল মাদ্রিদ

৪৫০

ইউভেন্তুস

১০১

পর্তুগাল

১১৫

সাবেক ইংল্যান্ড ফরোয়ার্ড গ্যারি লিনেকার টুইটারে রোনালদোর কীর্তিকে ‘পাগলাটে’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

“সে সন্দেহাতীতভাবে ফুটবল ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়দের একজন। অবিশ্বাস্য একজন খেলোয়াড়।”

৮০০ গোলের পথচলায় রোনালদো ২০ বা তার বেশি গোল করেছেন লা লিগার পাঁচ দলের বিপক্ষে- সেভিয়া (২৭), আতলেতিকো মাদ্রিদ (২৫), গেতাফে (২৩) এবং সমান ২০টি করে বার্সেলোনা ও সেল্তা ভিগোর বিপক্ষে।

পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার দুই অঙ্কের ঘরে গোল করেছেন ১৯টি দলের বিপক্ষে। আর্সেনালের বিপক্ষে তার গোল হলো ৮টি।

গত সেপ্টেম্বরে দ্বিতীয় মেয়াদে ইউনাইটেডে ফেরার পর থেকে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে রোনালদোর গোল ১২টি। ক্যারিয়ার গোল সংখ্যাটা ৮০১, এক হাজার ৯৭ ম্যাচে।

রোনালদোর রেকর্ড গড়ার ম্যাচ জিতে লিগে ১৪ ম্যাচে ছয় জয় ও ৩ ড্রয়ে ২১ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে উঠেছে ইউনাইটেড।