পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

আবারও গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় মোহামেডানের

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-12-06 20:11:39 BdST

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ড্রয়ে মোহামেডানের জন্য সমীকরণটা হয়ে গিয়েছিল আরও কঠিন। সাইফ স্পোর্টিংয়ের বিপক্ষে যোগ করা সময়ের গোলে তা মিলিয়ে নেওয়ার কিছুটা ইঙ্গিত অবশ্য দিয়েছিল শন লেনের দল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শঙ্কাই হলো সত্যি। স্বাধীনতা কাপের গ্রুপ পর্ব থেকে এবারও ছিটকে গেল ২০১৪ সালে সবশেষ এই প্রতিযোগিতার শিরোপা জেতা দলটি।

কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে সোমবার ‘সি’ গ্রুপে সাইফ স্পোর্টিংয়ের সঙ্গে ১-১ ড্র করে মোহামেডান। কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠতে জয় দরকার ছিল তাদের।

তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ সেরা হয়ে কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠেছে সাইফ স্পোর্টিং। মোহামেডান ও সেনাবাহিনীর পয়েন্ট ৪ করে, কিন্তু মুখোমুখি লড়াইয়ের হিসাবে ছিটকে গেছে লেনের দল।

দিনের প্রথম ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সঙ্গে ১-১ ড্র করে কোয়ার্টার-ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখে ‘অপেশাদার দল’ সেনাবাহিনী। ওই ম্যাচের ফলেই কোয়ার্টার-ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যায় সাইফ স্পোর্টিংয়ে।

ম্যাচের শুরু থেকেই সাইফ ছিল আক্রমণাত্মক। কিন্তু মোহামেডানের পোস্টের নিচে বিশ্বস্ত দেয়াল হয়ে ছিলেন গোলরক্ষক আহসান হাবিব বিপু। ত্রয়োদশ মিনিটে নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এমেকা ওগবাহর বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শট ঝাঁপিয়ে ফেরান তিনি। চার মিনিট পর বক্সের বাইরে থেকে মারাজ হোসেনের শটও আটকান একইভাবে।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে আর পারেননি বিপু। ফয়সাল আহমেদ ফাহিমের লম্বা ক্রস প্রথম ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দারুণ ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন আরেক নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এমফন সানডে উদোহ। মোহামেডানের পথটা হয়ে যায় আরও কঠিন।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে মোহামেডানের ফরোয়ার্ড সুলেমানে দিয়াবাতের হেড ফেরান গোলরক্ষক মিতুল হোসেন। ৫৩তম মিনিটে সতীর্থের আড়াআড়ি ক্রসে সাহেদ পা ছোঁয়ানোর আগেই বিপু ছুটে এসে ক্লিয়ার করে ব্যবধান দ্বিগুণ হতে দেননি।

৫৮তম মিনিটে দুই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। সাইফের আশরর গফুরভ ও মোহামেডানের ইয়াসমিন মেসিনোভিকিকে হলুদ কার্ড দিয়ে সতর্ক করেন রেফারি।

৬৪তম মিনিটে উদোহর জোরালো শট এবং পাঁচ মিনিট পর নাইজেরিয়ান এই ফরোয়ার্ডেরই চিপ শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে কর্নার থেকে হেডে সমতা ফেরান মেসিনোভিকি। তাতে মোহামেডানের আশার পালে লাগে কিছুটা হওয়া। কিন্তু শেষের বাঁশির বাজার সঙ্গে সঙ্গে তা মিইয়েও যায়।