পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জোকোভিচের অনুপস্থিতি ‘টেনিসের ক্ষতি’

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-16 21:34:08 BdST

আশা-শঙ্কার দোলাচলের সমাপ্তি ঘটেছে আদালতের সিদ্ধান্তে। শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের এবারের আসরে খেলা হচ্ছে না নোভাক জোকোভিচের। এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ছাড়তে হয়েছে ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী তারকাকে। বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যামে রেকর্ড চ্যাম্পিয়নকে না পাওয়াটা টেনিসের জন্য বড় ক্ষতি বলে মনে করছে ছেলেদের টেনিসের নিয়ন্তা সংস্থা এটিপি।

কোভিড-১৯ টিকা না নেওয়া জোকোভিচ তার ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ার আদালতে যে আপিল করেছিলেন, রোববার তা খারিজ হয়ে যায়। অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল আদালতের ৩ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ আবেদনটি খারিজ করে দেয়।

আদালতের সিদ্ধান্তে ‘হতাশ’ জোকোভিচ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন না বলে জানিয়েছিলেন। রয়টার্স জানিয়েছে, আদালতের সিদ্ধান্তের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মেলবোর্ন বিমানবন্দরে পৌঁছান সার্বিয়ান তারকা। এসময় ৩৪ বছর বছর বয়সী এই খেলোয়াড় ও তার টিমের সদস্যরা ছিলেন ফেডারেল এজেন্টদের পাহারায়। মেলবোর্ন থেকে তারা এমিরেটসে করে দুবাইয়ের পথে উড়াল দেন। বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অবস্থান বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে এটিপি।

“নোভাক জোকোভিচের অস্ট্রেলিয়ার ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল রাখার আজকের রায়ে ভীষণ দুঃখজনক ঘটনাবহুল একটি বিষয়ের সমাপ্তি হলো। পরিশেষে, জনস্বাস্থ্যের বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তকে অবশ্যই সম্মান জানাতে হবে।”

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে গত তিনবারসহ রেকর্ড ৯ বারের চ্যাম্পিয়ন জোকোভিচ গত ৬ জানুয়ারি মেলবোর্নের টুলামারিন বিমানবন্দরে নামার পর শুরু হয় এই টানাপোড়েন। কয়েক ঘণ্টা বসিয়ে রেখে অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, টিকার শর্ত শিথিলের কোনো প্রমাণ জোকোভিচ দেখাতে পারেননি, সুতরাং ভিসা বাতিল করে তাকে ফেরত পাঠানো হবে।

পরে বিমানবন্দর থেকে জোকোভিচকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় একটি হোটেলে রাখা হয় ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের হেফাজতে। ফেরত পাঠানো এড়াতে অস্ট্রেলিয়ার আদালতের দ্বারস্থ হন জোকোভিচ। দেশটির একটি আদালত ১০ জানুয়ারি মুক্তি দেন তাকে। পরে নির্বাহী ক্ষমতাবলে অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসনমন্ত্রী অ্যালেক্স হক ফের জোকোভিচের ভিসা বাতিল করেন। ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেও আপিল করেন এ তারকা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আদালতের সিদ্ধান্তেই অস্ট্রেলিয়া ছাড়তে হলো তাকে।

এর আগে এটিপি জানিয়েছিল, পুরুষ বিভাগের র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে থাকা ১০০ খেলোয়াড়ের মধ্যে ৯৭ শতাংশকে কোভিড-১৯ টিকা দেওয়া হয়েছে। খেলোয়াড়দের টিকা নেওয়ার বিষয়টি ‘দৃঢ়ভাবে সুপারিশ’ করার কথাও পুনর্ব্যক্ত করেছে তারা।

এবারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিততে পারলে পুরুষ টেনিসের ইতিহাসে ২১টি বড় শিরোপা জিতে খেলাটির সবচেয়ে সফল তারকার মুকুট পরতেন জোকোভিচ। কিন্তু টিকা না নেওয়ায় শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া ছাড়তে হলো তাকে। গত কয়েকটা দিন অস্ট্রেলিয়াতে উত্তাল পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাওয়া জোকোভিচের পাশে দাঁড়ানোর কথাও বিবৃতিতে জানিয়েছে এটিপি।

“নির্বিশেষে বিষয়গুলো যেভাবে এই পর্যায়ে পৌঁছেছে….নোভাক আমাদের খেলার সেরা চ্যাম্পিয়নদের একজন এবং অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে তার অনুপস্থিতি টেনিসের জন্য ক্ষতির।”

“আমরা জানি, সাম্প্রতিক দিনগুলোতে কতটা কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে নোভাককে যেতে হয়েছে এবং মেলবোর্নে সে মুকুট ধরে রাখতে কতটা উন্মুখ ছিল। আমরা তাকে শুভকামনা জানাই এবং শিগগিরই তার কোর্টে ফেরার অপেক্ষায় আছি।”